ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯

হবিগঞ্জে দাবি আদায়ে ধর্মঘটে চা শ্রমিকরা 

নিজস্ব প্রতিনিধি, হবিগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৩:০৯, ১৬ আগস্ট ২০২২

হবিগঞ্জে দাবি আদায়ে ধর্মঘটে চা শ্রমিকরা 

জেলার চানপুর চা বাগানের শ্রমিকরা কর্মবিরতি পালন করছেন। ছবি: জনকণ্ঠ।

দাবি আদায়ে হবিগঞ্জের চার উপজেলার চা বাগানে শ্রমিকরা ধর্মঘট পালন করছেন। দৈনিক মজুরি ১২০ থেকে বাড়িয়ে ৩০০ টাকা করার দাবিতে এ ধর্মঘট পালন করছেন শ্রমিকরা। হবিগঞ্জের চা বাগানগুলোতে চলমান আন্দোলনে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধের কর্মসূচি স্থগিত করলেও শ্রমিকরা ধর্মঘটে রয়েছেন। 

এদিকে, চলমান সংকট নিরসনে মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) শ্রীমঙ্গলে অবস্থিত বিভাগীয় শ্রম অধিদফতরের কার্যালয়ে চা শ্রমিক নেতাদের নিয়ে বৈঠকে বসার কথা সরকারের শ্রম অধিদফতরের মহাপরিচালক খালেদ মামুন চৌধুরী
এনডিসির। 

মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) সকালে এ তথ্য জানিয়েছেন জেলার চুনারুঘাটের চানপুর চা বাগানের বাসিন্দা বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নৃপেন পাল।

তিনি বলেন, মজুরি বাড়ানোর আন্দোলন অব্যাহত আছে। শ্রমিকরা এখনও কাজে যোগ দেননি। যেহেতু শ্রম অধিদফতরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা একদিন পরেই আমাদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন, সেই বিবেচনায় কর্মসূচি থেকে শুধু মহাসড়ক অবরোধের বিষয়টি একদিন পেছানো হয়েছে। বৈঠকের সিদ্ধান্তের আলোকে শ্রমিকরা পরবর্তী সিদ্ধান্ত
নেবে।

জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে দৈনিক ১২০ টাকা মজুরিতে কাজ করছেন জেলার চা বাগানগুলোর শ্রমিকরা। বর্তমান দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির বাজারে এ টাকা অত্যন্ত অপ্রতুল। তাই মজুরি ৩০০ টাকা করার দাবিতে ৯ থেকে ১১ আগস্ট পর্যন্ত তারা দৈনিক দুই ঘণ্টা করে কর্মবিরতি পালন করেন। 

গত বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) সন্ধ্যায় হবিগঞ্জের ১০ জন শ্রমিক নেতার সঙ্গে শ্রীমঙ্গলে অবস্থিত বিভাগীয় শ্রম দফতরের কর্মকর্তারা বৈঠকে বসলেও আলোচনা ফলপ্রসু হয়নি। তাই শনিবার (১৩ আগস্ট) থেকে টানা ধর্মঘটের ডাক দেয় শ্রমিকরা।

চা বাগান সূত্রে জানা গেছে, হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ, বাহুবল, চুনারুঘাট, মাধবপুর উপজেলার পাহাড়ি অঞ্চলের প্রায় ১৫ হাজার ৭০৩.২৪ হেক্টর জমিতে ২৫টি ফ্যাক্টরিযুক্ত চা বাগান রয়েছে। এ ছাড়া ফাঁড়িসহ প্রায় ৪১টি বাগানের প্রায় প্রতি হেক্টর জমিতে ২২-২৫শ কেজি চা পাতা উৎপাদন হয়। এসব বাগানে বছরে ১ কোটি ৩০ লাখ কেজি চা
উৎপাদন হয়ে থাকে। 

বাংলাদেশ চা বোর্ড ও চা-শ্রমিক ইউনিয়নের তথ্য অনুযায়ী, দেশে সবমিলিয়ে ২৫৬টি চা-বাগান আছে। এতে নিবন্ধিত শ্রমিকের সংখ্যা ১ লাখ ৩ হাজারের উপরে। অস্থায়ী শ্রমিকের সংখ্যা ৩০ হাজার। দেশে মোট চা শ্রমিক পরিবারের বাসিন্দা প্রায় ৮ লাখ। এরমধ্যে স্থায়ী ও অস্থায়ী মিলিয়ে শ্রমিকের সংখ্যা প্রায় ১ লাখ ৩৩ হাজার। বাগানে কাজ না পেয়ে হাজার হাজার শ্রমিক বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করছে।
 

এমএইচ