ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

জাতীয়

দেশে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মোট ২৬৪৬ মামলা, আসামি ৫৮৫১

অবশেষে তথ্য অধিকার আইনে তথ্য দিল পুলিশ

প্রকাশিত: ২৩:২৪, ১৮ মে ২০২২

অবশেষে তথ্য অধিকার আইনে তথ্য দিল পুলিশ

তপন বিশ্বাস ॥ তথ্য অধিকার আইনের আওতায় অবশেষে তথ্য দিল পুলিশ সদর দফতর। প্রদত্ত তথ্য মোতাবেক দেশে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মোট ২ হাজার ৬৪৬টি মামলা হয়েছে। এতে মোট আসামির সংখ্যা ৫ হাজার ৮৫১। এই মামলায় গ্রেফতার হয়েছে মোট ২ হাজার ৬০৭ জন। এই তথ্য পেতে প্রায় এক বছর সময় লেগেছে। পুলিশ সদর দফতরে তথ্য চেয়ে আবেদনের পর ব্যর্থ হয়ে অবশেষে তথ্য কমিশনে মামলা দায়ের করলে শুনানি শেষে কমিশন তথ্য সরবরাহের নির্দেশ দেয়। নির্দেশের প্রেক্ষিতে পুলিশ সদর দফতর আবেদনকারীকে তথ্য সরবরাহ করে। পুলিশ সদর দফতরের তথ্য মোতাবেক ২০১৮ সালের ৮ অক্টোবর থেকে ২০২১ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত মোট মামলা হয়েছে ২ হাজার ৬৪৬টি। এতে মোট আসামির সংখ্যা ৫ হাজার ৮৫১। এর মধ্যে ২০১৮ সালের ৮ অক্টোবর থেকে একই বছর ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত মোট মামলা হয়েছে ১৩৬টি এবং এতে আসামির সংখ্যা ৪৩৭। এর মধ্যে গ্রেফতার হয়েছে ১৩১ ব্যক্তি। ২০১৯ সালে মোট মামলা ৭৪৩, আসামির সংখ্যা ১৬১১। এতে গ্রেফতার হয়েছে ৭৯৩ ব্যক্তি। ২০২০ সালে মোট মামলা ১২২৯টি। এতে আসামি ২৭১৮ এবং গ্রেফতার হয়েছে ১২০৬ ব্যক্তি। ২০২১ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত মোট মামলা ২১২টি, আসামি ৪৩৩ এবং গ্রেফতার হয়েছে ১৬৭ ব্যক্তি। ২০২১ সালের ১ এপ্রিল থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত মোট মামলা ৩২৬টি, আসামির সংখ্যা ৬৫২ এবং এতে গ্রেফতার হয়েছে ৩১০ ব্যক্তি। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, যশোর নিবাসী সাদ হাম্মাাদি ২০২১ সালের ৭ জুন তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯ এর ৮(১) ধারা অনুসারে পুলিশ সদর দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিডিয়া এ্যান্ড পাবলিক রিলেশন অফিসার সোহেল রানা (এআইজি) বরাবর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কি পরিমাণ মামলা হয়েছে, এতে আসামি কত এবং কতজন গ্রেফতার হয়েছে তা বিস্তারিত জানতে আবেদন করেন। পরে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ সোহেল রানা পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত ডিআইজি (স্পেশাল ক্রাইম) বরাবর পত্র দিয়ে জানিয়ে দেন তথ্য অধিকার আইনে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তথ্য প্রদানের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। কিন্তু তখন তথ্য সরবরা করা হয় না। এদিকে যথা সময়ে তথ্য সরবরাহ না করায় আবেদনকারী আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ বরাবর আপীল করেন। এই আবেদনের পর দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ সোহেল রানা পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত ডিআইজি (স্পেশাল ক্রাইম), পুনরায় তথ্য প্রদানের জন্য পত্র প্রেরণ করেন। এর পরও তথ্য না পাওয়ায় অভিযোগকারী ২০২১ সালের ৮ আগস্ট তথ্য কমিশনে অভিযোগ দায়ের করেন। (অভিযোগ নং-১২৬/২০২১)। তথ্য কমিশনের অনুষ্ঠিত সভায় অভিযোগটি পর্যালোচন করে শুনানির জন্য গ্রহণ করা হয়। অভিযোগের বিষয় ২০২১ সালের ৬ ডিসেম্বর নির্ধারণ করে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে শুনানি গ্রহণের জন্য অভিযোগকারী ও দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এর প্রতি সমন জারি করা হয়।