২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১২ ফাল্গুন ১৪২৬, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

সিএএর ওপর স্থগিতাদেশ দিতে অসম্মতি ভারতের সুপ্রিম কোর্টের

প্রকাশিত : ২২ জানুয়ারী ২০২০, ০৪:২৩ পি. এম.
সিএএর ওপর স্থগিতাদেশ দিতে অসম্মতি ভারতের সুপ্রিম কোর্টের

অনলাইন ডেস্ক ॥ ভারতের বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের (সিএএ) ওপর স্থগিতাদেশ দিতে অসম্মতি জানিয়েছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। এনডিটিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

সিএএর বিরুদ্ধে করা আবেদনের শুনানিতে আজ বুধবার দেশটির প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বেঞ্চ এই অসম্মতি জানান।

দেশটির সর্বোচ্চ আদালতে সিএএর বিরুদ্ধে ১৪০ টির বেশি আবেদন জমা পড়েছে। এই আবেদনগুলো আজ শুনানির জন্য প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বেঞ্চে ওঠে।

শুনানিতে সুপ্রিম কোর্ট স্পষ্ট করে বলেন, এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের জবাব না শুনে সিএএর ওপর কোনো স্থগিতাদেশ দেবেন না আদালত।

আবেদনের বিষয়ে জবাব দিতে কেন্দ্রীয় সরকারকে চার সপ্তাহ সময় দিয়েছেন সর্বোচ্চ আদালত।

একই সঙ্গে আদালত এই মামলা শুনানির জন্য পাঁচ বিচারপতির সমন্বয়ে গঠিত সাংবিধানিক বেঞ্চে পাঠিয়েছেন।

আজ সুপ্রিম কোর্ট বলেছেন, সিএএর বিরুদ্ধে ১৪০ টির বেশি আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কোনো অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ দেওয়া হবে কি না, তা পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ ঠিক করবেন।

সিএএর বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে জমা পড়া বেশির ভাগ আবেদনে এই আইন প্রত্যাহার বা স্থগিত চাওয়া হয়েছে।

অধিকাংশ আবেদনে বলা হয়েছে, নতুন এই আইন অবৈধ। এই আইন ভারতের সংবিধানের মৌলিক কাঠামোর বিরোধী। এই আইন সমতার অধিকারের পরিপন্থী। কারণ, এই আইনে ধর্মের ভিত্তিতে নাগরিকত্ব প্রদানের কথা বলা হয়েছে।

আইনটির বিরুদ্ধে রাজনৈতিক দল থেকে শুরু করে সমাজের বিভিন্ন মানুষ দেশের সর্বোচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন। সিএএর বিরুদ্ধে আবেদনকারী রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে রয়েছে কংগ্রেস, ডিএমকে, সিপিআই, সিপিএম, ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিম লিগ, আসাদউদ্দিন ওয়াইসির অল-ইন্ডিয়া মজলিশ-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন, কমল হাসানের মাক্কাল নিধি মাইয়াম।

ভারতজুড়ে বিক্ষোভ উপেক্ষা করে গত ১০ জানুয়ারি দেশটির হিন্দুত্ববাদী বিজেপি সরকার সিএএ কার্যকর করে। বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে নিপীড়িত হয়ে ভারতে আশ্রয় নেওয়া ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে এই আইনে। প্রবল বিরোধিতা সত্ত্বেও গত বছরের ১১ ডিসেম্বর এই বিল ভারতের সংসদে পাস হয়।

সিএএর বিরুদ্ধে ভারতজুড়ে আন্দোলন চলছে। আন্দোলনে গোটা দেশে ইতিমধ্যে অন্তত ২৫ জন নিহত হয়েছেন। আহত শত শত।

প্রকাশিত : ২২ জানুয়ারী ২০২০, ০৪:২৩ পি. এম.

২২/০১/২০২০ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

বিদেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: