সোমবার ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা

দেশজুড়ে মজুদদারদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত

  • প্রায় ১৫ হাজার লিটার ভোজ্যতেল জব্দ ॥ দুই রোহিঙ্গা আটক

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ দেশের বিভিন্ন স্থানে ভোজ্যতেল মজুদদারদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। শুক্র ও শনিবার জাতীয় ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদফতরের অভিযানে প্রায় ১৫ হাজার লিটার সয়াবিন তেল উদ্ধার করা হয়। এরপর উদ্ধারকৃত সয়াবিন তেল ন্যায্যমূল্যে গ্রাহকদের কাছে বিক্রির নির্দেশ দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। পাশাপাশি অবৈধভাবে তেল মজুদের দায়ে দোকানি ও ব্যবসায়ীদের জরিমানা করা হয়। অসাধু ব্যবসায়ীরা দেশে ভোজ্যতেলের কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টির জন্য এই বিপুল পরিমাণ তেল মজুদ করেছিল বলে মনে করা হচ্ছে। উদ্ধারকৃত তেলের মধ্যে নাটোরে ৬৫০০ লিটার, বাউফলে ৬৭০০ লিটার, ফরিদপুরে ৪৮০০ লিটার, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১২শ’ লিটার, লালমোহনে ৩০০ লিটার ও সিরাজগঞ্জে ৯৫ লিটার রয়েছে। অবৈধ সয়াবিন তেল, চাল ও ডালসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় পণ্য মজুদের দায়ে দুই রোহিঙ্গাকে আটক করা হয়েছে। খবর স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতাদের।

নিজস্ব সংবাদদাতা নাটোর থেকে জানান, জেলার বড়াইগ্রামে মজুদ করে বোতলজাত সয়াবিন খোলা সয়াবিন হিসেবে বিক্রয় করায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর বাজারের বিভিন্ন দোকানে অভিযান চালিয়ে ৬ হাজার ছয়শ’ লিটার তেল জব্দ এবং ৩ লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছে। শুক্রবার রাত ৮ টায় উপজেলার জোনাইল বাজারে এ অভিযান চালায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর ও র‌্যাব-৫ এর সদস্যরা।

র‌্যাব-৫ এর সিপিসি-২ নাটোর ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফরহাদ হোসেন জানান, উপজেলার জোনাইল বাজারের ডিপার্টমেন্টাল স্টোর ও দোকানের গুদামে অভিযান চালিয়ে ৬,৬০০ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করা হয়। পরে দোকান মালিকদের ৩ লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর নাটোরের সহকারী পরিচালক মেহেদী হাসান তানভীর।

ফরিদপুর ॥ গোডাউনে মজুদ চার হাজার বোতলজাত ও ৮০০ লিটার খোলা সয়াবিন তেল উদ্ধার করা হয়েছে। তেল গুদামজাত করার দায়ে ওই ব্যবসায়ীকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। একই সঙ্গে ১০ দিনের জন্য ওই প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ করে দেয়া হয়। শনিবার বেলা ১১টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত শহরের শরীয়তুল্লাহ বাজার ও শোভারামপুর এলাকায় এ অভিযান চালানো হয়। পরে জব্দ করা তেল গায়ের দামে এলাকাবাসীর মধ্যে বিক্রি করা হয়। ফরিদপুর সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) লিটন ঢালী, জেলা ভোক্তা অধিকার অধিদফতরের সহকারী পরিচালক সোহেল শেখ, জেলা বিপণন কর্মকর্তা সাহাদাত হোসেন ও জেলা স্যানিটারি পরিদর্শক বজলুর রশিদের তত্ত্বাবধানে এ অভিযান চালানো হয়।

ফরিদপুর শহরের রঘুনন্দনপুর হাউজিং এলাকার বাসিন্দা সুশীল পোদ্দারের ছেলে কানাইলাল পোদ্দারের (৪৫) শরীয়তুল্লা বাজারে সুবল স্টোর নামে একটি মুদি দোকান আছে। শোভারামপুর এলাকার জনৈক কালীপদ সাহার বাড়ি ভাড়া নিয়ে তিনি সেটি গোডাউন হিসেবে ব্যবহার করতেন।

