২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

‘দুর্ভাগ্যই’ ক্যান্সারের কারণ!


শুধু ধূমপান করলেই যে ক্যান্সার হতে পারে ঠিক তা নয়। ‘দুর্ভাগ্যের কারণেই’ বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মন্দাভাগ্যের জন্যও এ প্রাণঘাতী রোগ শরীরের বাসা বাঁধতে পারে। সম্প্রতি প্রকাশিত এ সংক্রান্ত এক নয়া গবেষণায় এমনটাই বলা হয়েছে। এ গবেষণার ফলাফল জার্নাল সায়েন্স পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে।

একদল মার্কিন গবেষক আবিষ্কারের চেষ্টা করছেন, কেন শরীরের কিছু কোষ শরীরের অন্যান্য কোষের তুলনায় লাখো-কোটিবার ক্যান্সার আক্রান্ত হওয়ার উপক্রম হয়। গবেষণায় দেখা যায়, যেসব ধরনের ক্যান্সারের আলামত নিয়ে গবেষণা করা হয়েছে তাদের দুই-তৃতীয়াংশের কারণ জীবনপ্রণালী নয়, বরং দৈবঘটনা। অবশ্য ক্যান্সার রিসার্স ইউকে বলছে, জীবনপ্রণালীর কারণে মানুষ এ রোগে আক্রান্ত হতে পারে। বর্তমানে ৬ দশমিক ৯ শতাংশ মার্কিনী ফুসফুস এবং শূন্য দশমিক ৬ শতাংশ ব্রেন ক্যান্সারে আক্রান্ত। অপরদিকে শূন্য দশমিক ৭২ শতাংশ মার্কিনী জীবনের কোন ক্ষেত্রে বংশগতভাবে টিউমারে আক্রান্ত হয়েছিলেন।

আর ধূমপানের ফলে উৎপাদিত বিষাক্ত পদার্থ কেন ফুসফুস ক্যান্সারের জন্য দায়ী এ বিষয়টিও গবেষণায় উঠে এসেছে। কিন্তু ব্রেনের তুলনায় পরিবেশে উৎপাদিত বিষাক্ত পদার্থের জন্য আমাদের পরিপাকতন্ত্র বেশি আক্রান্ত হয়। আর পাকস্থলি ক্যান্সারের তুলনায় এখন ব্রেন ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা এক-তৃতীয়াংশ বেশি। জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব মেডিসিন এ্যান্ড ব্লুমবার্গ স্কুল অব পাবলিক হেলথ মনে করে আসলে শরীরে টিস্যু উৎপাদনের গতিপথই কেন ক্যান্সার সৃষ্টি হয় তার উত্তর দিতে পারে।

তাঁরা বলছেন, বিশেষ করে শরীরের বয়স্ক কোষসমূহের জায়গায় শরীরে উৎপাদিত নতুন কোষ প্রতিস্থাপিত হয়। এ সময় শরীরের স্টেমসেল বিভাজিত হয়। আর এই পরিবর্তনের সময় শরীরের কোষসমূহ ক্যান্সার আক্রান্ত হওয়ার কাছাকাছি পৌঁছায়। বিবিসি অনলাইন।