সোমবার ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ নভেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

হার দিয়ে শুরু বাংলাদেশের

  • স্কটল্যান্ডের জয় ৬ রানে ॥ মালিঙ্গাকে ছাড়িয়ে টি২০তে সর্বাধিক উইকেট সাকিবের

মোঃ মামুন রশীদ ॥ রবিবার রাতে ওমানে টি২০ বিশ্বকাপের প্রথম দিনে লজ্জার হারে মিশন শুরু হয়েছে বাংলাদেশের। আগাম ঘোষণা দিয়েই বাংলাদেশকে ৬ রানে হারিয়ে শুভ সূচনা করেছে আইসিসির সহযোগী সদস্য দেশ স্কটল্যান্ড। অলরাউন্ডার ক্রিস গ্রিভস একাই টেস্ট খেলুড়ে অভিজ্ঞ বাংলাদেশ দলকে হারিয়ে দিয়েছেন। ২৮ বলে বিধ্বংসী ৪৫ রানের পর বল হাতে সাকিব-মুশফিকের উইকেট নিয়েছেন তিনি। ২০১২ সালে দ্য হেগে একবারই দু’দলের লড়াই হয়েছে, সেবারও ৩৪ রানে হেরেছিল বাংলাদেশ। ৯ বছর পরও ফল পাল্টাতে পারেনি মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের দল। এই ম্যাচের আগে বাংলাদেশ দলকে ওমান কিংবা পাপুয়া নিউগিনির সমমানের দল দাবি করেছিলেন স্কট কোচ শেন বার্জার। সেটিই প্রমাণ হয়েছে। প্রাথমিক রাউন্ডে ‘বি’ গ্রুপে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে মাসকাটের আল আমিরাত ক্রিকেট গ্রাউন্ডে টস হেরে আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৪০ রান তোলে স্কটল্যান্ড। ২ উইকেট নিয়ে সাকিব আল হাসান আন্তর্জাতিক টি২০ ক্রিকেটে সর্বাধিক ১০৮ উইকেট শিকারের রেকর্ড গড়েন। টি২০ ক্রিকেটের সেরা বোলার ছিলেন শ্রীলঙ্কার পেসার লাসিথ মালিঙ্গা (৮৪ ম্যাচে ১০৭ উইকেট)। এদিন বিশ্বের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ৩ ফরমেট মিলিয়ে ৬০০ উইকেট ও ১২ হাজার রানের রেকর্ডও গড়েন সাকিব। পরে ৭ উইকেটে ১৩৪ রানের বেশি করতে পারেনি বাংলাদেশ। সাকিবের দারুণ অর্জনের ম্যাচে ৬ রানের লজ্জাজনক হার বরণ করতে হয়।

টস জিতে আগে ফিল্ডিংয়ে নামে বাংলাদেশ। নিয়মিত ওপেনার নাইম শেখের পরিবর্তে সৌম্য সরকার ও প্রথম টি২০ বিশ্বকাপ খেলতে নামেন লিটন দাস, আফিফ হোসেন, শেখ মেহেদি ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতে তেমন সুবিধা করতে পারেননি স্কটিশ ওপেনাররা। তৃতীয় ওভারে প্রথম উইকেট তুলে নেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। তিনি বোল্ড করে দেন অধিনায়ক কাইল কোয়েটজারকে (০)। তবে ৩ ওভারে মাত্র ৭ রান তোলা স্কটিশরা পরের ৩ ওভারে তুলে নেয় ৩২ রান। মেডেন দিয়ে শুরু করা মুস্তাফিজ ষষ্ঠ ওভারে ১৩ রান দেন। ফলে পাওয়ার প্লের ৬ ওভার শেষে ১ উইকেটে ৩৯ রান নিয়ে শুরুটা ভালই পেয়েছে স্কটল্যান্ড। জর্জ মুনসি ও উইকেটরক্ষক ম্যাথু ক্রস দারুণ ব্যাটিং করছিলেন। তবে পাওয়ার প্লের পর স্পিন আক্রমণে আবার থমকে যায় তারা। সপ্তম ওভারে ৫ রান দেন বাঁহাতি স্পিনার সাকিব আর অষ্টম ওভারে জোড়া আঘাত হানেন অফস্পিনার শেখ মেহেদি। ওভারের দ্বিতীয় বলে ক্রস কাটা পড়েন এলবিডব্লিউ ও চতুর্থ বলে মুনসিকে বোল্ড করে দেন তিনি। নিজের প্রথম বিশ্বকাপ খেলতে নেমেই ২ উইকেট নেন তিনি এক ওভারে। ক্রস ১৭ বলে ১১ ও মুনসি ২৩ বলে ২ চার, ২ ছক্কায় ২৯ রান করেছিলেন। এরপর স্কটিশদের রান তোলার গতি শ্লথ হয়ে যায়। এরপর দুই অভিজ্ঞ রিচি বেরিংটন ও কালাম ম্যাকলিওড লড়াই শুরু করেন।

