১৯ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সাংবাদিক আবদুর রহিমের বাড়ি দখলে বেপরোয়া শাহজাহান মোল্লা


বাংলাদেশ অবজারভারের প্রাক্তন নির্বাহী সম্পাদক আবদুর রহিমের গুলশানের বাড়ি ভুয়া দলিল দেখিয়ে বিক্রির চেষ্টা করায় দুই ধারায় আট বছর সশ্রম কারাদ- ও দশ হাজার টাকা জরিমানা হয় প্রতারক শাহজাহান মোল্লার। জামিনে থেকে এই প্রতারক তার অশুভ অর্জনে বেপরোয়া হয়ে পড়েছে।

কাল্পনিক এক আবদুল মানান্নকে মোল্লার দাবিকৃত অস্তিত্বহীন ‘ফুফা আবদুর রহিমের’ বাড়ির অবৈধ ভাড়াটে দেখিয়ে, সে ব্যক্তিকে উচ্ছেদের উদ্দেশ্যে গোপনে এক মামলা করে ঢাকার দ্বিতীয় সহকারী জজের আদালতে। এ মামলার কথা জানা যায়, যখন আসামি শাহজাহান মোল্লা ও তার দুই সহযোগীর বিরুদ্ধে ঢাকার এসিএমএম, ১নং আদালতে বিচারকার্জটি শেষ পর্যায়ে ছিল। এ মামলায় শাহজাহান মোল্লা ও আরও দুই প্রতারক গুলশান পুলিশের কাছে হাতে-নাতে গ্রেফতার হয়। আসামিপক্ষ উচ্ছেদের মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত, চলমান ফৌজদারি মামলার কার্যক্রম স্থগিত রাখার আবেদন খারিজ করেন এসিএমএম আদালত এবং তিন আসামিকে ১১ জুলাই, ২০১১ সালে দ-িত করেন এসিএমএম, এক নম্বর আদালতের বিচারক হাবিবুর রহমান। রায় ঘোষণার সময় উপস্থিত প্রধান আসামি শাহজাহান মোল্লাকে হাত-কড়া পরিয়ে কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়।

উচ্ছেদের মামলায় সাংবাদিক আবদুর রহিম পক্ষভুক্তির পর, আসামি শাহজাহান মোল্লা, এ রায়ের বিরুদ্ধে ঢাকা জেলা জজ আদালতে আপীল করলে, তা নাকচ হয়ে যায়। এরপর আসামি মোল্লা নি¤œ আদলতের রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপীল করলে, সেখানেও মোল্লার আপীল বিচারপতি জুবায়ের রহমান খারিজ করে দেন। বিচারপতির নির্দেশানুযায়ী মোল্লার কথিত ফুফাকে আদালতে উপস্থিত না করে দ-িত মোল্লার আইনজীবী লিখিতভাবে জানান যে, ফুফা আবদুর রহিমের ‘হয়ারএ্যাবউস’ তাদের জানা নেই।

ইতোমধ্যে, মোল্লা সঙ্গোপনে ঢাকার দ্বিতীয় সহকারী জজ আদালতে পুনরায় নিজেকে আম-মোক্তার দাবি করে আরেকটি মামলা দায়ের করে অথচ বাড়ির প্রকৃত মালিক এ সম্বদ্ধে কিছুই জানেন না। এ মামলার কয়েক দফা শুনানি হয়েছে সাংবাদিক আবদুর রহিমের অজান্তে। এ মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য আছে ৮/৯/১৫ তারিখে।

অথচ একই বিষয়ে শাহজাহান মোল্লা হাইকোর্টে, পূর্বে নিম্ন কোর্ট ও হাইকোর্ট প্রদত্ত সকল রায়ের বিরুদ্ধে আপীল করেন। এর বিচার কাজ চলছে হাইকোর্টের বিচারপতি রুহুল কুদ্দুসের আদালতে। চলমান ছুটি শেষে এ মামলার রায় ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন বিচারপতি।

ইতোমধ্যে শাহাজাহান মোল্লার জামিনের শেষদিন ছিল। তার আইনজীবীর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি রুহুল কুদ্দুস ২৫ জুলাই পর্যন্ত তাঁর জামিনের সময় বর্ধিত করেন। -বিজ্ঞপ্তি।