ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১

অভিনয় ছেড়ে ধর্মকর্মে

আনন্দকণ্ঠ রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০০:৩৫, ১ জুন ২০২৩

অভিনয় ছেড়ে ধর্মকর্মে

সুমাইয়া জাফর সুজানা, আমব্রিন, এ্যানি খান ও ঈশিকা খান

সুজানা : জনপ্রিয় মডেল-অভিনেত্রী সুমাইয়া জাফর সুজানা। ২০০১ সালে মডেলিংয়ের মাধ্যমে মিডিয়ায় যাত্রা শুরু করেন তিনি। ২০০৩ সালে তিনি লাক্স ফটোসুন্দরী খেতাব পান। ক্যারিয়ারে অসংখ্য নাটক, বিজ্ঞাপনচিত্র আর মিউজিক ভিডিওতে কাজ করে ব্যাপক তারকাখ্যাতি পান তিনি। এরমধ্যে থেকেই ধর্মে-কর্মে মনোনিবেশ করেন। বিশেষ করে ২০১৮ সালে ওমরাহ্ হজ পালন করতে গিয়ে তার পুরো দৃষ্টিভঙ্গিই বদলে যায়। তাই ২০২০ সালের মাঝামাঝিতে শোবিজ জগৎ থেকে নিজেকে আড়ালে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। সে সময় গণমাধ্যমকে সুজানা বলেন, ‘কুরআন, হাদিস থেকে যা শিখেছি সেখান থেকে আমি যে শান্তি পেয়েছি, তা আগে কখনই পাইনি। আমার মন থেকে মিডিয়ায় কাজের ইচ্ছে নষ্ট হয়ে গেছে। তাই আমি মিডিয়াতে আর কাজ করব না।’ 

আমব্রিন : ২০০৭ সালে লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতার মাধ্যমে আমব্রিনের শোবিজে যাত্রা শুরু হয়েছিল। এরপর মডেলিং, অভিনয় ও উপস্থাপনা দিয়ে বেশ সাড়া জাগান। বিশেষ করে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) উপস্থাপনা করে আলোচিত হন তিনি। ২০১৭ সালের ৪ নভেম্বর কানাডাপ্রবাসী তৌসিফ আহসান চৌধুরীকে বিয়ে করেন তিনি। ২০১৮ সালের ২৩ জুন কন্যাসন্তানের জন্ম দেন তিনি। কন্যাসন্তানের মা হওয়ার পরই তার জীবনে পরিবর্তন আসে। সে সময় মেয়ে আমায়াকে নিয়ে আমব্রিন ফেসবুকে একটি ছবি শেয়ার করে লিখেন, ‘ওর মতো একটা ফেরেশতা দিয়ে আল্লাহ আমাকে ধন্য করেছেন। ও আমাকে একজন ভালো মানুষ বানিয়েছে।

আমার সেরা সংস্করণ। দয়ালু, ধৈর্যশীল এবং কৃতজ্ঞ। আলহামদুলিল্লাহ। আমায়ার জন্যই শোবিজ দুনিয়া ছেড়েছেন উল্লেখ করে তিনি লিখেন, ‘মাত্র একদিন বয়সে যখন আমায়া জীবন নিয়ে লড়ছিল, তখন আমি আল্লাহর কাছে ওয়াদা করেছিলাম, আল্লাহ যেন আমার মেয়েকে সুস্থ করে দেন। বিনিময়ে আমি শোবিজ ছেড়ে দেব। নিয়মিত হিজাব এবং পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ব। হারাম কিছু করব না। আল্লাহ আমায়াকে সুস্থ করে আমার কাছে ফিরিয়ে দিয়েছেন। আমিও আল্লাহর কাছে ওয়াদা পালনে মনোযোগী হয়েছি।’

এ্যানি খান : মডেল ও অভিনেত্রী এ্যানি খানও ধর্ম-কর্মে মনোনিবেশ করার কথা বলে শোবিজ ছাড়েন। ২০১৮ সালের নভেম্বরে ওমরাহ পালনের পর থেকেই অভিনয়ে অনিয়মিত হয়ে পড়েন তিনি। তবে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে করোনার সময়ে ফেসবুক লাইভে এসে শোবিজ ছাড়ার ঘোষণা দেন এক সময়ের জনপ্রিয় এ অভিনেত্রী। এ্যানি জানান, একেবারেই মিডিয়ার কাজ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, কারও দ্বারা প্রভাবিত হয়ে এমন সিদ্ধান্ত নেইনি। এ সিদ্ধান্ত আমার ব্যক্তিগত। কারণ মৃত্যুর পর আমার হিসাব আমাকেই দিতে হবে। তাই আত্মউপলব্ধি থেকেই আমি শোবিজ থেকে সরে যাচ্ছি। আমি একজন মুসলিম। মুসলিম হিসেবে ধর্মীয় বিষয়গুলো যতই জানার চেষ্টা করছি ততই ধর্মবিষয়ক জ্ঞান বাড়ছে। এতে করে অনেক কিছুতে বিধিনিষেধ চলে আসছে। মানুষ মাত্রই পরিবর্তনশীল। আমার মধ্যেও সবকিছু নিয়ে পরিবর্তন এসেছে। ধর্ম নিয়ে সারাক্ষণ চর্চা করে অন্যরকম এক শান্তি পাচ্ছি।’

ঈশিকা খান : ছোট পর্দার জনপ্রিয় মুখ ঈশিকা খান। অমিতাভ রেজার নির্দেশনায় প্রথম ‘রবি’র একটি বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করেন তিনি। এরপর বিয়ের আগ পর্যন্ত উপস্থাপনা ও অভিনয়ে টানা কাজ করেছেন। ২০১৬ সালে বিয়ের পর স্বামীর ব্যবসাক্ষেত্র লন্ডনে থিতু হন এ গ্ল্যামারকন্যা। এরমধ্যে তিনিও ইসলামের পথে নিজেকে পুরোপুরি মনোনিবেশ করেন। যে কারণে অভিনয় জগতে না ফেরার সিদ্ধান্ত নেন। সে সময় জানান, সংসার ও ধর্ম নিয়েই ব্যস্ত থাকতে চান তিনি। ঈশিকা গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমি অভিনয়ে আর নিয়মিত হতে পারছি না। সে সময়টা এখন আর নেই। একেবারেই মিডিয়া ছেড়ে দিয়েছি। নিয়মিত ধর্ম-কর্ম পালনের চেষ্টা করছি। এদিকে বাচ্চারা বড় হচ্ছে, পড়াশোনা শুরু করছে। তাদেরকে ভালোভাবে মানুষ করতে হবে। বাচ্চাদের সময় দেওয়া এখন আমার প্রধান কাজ।’ জানা যায়, স্বামী-সন্তান নিয়ে বর্তমানে ব্রিটেনের দক্ষিণ লন্ডনের সাটন শহরে বসবাস করছেন ঈশিকা।

×