ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯

শেরপুরে কৃষক খুন

প্রকাশিত: ২১:২৪, ২৯ অক্টোবর ২০২০

শেরপুরে কৃষক খুন

নিজস্ব সংবাদদাতা, শেরপুর, ২৮ অক্টোবর ॥ শ্রীবরদীতে গোয়ালঘরে প্রবেশ করে আজগর আলী (৬০) নামে এক কৃষককে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার ভোরে পৌরশহরের চককাউরিয়া পূর্বপাড়ায় ওই ঘটনা ঘটে। নিহত আজগর আলী স্থানীয় মৃত আফছর আলীর ছেলে। জানা যায়, আজগর আলীর ৪ ছেলে ২ মেয়ের মধ্যে ৫ জনই ঢাকায় গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে চাকরি করে। ছোট মেয়ে রাজিয়া খাতুন পৌরশহরের আইডিয়াল স্কুলের অষ্টম শ্রেণীতে পড়াশোনা করে। সম্প্রতি মোবাইল ফোনে এক ছেলের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই সূত্র ধরে প্রায় ১৫দিন আগে ওই ছেলে তাদের বাড়িতে এলে তার মা-বাবা মেনে নেয়নি। ৩ দিন আগে রাজিয়া ঢাকায় বোনের কাছে বেড়াতে যায়। এদিকে প্রতিদিনের মতো মঙ্গলবার রাতে রাজিয়ার বাবা আজগর আলী গোয়ালঘরে ঘুমিয়ে পড়ে। ভোরে দুর্বৃত্তরা ঘরে প্রবেশ করে ধারালো অস্ত্র দিয়ে মাথায় কুপিয়ে তাকে হত্যা করে। পরে তার স্ত্রী রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে আশপাশের লোকজনকে জানায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। নিহতের স্ত্রী মজিরন বেগম বলেন, আমগোর কোন শত্রু নাই। আমার মেয়ের সাথে যে ছেলে প্রেম করতে চাইছিল সেই ছেলে মঙ্গলবার দিনে ঢাকায় বাসায় গিয়ে সেখানে গ-গোল করেছে। রাতে বাড়িতে আইসা ভোরে আমার স্বামীরে কুপায়ে মারছে। আমি আমার স্বামী হত্যার বিচার চাই। দিনাজপুরে চালক স্টাফ রিপোর্টার দিনাজপুর থেকে জানান ॥ যাত্রীবেশে অটোচালক মুক্তার হোসেনকে (৩০) খুন করে অটোরিক্সা নিয়ে পালিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত অটোচালক সদর উপজেলার ফাজিলপুর ইউনিয়নের হরিরামপুর গ্রামের খাইবার আলীর ছেলে। বুধবার সকাল ৮টার দিকে সদর উপজেলার ভাটিনাপুর গ্রামের একটি লিচু বাগান থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় অটোচালকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। কোতোয়ালি থানার ওসি মোজাফফর হোসেন জানান, মঙ্গলবার রাতের কোন এক সময়ে অটোচালক মুক্তার হোসেন দিনাজপুর শহর থেকে যাত্রী নিয়ে বাড়ি ফিরছিল। ভাটিনাপুর গ্রামে গভেশ্বরী নদীর পাড়ে পৌঁছুলে, যাত্রীবেশী দুর্বৃত্তরা কাঠের টুকরা দিয়ে মাথায় আঘাত করে অটো নিয়ে পালিয়ে যায়। বুধবার সকালে স্থানীয় লোকজন মৃতদেহটি দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। জামালপুরে গৃহবধূ নিজস্ব সংবাদদাতা জামালপুর থেকে জানান, বকশীগঞ্জ উপজেলায় স্বামীর বাড়ি থেকে বুধবার সকালে হাবিবা আক্তার স্মৃতি (২৫) নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ। বুধবার ভোরে উপজেলার সাধুরপাড়া ইউনিয়নের উত্তর ধাতুয়াকান্দা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে তার স্বামী আক্তার হোসেনকে আটক করেছে পুলিশ। ওই গৃহবধূ বকশীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের মালিরচর জিগাতলা গ্রামের মোঃ হাফিজলের মেয়ে। পুলিশ ও ওই গৃহবধূর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সাধুরপাড়া ইউনিয়নের উত্তর ধাতুয়াকান্দা গ্রামের মোনাহার হোসেনের ছেলে আক্তার হোসেন (৩২) পারিবারিক কলহের জের ধরে মাঝেমধ্যেই তার স্ত্রী দুই সন্তানের জননী হাবিবাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতেন। মঙ্গলবার গভীর রাতেও আক্তার হোসেন তার স্ত্রীকে মারধর করেন। বুধবার ভোরে ওই বাড়ির লোকজনরা হাবিবাকে নিজ ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে থাকতে দেখেন। ঘটনা জানতে পেরে বুধবার সকালে স্থানীয় কামালের বাত্তী তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তার লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। তার শরীরের বিভিন্নস্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এ ঘটনায় তার স্বামী আক্তার হোসেনকে আটক করেছে পুলিশ।