বাউফল ॥ বাউফল পৌর শহরের বাজার রোড এলাকায় সয়াবিন তেল মজুদ, মূল্য তালিকা ও লাইসেন্স না থাকার অভিযোগে ৩টি মুদি ও মনোহারি দোকানে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯/৪৫ ধারায় ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে ৩ ব্যবসায়ীকে মোট ৬১ হাজার টাকা জরিমানা করেছে। এর মধ্যে লোকনাথ ভা-ারে ৬ হাজার ৭শ’ লিটার সয়াবিন তেল মজুদ করার অভিযোগে ৫০ হাজার, গৌতম সাহার দোকানে মূল্যতালিকা ও লাইসেন্স না থাকার অপরাধে ৫ হাজার ও মা কালী ভা-ারে একই অপরাধে ৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ॥ জেলায় ভোজ্যতেলের দোকান এবং গুদামে অভিযান চালিয়ে প্রায় ১২শ’ লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল জব্দ করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। শনিবার দুপুরে শহরের আনন্দবাজারের নিয়ামত স্টোরে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় অবৈধভাবে সয়াবিন তেল মজুদের দায়ে প্রতিষ্ঠানটির মালিক নিয়ামত উল্লাহকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা শেষে জব্দ করা প্রতি পাঁচ লিটার সয়াবিন তেল ৭৬০ টাকা দরে উপস্থিত ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করা হয়।

লালমোহন, ভোলা ॥ লালমোহনে রূপচাঁদা সয়াবিন তেলের ডিলারের কাছ থেকে প্রায় ৩০০ লিটার তেল উদ্ধার করে ন্যায্যমূল্যে ভোক্তাদের কাছে বিক্রি করা হয়েছে। শনিবার ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের অভিযানে পৌর শহরের উত্তর বাজারের একটি গোডাউন থেকে এসব তেল উদ্ধার করা হয়। ডিলার মোঃ ফয়সালের দাবি, এসব তেল বিক্রি হচ্ছিল না। এরপর ডিলার ফয়সালকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের ভোলার সহকারী পরিচালক মোঃ মাহমুদুল হাসান।

রাজশাহী ॥ মহানগরীতে অভিযান চালিয়ে অবৈধভাবে মজুদ করা ৯৫ লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল জব্দ করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। শনিবার দুপুরে মহানগরীর পাঠানপাড়া মুক্তমঞ্চ সংলগ্ন উম্মেদ আলী এ্যান্ড সন্স নামের একটি কনফেকশনারির দোকানে অভিযান চালান জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের কর্মকর্তারা। এ সময় দোকানটির ডিসপ্লেতে কোন ভোজ্য তেল পাওয়া না গেলেও তাদের গোডাউনে এক ও দুই লিটারের মোট ৯৫ লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল খুঁজে পাওয়া যায়। তেলগুলো জব্দ করার পর তা স্থানীয় ভোক্তাদের মাঝে বোতলের গায়ে লেখা দামে তাৎক্ষণিক বিক্রির ব্যবস্থা করা হয়। এছাড়া অবৈধ মজুদের দায়ে দোকানি রমজান আলীকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অপরদিকে দুুপুরে নগরীর তেরখাদিয়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে সানোয়ার ভ্যারাইটিজ স্টোর থেকে ৪৫ লিটার মজুদকৃত তেল উদ্ধার করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের কর্মকর্তারা। একই সঙ্গে এই দোকানের মালিককে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

উখিয়া, কক্সবাজার ॥ অবৈধভাবে সয়াবিন তেল, চাল, ডাল ও চিনি মজুদ করার সময় ২ রোহিঙ্গাকে আটক করেছে ১৪ এপিবিএন পুলিশের সদস্যরা। উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী ভোজ্যতেলের দাম বেড়ে যাওয়ায় ক্যাম্পে ঘুরে ঘুরে এসব কিনে মজুদ করছিল। শুক্রবার গভীর রাতে ইন্টেলিজেন্স তথ্যের ভিত্তিতে ৪ নং ক্যাম্পের ২১/ই ব্লক থেকে চাল, ডাল, চিনি, তেলসহ তাদের আটক করা হয়।

ধৃত রোহিঙ্গারা হচ্ছে- ৪নং ক্যাম্পের ২১/ই ব্লকের ফজল আহমদের পুত্র নূর আহমেদ ও রহিমুল্লাহর পুত্র রহমতুল্লাহ। উদ্ধারকৃত পণ্যের মধ্যে রয়েছে, ৫শ’ কেজি চাউল, ৩শ’ কেজি চিনি, ১শ’ কেজি ডাল ও ১৪০ লিটার সয়াবিন তেল।

এছাড়া বাগেরহাট, গফরগাঁও ও সোনাইমুড়িতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে কিছু পরিমাণ সয়াবিন তেল উদ্ধার করা হয়।

শীর্ষ সংবাদ: