ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১

বিশ্বকাপ শেষে এই দুই তারকা এখন ক্লাব দল প্যারিস সেইন্ট-জার্মেইনে (পিএসজি) কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে খেলছেন

মেসির রেকর্ড, এমবাপের পেনাল্টি মিস

জাহিদুল আলম জয়

প্রকাশিত: ০১:২৬, ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

মেসির রেকর্ড, এমবাপের পেনাল্টি মিস

গোলের পর শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন মেসির সঙ্গে ওয়ারেন জায়ারে-এমেরি

কাতার বিশ্বকাপের ফাইনালে একে অপরের মুখোমুখি হয়েছিলেন লিওনেল মেসি ও কিলিয়ান এমবাপে। ২০২২ সালের ১৮ ডিসেম্বরের ওই ফাইনালে এমবাপে হ্যাটট্রিক করেও বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হতে পারেননি। কিন্তু জোড়া গোল করে আরাধ্য সোনার ট্রফি জয় করেন মেসি। ওই ফাইনালে হ্যাটট্রিক করার পথে দুটি গোলই পেনাল্টি থেকে করেছিলেন এমবাপে। শুধু তাই নয়, ভাগ্যনির্ধারণী টাইব্রেকারেও ফ্রান্সের প্রথম পেনাল্টি শটে গোল করেন তিনি। সবমিলিয়ে ম্যাচে পেনাল্টি থেকে তিন গোলসহ মোট চার গোল করেছিলেন এমবাপে। অন্যদিকে মেসি ম্যাচ ও টাইব্রেকারে দুটি পেনাল্টি গোলসহ মোট তিন গোল করেন। 
বিশ্বকাপ শেষে এই দুই তারকা এখন ক্লাব দল প্যারিস সেইন্ট-জার্মেইনে (পিএসজি) কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে খেলছেন। বিশ্বকাপের পারফরম্যান্স আর্জেন্টাইন অধিনায়ক ধরে রাখতে পারলেও এমবাপের খেলায় উত্থান-পতন। বিশেষ করে টাইব্রেকারে গোলই করতে পারছেন না! যে প্রমাণ আরেকবার মিলেছে ফরাসি লিগ ওয়ানের ম্যাচে। বুধবার রাতে মন্টপেলিয়েরের বিরুদ্ধে দুইবার পেনাল্টি থেকে গোল করতে ব্যর্থ হয়েছেন এমবাপে। এরপরও অবশ্য মেসির রেকর্ডগড়া গোলে পিএসজি ম্যাচ জিতেছে ৩-১ ব্যবধানে। এর ফলে দুই ম্যাচ পর জয়ের ধারায় ফিরেছে প্যারিসের পরাশক্তিরা। ২১ ম্যাচে ৫১ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষেও আছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। 
ম্যাচের বয়স তখন সপ্তম মিনিট। মেসির ফ্রিকিকের সময় ডি বক্সে ফাউলের শিকার হন স্প্যানিশ ডিফেন্ডার সার্জিও রামোস। ফলে পেনাল্টি পায় সফরকারীরা। এমবাপের স্পট কিক ডানদিকে ঝাঁপিয়ে প্রতিহত করেন মন্টপেলিয়ের গোলরক্ষক বেঞ্জামিন লেকোমতে। কিন্তু তিনি শট নেয়ার আগেই লাইন ছেড়ে এগিয়ে এসেছিলেন। ফলে আরেকটি সুযোগ মেলে এমবাপের। কিন্তু এই দফাতেও পেনাল্টি কাজে লাগাতে পারেননি তিনি। তার জোরালো শট বাঁদিকে ঝাঁপিয়ে পড়া লেকোমতের হাতে লেগে বাধা পায় পোস্টে। ফিরতি বলেও হতাশ করেন এমবাপে। গোলপোস্ট ফাঁকা থাকলেও তার শট ছিল না লক্ষ্যেই। এরপর ২১ মিনিটে খোঁড়াতে খোঁড়াতে মাঠ ছাড়েন। ধারণা করা হচ্ছে, তিনি হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পেয়েছেন। গোলশূন্যভাবে শেষ হয় ম্যাচের প্রথমার্ধ। যদিও ৩৪ মিনিটে মেসি লক্ষ্যভেদ করেন। কিন্তু অফসাইডের কারণে তা বাতিল হয়। 
বিরতির পর মরক্কোন তারকা আশরাফি হাকিমি বল জালে পাঠালেও একই কারণে বাতিল হয়ে যায়। অবশেষে ম্যাচের ৫৫ মিনিটে শেষ হয় পিএসজির অপেক্ষা। হুগো একিতিকের পাসে জাল খুঁজে নেন ফ্যাবিয়ান রুইজ। স্প্যানিশ মিডফিল্ডার পরে অবদান রাখেন মেসির গোলে। ৭২ মিনিটে ব্যবধান বাড়ান আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। ৮৯ মিনিটে স্বাগতিক মন্টপেলিয়ের ব্যবধান কমানোর পর যোগ করা সময়ে ওয়ারেন জায়ারে-এমেরি পিএসজির স্কোরলাইন ৩-১ করেন। ম্যাচ শেষে পিএসজি কোচ ক্রিস্টোফার গাল্টিয়ের বলেন, সবমিলিয়ে আমরা ভালো খেলেছি।

দুইবার পেনাল্টি নেয়ার বিষয়টি প্রথমার্ধের আলোচিত ঘটনা ছিল। এছাড়া আমাদের শট পোস্টে লেগেছে। দুটি গোল বাতিল হয়েছে, দুটি ইনজুরির ঘটনা ঘটেছে। রামোসের ইনজুরিও ততটা গুরুতর মনে হচ্ছে না। ম্যাচে গোল করে আরেকবার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোকে পেছনে ফেলেছেন মেসি। পরশু রাতের গোলটি মেসির ইউরোপীয় ক্লাবের হয়ে ৬৯৭তম গোল। আর এতেই তিনি পেছনে ফেলেন সি আর সেভেনকে। রোনাল্ডো ইউরোপের বিভিন্ন ক্লাবে খেলে করেছেন ৬৯৬ গোল। পর্তুগিজ সুপারস্টার ইউরোপে থাকাকালীন রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে করেছিলেন ৪৫০ গোল, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে ১১৮, জুভেন্টাসের হয়ে ১০১ ও আরও করেন ২৭ গোল।

সবমিলিয়ে তার গোল সংখ্যা ছিল ৬৯৬। আর্জেন্টাইন তারকা মেসি বার্সিলোনার জার্সিতে করেন ৬৭২ গোল। এছাড়া বর্তমান ক্লাব পিএসজির জার্সিতে এখন পর্যন্ত করেছেন ২৫ গোল। এই রেকর্ড গড়তে রোনাল্ডোর চেয়ে মেসি ৮৪ ম্যাচ কম খেলেছেন। মেসির সামনে সুযোগ থাকছে নিজেকে আরও এগিয়ে নেওয়ার। কেননা ইউরোপীয় ক্লাব ছেড়ে রোনাল্ডো এশিয়ার দেশ সৌদি আরবের ক্লাবে পাড়ি দেওয়ায় আপাতত মেসিকে টপকানোর সুযোগ নেই তার।

×