ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৫ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

কাজীপুরের বিনোদন মেঘাই ঘাট

প্রকাশিত: ০৪:৩৫, ২৩ জুন ২০১৮

কাজীপুরের বিনোদন মেঘাই ঘাট

যমুনার ধু ধু বালিয়াড়ি আর বিশাল জলরাশি। নদীপাড়ে বাধা রয়েছে নানা রঙের ছোট বড় অসংখ্য নৌকা। যমুনার বুক চিড়ে ছলাৎ ছলাৎ শব্দ তুলে নানা গন্তব্যে ছুটে চলেছে এসব নৌকা। নৌকার মাঝিরা কেউ যাচ্ছে যাত্রী নিয়ে, আবার কোন কোন নৌকায় মালামাল বহন করা হচ্ছে। দূর থেকে যাত্রীবাহী নৌকা এসে ভিড়ছে ঘাটে। পড়ন্ত বিকেলে সূর্যের লাল আভা এসে পড়েছে যমুনার পানিতে। সে এক অপরূপ মনোমুগ্ধকর দৃশ্য। বন্যানিয়ন্ত্রণ বাঁধের ওপর সিমেন্ট- কংক্রিটে তৈরি ব্লক (সিসি ব্লক) দিয়ে মোড়ানো গোলাকার শাণবাঁধা বেঞ্চে ছাতার নিচে বসে অসংখ্য নারী-পুরুষ শিশু এই অপরূপ দৃশ্য অবলোকন করছে। শুধু কাজীপুরের মেঘাই ঘাটই নয় যমুনা পাড়ের সিরাজগঞ্জ হার্ড পয়েন্ট, চায়না বাঁধ নামে পরিচিত যমুনার ক্রস বাঁধেও অসংখ্য নারী পুরুষ এবং শিশুর কোলাহল। কোন বিশেষ দিনে হাজারো বিনোদনপ্রিয় মানুষের পদভারে মেঘাই ঘাট মুখরিত হয়ে উঠে। যমুনার বালিয়াড়িতে বৃত্ত তৈরি করে গ্রামীণ ঐতিহ্য লাঠি খেলার আয়োজনও করা হয়। বাঁধ ভাঙ্গা উচ্ছ্বাসে মেতে উঠে শিশু নারী-পুরুষ। বলা হয়ে থাকে যমুনা নদী সিরাজগঞ্জের মানুষের জন্য দুঃখ। প্রতি বছরই বর্ষা মৌসুমে যমুনায় ভাঙ্গন দেখা যায়। মানুষ জমি জিরাত হারিয়ে সর্বশান্ত হয়। প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকা ব্যয় করে সেই যমুনাকে শাসন করা হচ্ছে। ভাঙ্গন প্রতিরোধ করা হয়েছে। প্রকৌশল বিদ্যার নানা অনুষঙ্গ ব্যবহার করে যমুনাপাড়কে আকর্ষণীয় করা হয়েছে। গড়ে উঠেছে বিনোদন কেন্দ্র। পর্যটন কেন্দ্র স্থাপনের কাজও শুরু হয়েছে। এসব কাজ করছেন আওয়মী লীগ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এ অঞ্চলের মাটি ও মানুষের সন্তান স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। মেঘাই ঘাটে কথা হলো কাজীপুরের বাঐখোলা গ্রামের যুবক মামুনের সঙ্গে। মামুন ঢাকায় একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। তিনি প্রতি বছরই ঈদ উদযাপন করেন গ্রামের বাড়িতে। অবসরে বেড়াতে আসেন যমুনা পাড়ের মেঘাই ঘাটে। এবারও এসেছেন, কিন্তু তিনি দেখছেন যমুনারপাড় সেজেছে ভিন্ন আঙ্গিকে। বন্যানিয়ন্ত্রণ বাঁধে সিমেন্ট-কংক্রিটে তৈরি ব্লক (সিসি ব্লক) দিয়ে মোড়ানো হয়েছে। গোলাকার শাণবাঁধা বেঞ্চে ছাতার নিচে বসে আছে অসংখ্য নারী-পুরুষ শিশু। দূর-দূরান্ত থেকে এ সব মানুষ এসে আনন্দ উপভোগ করছেন। কেউ দেখছে লাঠি খেলা, কেউ নৌকায় বেড়াচ্ছে। আবার ঘাটে বাধা পন্টুনের ওপর বসে অনেকেই আড্ডা দিচ্ছেন। এমন বিনোদন কাজীপুরের আগে ছিল না বললেন মেঘাই গ্রামের কলেজ পড়ুয়া সাদিয়া। সাদিয়া জেনেছেন কাজীপুরে পর্যটন কেন্দ্র নির্মাণ করা হচ্ছে। এ জন্য মেঘাই ঘাটে একটি পর্যটন রেস্ট হাউস নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। -বাবু ইসলাম, সিরাজগঞ্জ থেকে
monarchmart
monarchmart