১১তম ওভারে এসে বেরিংটন (২) ও মাইকেল লিয়াস্ককে (০) সাজঘরে ফিরিয়ে মালিঙ্গাকে ছাড়িয়ে টি২০ ক্রিকেটে বিশ্বের সর্বাধিক ১০৮ উইকেটের মালিক হন সাকিব। এছাড়া ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ১২ হাজার রানের পাশাপাশি ৬০০ উইকেটও হয়ে যায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। পরে শেখ মেহেদি ম্যাকলিওডকে (৫) বোল্ড করে দিলে ১২ ওভারে ৬ উইকেটে মাত্র ৫৫ রান তুলে বিপর্যয়ে নিমজ্জিত হয় স্কটল্যান্ড। পরের গ্রিভস একাই এগিয়ে নেন দলকে। তার ২৮ বলে ৪৫ রানের বিস্ফোরক ইনিংসের যবনিকা ঘটে শেষ ওভারে মুস্তাফিজের স্লোয়ারে ক্যাচ দিয়ে। পরের বলেও উইকেট তুলে নেন তিনি। ততক্ষণে ভাল একটা সংগ্রহ পেয়ে গেছে স্কটল্যান্ড। আর পঞ্চম বলে মুস্তাফিজ ছক্কা হজম করলে ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৪০ রানের লড়াকু সংগ্রহ পায় স্কটল্যান্ড। শেষ ৫ ওভারে ২ উইকেটে ৫৩ রান যোগ করে তারা। ৪ ওভার করে বোলিংয়ে সাকিব সবচেয়ে মিতব্যয়িতা দেখিয়ে ১৭ রানে দুটি ও মেহেদি ১৯ রানে ৩ উইকেট নেন। মুস্তাফিজ ২ উইকেট নিতে খরচা করেন ৩২ রান। জবাব দিতে নেমে শুরুতেই হোঁচট খায় বাংলাদেশ। দলীয় ১৮ রানের মধ্যেই সাজঘরে ফেরেন সৌম্য (৫) ও লিটন (৫)। এরপর টানা সপ্তম বিশ্বকাপ খেলতে নামা সাকিব-মুশফিকুর রহিম হাল ধরেন। তবে শ্লথ ব্যাটিংয়ে পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে স্কোরবোর্ডে জমা হয় ২ উইকেটে মাত্র ২৫ রান। প্রথম ৮ ওভারে মাত্র দুই বাউন্ডারি আসে বাংলাদেশের ইনিংসে। নবম ওভারের চতুর্থ ও পঞ্চম বলে মুশফিক জোড়া ছক্কা হাঁকান মাইকেল লিয়াস্ককে। ফলে ৩৫ বল পর বাউন্ডারি খরা কাটে। ওই ওভারের ১৮ রানে আবার কক্ষপথে ফেরে বাংলাদেশ। তবে ৪৭ রানের তৃতীয় উইকেট জুটি ভেঙ্গে যায় সাকিব ২৮ বলে ২০ রানে গ্রিভসের শিকার হলে। নিজের পরের ওভারেই আবার মুশফিককে শিকার করেন তিনি। ৩৬ বলে ১ চার, ২ ছক্কায় ৩৮ রানে মুশফিক সাজঘরে ফিরলে জয়ের আশা ফিকে হয়। আফিফও ১১ বলে ১৮ ও নুরুল হাসান সোহান ৩ বলে ২ রান করে বিদায় নিলে হারের শঙ্কা তীব্র হয়। মাহমুদুল্লাহও ২২ বলে ১ চার, ১ ছক্কায় ২৩ রানে সাজঘরে ফেরেন। শেষ ওভারে ২৪ রান প্রয়োজন পড়ে বাংলাদেশের। সাফিয়ান শরীফকে পঞ্চম বলে চার এবং চতুর্থ বলে ছক্কা হাঁকালেও শেষ দুই বলে ১২ রান তুলতে পারেননি মেহেদি। তিনি ৫ বলে ১ চার, ১ ছক্কায় ১৩ রানে অপরাজিত থাকেন। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৩৪ রানে শেষ হয় বাংলাদেশের ইনিংস। লজ্জার হারে বিশ্বকাপ শুরু করেন মাহমুদুল্লাহরা।

স্কোর ॥ স্কটল্যান্ড ইনিংস- ১৪০/৯; ২০ ওভার (গ্রিভস ৪৫, মুনসি ২৯, ওয়াট ২২; মেহেদি ৩/১৯, সাকিব ২/১৭, মুস্তাফিজ ২/৩২)।

বাংলাদেশ ইনিংস- ১৩৪/৭; ২০ ওভার (মুশফিক ৩৮, মাহমুদুল্লাহ ২৩, সাকিব ২০, আফিফ ১৮; হুইল ৩/২৪, গ্রিভস ২/১৯)।

ফল ॥ স্কটল্যান্ড ৬ রানে জয়ী।

ম্যাচসেরা ॥ ক্রিস গ্রিভস (স্কটল্যান্ড)।

শীর্ষ সংবাদ:
দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে         ব্যাটিং ব্যর্থতায় ম্লান বোলিং সাফল্য         মিল্কি ওয়ের প্রথম ‘পালক’         সরকারী কাস্টডিতে নেই খালেদা, তিনি মুক্ত         ঢাকায় বিশ্ব শান্তি সম্মেলন ৪ ডিসেম্বর শুরু         ওমিক্রন প্রতিরোধে সতর্ক অবস্থায় সারাদেশ         সাদা পোশাকে দেশে সবার ওপরে মুশফিক         সাগরে জলদস্যুতায় যাবজ্জীবন দন্ড         গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন, ৪১ বছর পূর্তির আয়োজন         কুয়েতে পাপুলের সাত বছরের কারাদন্ড         পাকি প্রেম দূরে রাখুন         বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ তৈরিতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ         ‘মোকাবেলা করে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে ’         তৃতীয় ধাপের সহিংসতাহীন নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে দাবি ইসির         করোনা : গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ৩         করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সতর্কবার্তা         পরিবহন সেক্টর কার নিয়ন্ত্রণে : জি এম কাদের         সংসদে নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন আনা হচ্ছে শিগগিরই ॥ আইনমন্ত্রী         বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী সৌদির ৩০ কোম্পানি         আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে নগর পরিবহন চালু সম্ভব নয় : মেয়র তাপস