ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ৩১ জানুয়ারি ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

যুক্তরাষ্ট্র সফরে উত্তর কোরিয়ার সাবেক গোয়েন্দাপ্রধান

প্রকাশিত: ০৩:২৮, ৩০ মে ২০১৮

যুক্তরাষ্ট্র সফরে উত্তর কোরিয়ার সাবেক গোয়েন্দাপ্রধান

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উনের ঐতিহাসিক বৈঠকের প্রস্তুতি এগিয়ে নিতে উত্তর কোরিয়ার এক উর্ধতন কর্মকর্তা ওয়াশিংটন সফরে যাচ্ছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। -খবর বিবিসি। কিমের অন্যতম ঘনিষ্ঠ কর্মকর্তা ও উত্তর কোরিয়ার সাবেক গোয়েন্দাপ্রধান জেনারেল কিম ইয়ং-চোল বেজিং হয়ে বুধবার যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছাবেন বলে জানিয়েছে দক্ষিণ কোরীয় বার্তা সংস্থা ইয়োনহাপ। যুক্তরাষ্ট্রে উত্তর কোরীয় কর্মকর্তার এ সফর জুনে ট্রাম্প-কিম বৈঠকের আগে বিস্তারিত খুঁটিনাটি ঠিক করতে দুই দেশের কর্মকর্তাদের ব্যস্ত কর্মকা-েরই অংশ। বেজিংয়ে চীনা কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলার পর বুধবার জেনারেল চোল নিউইয়র্কে নামবেন বলে কূটনৈতিক সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে ইয়োনহাপ। যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছালে ২০০০ সালের পর দেশটিতে যাওয়া শীর্ষ উত্তর কোরীয় কর্মকর্তা হবেন তিনি। ওয়াশিংটনের সঙ্গে মধ্যস্থতায় চোলের আবির্ভাবকে গুরুত্বপূর্ণ বলেই মনে করছেন পর্যবেক্ষকরা। উত্তর কোরিয়া যে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বৈঠক নিশ্চিতে কাজ করছে, কিমের ঘনিষ্ঠ এই সামরিক কর্মকর্তার ওয়াশিংটন উপস্থিতিকে তার ইঙ্গিত হিসেবেও দেখছেন তারা। উত্তর কোরিয়ার সাবেক গোয়েন্দা প্রধান চোলকে সম্প্রতি দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে শীর্ষ পর্যায়ের কূটনৈতিক আলোচনাগুলোতেও দেখা গেছে। প্রভাবশালী এই কর্মকর্তাকে প্রায়ই উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিমের পাশে দেখা যায়; চীন ও দক্ষিণ কোরিয়ার নেতাদের সঙ্গেও তিনি নিয়মিত বৈঠক করেন। পিয়ংইয়ংয়ে সম্প্রতি সফর করে আসা মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী মাইক পম্পেওর সঙ্গেও দেখা করেছিলেন চোল। ফেব্রুয়ারিতে দক্ষিণ কোরিয়ার পিয়ংচ্যাংয়ে হওয়া শীতকালীন অনুষ্ঠানের সমাপনীতে ট্রাম্পের মেয়ে ও উপদেষ্টা ইভাঙ্কার পাশেই বসেছিলেন উত্তরের সাবেক এই গোয়েন্দাপ্রধান। চোলের যুক্তরাষ্ট্র সফরের সম্ভাব্যতার মধ্যেই মঙ্গলবার সিঙ্গাপুরে উত্তর কোরিয়ার কর্মকর্তাদের সঙ্গে মার্কিন ‘অগ্রবর্তী দলের’ বৈঠক হয়েছে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসনের কর্মকর্তারা। ট্রাম্প-কিম বৈঠকে কী নিয়ে আলোচনা হবে সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছু এখনও প্রকাশ করা না হলেও কোরীয় উপদ্বীপকে পরমাণু অস্ত্র মুক্ত করা এবং উত্তেজনা প্রশমনই মূল আলোচ্য বিষয় হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সপ্তাহখানেক আগেও কূটনৈতিক টানাপড়েনের মধ্যে গত বৃহস্পতিবার সিঙ্গাপুর বৈঠক বাতিলের ঘোষণা দিয়েছিলেন ট্রাম্প। আর এর আগে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র অতিরিক্ত চাপ দিচ্ছে অভিযোগ তুলে কিমও সম্মেলন বাতিলের হুমকি দিয়েছিলেন।
monarchmart
monarchmart