২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

গণভোটে গ্রীকদের ‘না’


জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ গ্রীসের ভাগ্য নির্ধারণী গণভোটে শতকরা ৬১ ভাগেরও বেশি ভোটার ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও আইএমএফের ঋণদাতাদের কঠিন শর্তে অর্থনৈতিক সহায়তা গ্রহণ প্রত্যাখ্যান করল। গ্রীসের দুই তৃতীয়াংশ ভোট গণনায় এই তথ্য জানা গেছে। গণভোটে ‘না’ জয়যুক্ত হওয়ার খবর শুনে উল্লসিত হাজার হাজার এথেন্সবাসী রবিবার বিজয় উদ্যাপনের জন্য নগরীর কেন্দ্রস্থলের সিনট্যাগমা স্কয়ারে সমবেত হয়।

গ্রীসের ব্যাংকসমূহ মঙ্গলবার থেকে পুনরায় খুলবে বলে জানা গেছে। গ্রীসের লাখ লাখ মানুষ রবিবার তাদের ঐতিহাসিক গণভোটে অংশ নেয়। আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার কর্মসূচীর শর্ত গ্রীস গ্রহণ করবে কিনা গস্খীকরা সে বিষয়ে ভোট দিয়েছে। এই গণভোটের ফলের ওপরই নির্ভর করছে গ্রীস ইউরোজোনে থাকবে কী থাকবে না। খবর বিবিসি/এএফপির।

গ্রীসের প্রতিরক্ষামন্ত্রী প্যানোস ক্যামেনোস ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার পরপরই এক টুইটবার্তায় বলেন, গ্রীকরা প্রমাণ করেছেন যে, তারা ব্ল্যাকমেইল বা হুমকির কাছে নতিস্বীকার করে না। প্রধানমন্ত্রী এ্যালেক্সিস সিপরাসের উগ্র বামপন্থী সরকার ‘না’ ভোট দেয়ার জন্য জনগণকে আহ্বান জানিয়ে বলেছিল গণভোটে ‘না’ জয়ী হলে আন্তর্জাতিক ঋণদাতাদের সঙ্গে আলোচনায় গ্রীসের হাত শক্তিশালী হবে।

প্রধানমন্ত্রী সিপরাস রবিবার বলেন, ‘না’ ভোটের মাধ্যমে প্রমাণিত হলো গ্রীস শুধু ইউরোপের সঙ্গে থাকতেই দৃঢ়প্রতিজ্ঞ নয়, মর্যাদার সঙ্গেই থাকতে চায়। এদিকে আন্তর্জাতিক ঋণদাতারা হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে যে, ‘না’ ভোট দিলে গ্রীক ব্যাংকসমূহের জন্য গুরুত্বপূর্ণ তহবিল পাওয়া যাবে না এবং এর ফলে ইউরোজোন থেকে গ্রীসকে বেরিয়ে যেতে হবে।