ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯

বিদ্যুত বিভ্রাটে অতিষ্ঠ রাজশাহীবাসী

প্রকাশিত: ০৫:৫৩, ২৮ অক্টোবর ২০১৭

বিদ্যুত বিভ্রাটে অতিষ্ঠ রাজশাহীবাসী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিদ্যুত বিভ্রাটে অতিষ্ঠ রাজশাহীবাসী। গত দুই মাসের বেশি সময় ধরে অসহনীয় মাত্রার লোডশেডিংয়ে ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান ও অফিস আদালতে কাজকর্মের গতি মন্থর হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় উৎপাদন ঘাটতির কারণে লোকসানের আশঙ্কা করছেন ব্যবসায়ীরা। বিদ্যুতের এমন দুরবস্থা কবে নাগাদ কাটিয়ে উঠবে এর কোন জবাব নেই সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তাদের কাছে। দিনরাত মিলিয়ে আট থেকে দশবার সমান তালে চলছে বিদ্যুতের যাওয়া আসা। এক ঘণ্টা থেকে শুরু করে দুই বা আরও অধিক সময় পর্যন্ত চলে লোডশেডিং।এ কারণে অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, অফিস আদালতে নেমে এসেছে স্থবিরতা। ঘনঘন লোডশেডিংয়ে বিপর্যস্ত সাধারণ মানুষের জনজীবন। বিপাকে পড়েছে শিক্ষার্থীরাও। প্রায় দুই মাসেরও অধিক সময় ধরে বিদ্যুতের এই ভেলকি বাজিতে অতিষ্ঠ রাজশাহীবাসী। স্থানীয় কয়েকজন ভুক্তভোগী বলেন, ছেলেমেয়েরা গরমে অতিষ্ঠ হয়ে ঠিকমতো পড়ালেখা করতে পারছে না। এছাড়া অফিস আদালতে বিদ্যুত না থাকার কারণে কার্যক্রমে স্থবিরতা নেমে এসেছে বলে জানান তারা। ব্যবসায়ীদের দাবি, লোডশেডিংয়ে অধিকাংশ কল-কারখানায় পণ্য উৎপাদন কমে যাওয়ায় ক্ষতির মুখে পড়েছেন তারা। রাজশাহী চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি মোঃ মনিরুজ্জামান মনি বলেন, ‘ইন্ডাস্ট্রি চলাকালীন বিদ্যুত চলে যাওয়ায় বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহণ করতে যেয়ে ব্যবসায়ীদের অতিরিক্ত টাকা গুনতে হচ্ছে। ফলে তারা লোকসানের মুখে পড়ছে।’ তবে ভৈরব বিদ্যুত সরবরাহ কেন্দ্রে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে এ অবস্থার সৃষ্টি বলে জানান তারা। বিউবো রাজশাহীর প্রধান প্রকৌশলীর দায়িত্বে থাকা তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আব্দুর রকিব বলেন, ‘টাউনের কাজ শেষ হয়ে গেলে খুব তাড়াতাড়ি সমস্যা কেটে যাবে।’ বিদ্যুত উন্নয়ন বোর্ডের দেয়া তথ্য মতে, জেলায় দিনে প্রায় সাড়ে ৪শ’ মেগাওয়াট বিদ্যুতের চাহিদা থাকলেও সরবরাহ আছে ৩শ’ থেকে সাড়ে তিন শ’ মেগাওয়াট।