মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৪ আগস্ট ২০১৭, ৯ ভাদ্র ১৪২৪, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

বিগ বাজেটের সিনেমা ‘বাহুবালি’

প্রকাশিত : ৯ জুলাই ২০১৫

একের পর এক বিশাল বাজেটের সিনেমা ভারতীয় চলচ্চিত্রের জন্য কোন নতুন ঘটনা না হলে ও এবার ভাঙ্গতে যাচ্ছে সর্ব কালের সব রেকর্ড। সারা পৃথিবীতে একযোগে ৩৫০০ সিনেমা হলে মুক্তি পেতে যাচ্ছে সিনেমাটি। সিনেমাটিতে বিনোদনের সব উপকরণই মজুদ। তামিল সেনসেশন তামান্না ভাটিয়া আর ৬ ফিট ৩ ইঞ্চি উচ্চতার সুদর্শন নায়ক প্রভাস। মন মাতানো সব লোকেশনে চিত্রায়িত গান আর ধুন্ধুমার এ্যাকশন যা নিঃসন্দেহে দর্শকদের বিনোদিত করবে। সিনেমার শূটিং চলেছে তিন বছর ধরে। সিনেমাটি মুক্তির আগেই চলচ্চিত্রপ্রেমীদের আকর্ষণ করছে তীব্রভাবে। সম্প্রতি ইউটিউবে রিলিজ হয়েছে সিনেমাটির প্রমো। তাতেই বাজিমাত। ১০ জুলাই সারা ভারতের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে ভারতের সর্বকালের সবচেয়ে ব্যয় বহুল সিনেমা ‘বাহুবালি’। তেলেগু ভাষায় নির্মিত এই সিনেমাটি সবার হলে গিয়ে দেখা উচিত এমন মন্তব্য করেছেন তারকা মহেশ বাবু। তিনি আরও যুক্ত করেছেন, ‘প্রত্যেক চলচ্চিত্রপ্রেমীর এই সিনেমাটি নিয়ে গর্ব করা উচিত।’ আসলে কি আছে এই সিনেমাতে? শুধুই ব্যয়বহুল আর তারকায় ঠাসা? নাকি অন্য কোন সমীকরণ কাজ করছে এখানে। সিনেমাটির পরিচালক এসএস রাজামৌলি বলেছেন, এটি খুবই সরল একটা কাহিনী যেখানে একজন পিতা হত্যার শিকার হন এবং একজন মা যিনি কারারুদ্ধ থাকেন দীর্ঘদিন। এটা প্রতিশোধের গল্প। একজন সন্তানের প্রতিশোধের গল্প। নির্মাতা সূত্রে খোঁজ নিয়ে যেটি জানা গিয়েছে সেটি হচ্ছে এটি পুরোপুরি একটি মহাকাব্যিক যুদ্ধের গল্প। তবে অনেকেই বলছেন এর সঙ্গে আমেরিকান ব্লকব্লাস্টার সিনেমা ‘৩০০’-এর দ্বারা অনেক বেশি অনুপ্রাণিত। এটিই হতে যাচ্ছে ভারতের সর্বকালের সবচেয়ে ব্যয়বহুল চলচ্চিত্র। তবে মজার ব্যাপার হচ্ছে ‘বাহুবালি’ কোন বলিউড সিনেমা নয়। বরং তেলেগু ভাষার চলচ্চিত্র। তবে তামিল ভাষায়ও এটি ডাবিং করে প্রদর্শিত হবে। খরচের অঙ্কও একবারে কম নয়। ২৫০ কোটি রুপীর উপরে। ভারতে প্রায় ৩৯টি ভাষায় চলচ্চিত্র নির্মিত হয়। গত বছর ২১৬টি হিন্দি ভাষার চলচ্চিত্র মুক্তি পায়। অন্যদিকে তামিল ও তেলেগু ভাষার চলচ্চিত্র মুক্তি পায় যথাক্রমে ২৮৭ ও ২৫৫টি। এই একটি পরিসংখ্যানই যথেষ্ঠ। ভারতের অন্যান্য ভাষার চলচ্চিত্র যে পিছিয়ে নেই, এটা সেটিরই সূচক। এর আগে রজনীকান্ত অভিনীত ‘রোবট’ ২৩ মিলিয়ন ইউএস ডলার ব্যয়ে নির্মিত হয়েছিল। সেটা ছিল ভারতের সবচেয়ে ব্যয়বহুল চলচ্চিত্র। তবে এবার ‘বাহুবালি’ ছাড়িয়ে যাচ্ছে ‘রোবট’কে। পুরো সিনেমার ২০ মিনিট জুড়েই আছে ভয়াবহ সব যুদ্ধের দৃশ্য। যুদ্ধের দৃশ্যগুলো চিত্রধারণ করতে সময় লেগেছে চার মাস। কাজটি ৪২ বছর বয়সী পরিচালক এসএস রাজামৌলির জন্য মোটেই সহজ ছিল না। প্রায় ১০০০ যোদ্ধা এবং তাদের ব্যবহৃত হাতী এবং ঘোড়ার আয়োজন করতে হয়েছিল। সব মিলিয়ে এক্সট্রা ছিল প্রায় ২০০০। সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়েছে ভিজুয়্যাল এফেক্ট। ভারত, দক্ষিণ কোরিয়া এবং চীনের প্রায় ৬০০ কলাকুশলী একযোগে ১৭টি ভিজুয়্যাল এফেক্ট স্টুডিওতে বসে তৈরি করেছেন প্রায় ৪৫০০ দৃশ্য। বিশাল কর্মযজ্ঞই বটে! তবে প্রযোজনা সূত্রে জানা গিয়েছে দুই পার্টে মুক্তি দেয়া হবে ‘বাহুবালি’ । খরচ এতো বেশি হয়েছে যে নইলে টাকা উঠে আসবে না বলে মনে করছেন প্রযোজনা সংস্থা। দর্শকের প্রত্যাশা মেটাতে পারবে কি চলচ্চিত্রটি? নাকি অতিরিক্ত প্রত্যাশার চাপে ধসে পড়বে? সেটি অবশ্য সময়ই বলে দেবে। তবে নিঃসন্দেহে ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটে নির্মিত এই বিগ বাজেটের সিনেমা ভারতীয় চলচ্চিত্রের আন্তর্জাতিক বাজারে প্রবেশের ক্ষেত্রে একটি মাইল ফলক হয়ে থাকবে।

