ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১

সাকিবের ৪ লাখ লাইকের পোস্টে ২ লাখের বেশি ‘হা হা’ রিয়েক্ট

প্রকাশিত: ১৩:০০, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩

সাকিবের ৪ লাখ লাইকের পোস্টে ২ লাখের বেশি ‘হা হা’ রিয়েক্ট

সাকিব আল হাসান।

ওয়ানডে বিশ্বকাপে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। কিন্তু দলে তামিম ইকবালের জয়গা না হওয়ার ইস্যুতে বিতর্কিত হচ্ছেন এই অলরাউন্ডার। 

বিশ্বকাপ খেলতে গতকাল বুধবার বিকেলে ভারতে উড়াল দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। আর সেখানে গিয়ে রাতে বিশ্বকাপ খেলা নিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন সাকিব। তবে সেই পোস্টে চার লাখ লাইকের মধ্যে দুই লাখের বেশি মানুষ ‘হা হা’ রিয়েক্ট দিয়েছে। 

ফেসবুকে দেওয়া পোস্টে সাকিব লেখেন, ‘বাংলাদেশ ক্রিকেট টিমের সাথে আজ রওনা দিচ্ছি বিশ্বকাপ খেলতে। সাথে আছে আপনাদের ভালোবাসা আর সাপোর্ট। চেষ্টা থাকবে ভালো খেলার, বাংলাদেশের লাল-সবুজকে সবার উপরে তুলে ধরার। দোয়া করবেন।’ সেই সঙ্গে ফ্যান টি-শার্ট দেওয়ার জন্য মোবাইল ফোনের একটি সিম অপারেটর প্রতিষ্ঠানের নাম উল্লেখ করেছেন তিনি। আর এটিকে বিজ্ঞাপন বলে মনে করছেন নেটিজেনরা।  

এদিকে, পোস্টে দেড় লাখের বেশি মন্তব্যের মধ্যে বেশিরভাগই নেতিবাচক মন্তব্য দেখা গেছে। আব্দুল্লাহ আল তাহসিন লেখেন, ‘সব জাগায় বিজ্ঞাপন বাহ সাকিব ভাই।’ মুন্নাফ রশিদ লেখেন, ‘দ্য ভিলেন।’ হামিদুর রহমান লেখেন, ‘ক্রিকেটার হিসেবেই টাকা ছাড়া কিচ্ছু বুঝেন না। আপনি এমপি, মন্ত্রী হলে কি করবেন আল্লাহ জানে।’ মোস্তাফিজ মোরতাজ লেখেন,‘এখানেও বিজ্ঞাপন ডুকিয়ে দিলেন।’

জনপ্রিয় মুখ প্রিসিলা তার মন্তব্যে লেখেন, ‘আপনাকে অনেক ভালোবাসি, মিস করব তামিম ইকবালকে। ভীষণ বড় দায়িত্ব এখন আপনার মাথায়। তামিম ভাইয়ার সাথে কাজটা করার প্রক্রিয়াটা একধম সঠিক ছিল না। তামিম ইকবাল পাশে থাকলে আপনার জন্য অনেক বিষয় সহজ হতো।’

বেসরকারি এক টেলিভিশনে বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রাতে প্রচার হওয়া এক সাক্ষাৎকারে নিজের মতো করে তামিম ইকবালের বিষয়ে নানা ধরণের মন্তব্য করেন সাকিব।

তামিমের আচরণকে বাচ্চাদের মতো উল্লেখ করে সাকিব বলেন, ‘যদি তিন-চারে খেলে, ব্যাটিংয়ে না নামে, খুব একটা কি সমস্যা হয়? এটা আসলে আমার কাছে মনে হয়, একদম বাচ্চা মানুষের মতো, আমার ব্যাট আমি খেলবো। আর কেউ খেলতে পারবে না। তার মানে আপনি নিজের নাম কামাবেন? টিমের চিন্তা করবেন না? যদি কেউ তাকে তিন-চারে খেলতে বলেও থাকে তাতে দোষের কিছু দেখছিনা আমি। এমন তো না যে তাকে প্রস্তাবই দেওয়া যাবে না।’

দলে সুযোগ পাওয়ার নানা উপায়ের বিষয়ে তিনি বলেন, দলে জায়গা পেতে অনেক প্রসেসের ভেতরে দিয়ে যেতে হয়। শুধু মাঠের পারফর্মেন্সই নায়, মাঠের বাইরের, ড্রেসিং রুমের, টিম মিটিং, এটমোসফেয়ারসহ অনেক কিছু মিলেয়ে আসলে টিমটা করতে হয়। কিন্তু, এসব বিষয়ে আগের মতো এখন আর আমি বেশি ইনভলভ হইনা। 

এর আগে, দল থেকে বাদ দেওয়ার ব্যাপারে তামিম ইকবাল আকারে-ইঙ্গিতে অনেকটাই বুঝিয়ে দিলেন তার বিশ্বকাপ দলে না থাকার পেছনে ছিল গভীর ষড়যন্ত্র। বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে এক ভিডিও বার্তায় বিস্তারিত তুলে ধরেন তামিম ইকবাল।

ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, ‘আমি নোংরামির মধ্যে থাকতে চাইনি বলেই সরে এসেছি। আমি কোনো সময়, কোনো মুহূর্তে কাউকেও বলিনি যে আমি পাঁচ ম্যাচের বেশি খেলতে পারবো না। এটা একটা মিথ্যা কথা ভুল কথা।  গত ৩-৪ মাস আমার সঙ্গে যা ঘটেছে তা সব পরিকল্পিত।’

এম হাসান

×