ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

গোল্ডেন বুট হালান্ডের, ফিল ফোডেন লিগের সেরা খেলোয়াড়, আর্সেনালের আক্ষেপ

ইতিহাসের পাতায় ম্যানসিটি

জাহিদুল আলম জয়

প্রকাশিত: ০০:৪৭, ২১ মে ২০২৪

ইতিহাসের পাতায় ম্যানসিটি

শিরোপা হাতে উল্লাস ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটি ফুটবলারদের

ইতিহাসের পাতায় নিজেদের নাম সোনার হরফে লিখেছে ম্যানচেস্টার সিটি। প্রথম ইংলিশ ক্লাব হিসেবে টানা চতুর্থবারের মতো ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জয় করেছে সিটিজেনরা। রবিবার রাতে মৌসুমে নিজেদের শেষ ম্যাচে ওয়েস্টহ্যাম ইউনাইটেডকে ৩-১ গোলে হারিয়ে এ কীর্তি গড়েছে কোচ পেপ গার্ডিওলার দল। 
ইতিহাস গড়া মৌসুমে হয়েছে রেকর্ডের ছড়াছড়ি। এবার শিরোপা জয় করা সিটির মিডফিল্ডার ফিল ফোডেন জিতেছেন লিগের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার। আর তারকা ফরোয়ার্ড আর্লিং হালান্ড বাজিমাত করেছেন সর্বোচ্চ গোলের গোল্ডেন বুট। ইংল্যান্ডে নিজের দ্বিতীয় মৌসুমে দ্বিতীয়বারের মতো প্রিমিয়ার লিগের গোল্ডেন বুট জয়ের কৃতিত্ব দেখিয়েছেন নরওয়ের তারকা।

মৌসুমের মাঝামাঝিতে ইনজুরির কারণে প্রায় দুই মাস মাঠের বাইরে ছিলেন হালান্ড। যে কারণে সিটির হয়ে এবার নিজের সবটুকু নিংড়ে দিতে পারেননি। গতবার অভিষেক মৌসুমে যেখানে সব ধরনের প্রতিযোগিতায় প্রিমিয়ার লিগে রেকর্ড ৩৬ গোলসহ মোট ৫২ গোলে করেছিলেন। সেখানে এবার ২৩ বছর বয়সী হালান্ড লিগে করেছেন ২৭ গোল।

এরপরও তার দল সিটিকে উপহার দিয়েছেন রেকর্ড টানা চতুর্থ লিগ শিরোপা। ইংলিশ লিগে কোনো দলই এর আগে এ রেকর্ড গড়তে পারেনি। শেষ সাত প্রিমিয়ার লিগ ম্যাচে হালান্ড ৯ গোল করেছেন। আর এতেই সিটি আর্সেনালকে দুই পয়েন্টে পেছনে ফেলে ট্রফি নিশ্চিত করেছে। সিটির হয়ে মৌসুম শুরু করা চেলসির কোল পালমার ২২ গোল করে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন।

নিউক্যাসলের আলেক্সান্দার ইসাক এক গোল কম করে তালিকায় তৃতীয় স্থান লাভ করেছেন। সবমিলিয়ে যেন এবার গোলোৎসব হয়েছে ইপিএলে। লিগের শেষ দিনে দশ ম্যাচে গোল হয়েছে ৩৭টি। তাতে হয়ে গেছে ১৯৯২ সালে প্রিমিয়ার লিগ নামকরণের পর এক আসরে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড। এবার ৩৮০ ম্যাচে হয়েছে ১২৪৬ গোল। আগের সর্বোচ্চ ছিল ১২২২ গোল। যা  হয়েছিল প্রথম আসরে। সেবার দুই দল বেশি ছিল।

প্রথম দল হিসেবে প্রিমিয়ার লিগে টানা চারটি শিরোপা জয়ের পথে ৯৬ গোল করেছে ম্যানচেস্টার সিটি। রানার্সআপ আর্সেনাল এখানেও দ্বিতীয়। তারা করেছে ৯১ গোল। লিভারপুলের গোল ৮৬টি। নিজেদের রেকর্ড ৮৫ গোল করেছে নিউক্যাসল ইউনাইটেড। সবচেয়ে বেশি ১০৪ গোল হজম করেছে তলানির ক্লাব শেফিল্ড ইউনাইটেড। এটাও প্রিমিয়ার লিগে সর্বোচ্চ গোল হজম করার রেকর্ড। 
অন্যদিকে খুব কাছে গিয়ে আরেকবার না পাওয়ার বেদনা সইতে হয়েছে আর্সেনালকে। আরও একবার স্বপ্নভঙ্গের যন্ত্রণায় কাতরাতে হচ্ছে দলটিকে। লিগে টানা দ্বিতীয়বারের মতো রানার্সআপ হয়েছে গানার্সরা। যে কারণে ২০ বছরের শিরোপা খরা কাটানোর অপেক্ষা আরও দীর্ঘায়িত হয়েছে। সাবেক কোচ আর্সেন ওয়েঙ্গারের হাত ধরে ২০০৩-০৪ মৌসুমে গোটা আসরে অপরাজিত থেকে লিগ জিতেছিল আর্সেনাল।

তারপর থেকে এ স্বাদ আর পায়নি তারা। গত মৌসুমে শুরু থেকে দারুণ খেলে প্রায় ২৫০ দিন পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থেকে শিরোপা খরা কাটানোর দারুণ সম্ভাবনা জাগিয়েছিল দলটি। তবে মৌসুমের শেষের দিকে গড়বড় হয়ে যায় সব। হোঁচট খায় তারা একের পর এক ম্যাচে। তাদের ব্যর্থতা এবং সেই সময় নিজেদের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে তিন ম্যাচ হাতে রেখে শিরোপা জিতে নেয় ম্যানচেস্টার সিটি।
এবারের মৌসুমে শিরোপা লড়াই শেষ দিন পর্যন্ত টেনে নিয়ে আসে আর্সেনাল। সিটির চেয়ে দুই পয়েন্টে পিছিয়ে থেকে তারা শেষ দিনে মাঠে নামে। এমিরেটস স্টেডিয়ামে এভারটনের বিরুদ্ধে ২-১ গোলে জিতেও তাদের লাভ হয়নি। কেননা নিজেদের ম্যাচ জিতে নেয় সিটি। তবে অচিরেই আর্সেনাল শিরোপা জয় করবে বলে বিশ্বাস করেন কোচ মিকেল আর্তেতা। রানার্সআপ হওয়ার পর তিনি এমন আশার কথাই শুনিয়েছেন গানার্স সমর্থকদের।

×