আনন্দকণ্ঠ ডেস্ক

প্রকাশিত : ৯ জুলাই ২০১৫

০৯/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ:
ঘূর্ণিঝড়, পাহাড় ধস, বন্যা ॥ দুর্যোগ পিছু ছাড়ছে না || বিএনপি-জামায়াতের নৈরাজ্যের শিকার পরিবারগুলোকে প্রধানমন্ত্রীর অনুদান || বিটি প্রযুক্তির ব্যবহার দেশকে কৃষিতে ব্যাপক সাফল্য এনে দিয়েছে || রিজার্ভের চুরি যাওয়া অর্থ পুরো ফেরত পাওয়া যাবে || গ্রেনেড হামলা মামলার পলাতক ১৮ আসামিকে ফেরত আনার চেষ্টা || অনেক সড়ক মহাসড়ক পানির নিচে মহাদুর্ভোগের শঙ্কা || খাদ্য প্রক্রিয়াজাত শিল্পে ’২১ সালের মধ্যে বিলিয়ন ডলার রফতানি || নূর হোসেনের দম্ভোক্তি উবে গেছে, কালো মেঘে ছেয়েছে মুখ || জবাবদিহিতা না থাকা ও রাজনৈতিক প্রভাবে পাউবো প্রকল্পে দুর্নীতি || রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে আজ চূড়ান্ত রিপোর্ট দিচ্ছে আনান কমিশন ||