সোমবার ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ৩০ নভেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আবরার হত্যা মামলায় দুই পুলিশ সদস্যের সাক্ষ্যগ্রহণ

আবরার হত্যা মামলায় দুই পুলিশ সদস্যের সাক্ষ্যগ্রহণ

অনলাইন রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের(বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় দুই পুলিশ সদস্যের সাক্ষ্য গ্রহণ করেছেন আদালত। তারা হলেন পুলিশের উপপরিদর্শক রুহুল আমীন ও কনস্টেবল শহীদুল ইসলাম।

আজ বৃহস্পতিবার ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামানের আদালত তাদের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ২৮ অক্টোবর দিন ধার্য করেন।

সংশ্লিষ্ট আদালতের বেঞ্চ সহকারী শামসুদ্দিন এসব তথ্য জানান।

এর আগে গত ৬ অক্টোবর বাদী আবরারের বাবা বরকত উল্লাহর সাক্ষ্যগ্রহণের মধ্য দিয়ে এ মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ পর্ব শুরু হয়। এ নিয়ে ১৭ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে।

গত ১৫ সেপ্টেম্বর আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন আদালত। এর আগে, এ বছরের জানুয়ারিতে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট বিচারের জন্য মামলাটি ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে বদলির আদেশ দেন। এরপর মহানগর দায়রা জজ আদালত মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এ পাঠানোর আদেশ দেন।

২০১৯ সালের ১৩ নবেম্বর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পরিদর্শক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ওয়াহিদুজ্জামান ২৫ জনকে অভিযুক্ত করে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন।

অভিযোগপত্রের ২৫ জনের মধ্যে এজাহারভুক্ত ১৯ জন এবং এর বাইরে তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে আরও ৬ জনের জড়িত থাকার প্রাথমিক প্রমাণ পাওয়া গেছে বলে অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়। এজাহারভুক্ত ১৯ জনের মধ্যে ১৭ জন এবং এজাহারের বাইরে থাকা ৬ জনের মধ্যে ৫ জনসহ মোট ২২ আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পলাতক রয়েছেন ৩ জন। অভিযোগপত্রে ৬০ জনকে সাক্ষী করা হয়েছে এবং ২১টি আলামত ও ৮টি জব্দ তালিকা আদালতে জমা দেওয়া হয়েছে।

এজাহারে থাকা আসামিরা হলেন— মেহেদী হাসান রাসেল, অনিক সরকার, ইফতি মোশাররফ সকাল, মেহেদী হাসান রবিন, মেফতাহুল ইসলাম জিওন, মুনতাসির আলম জেমি, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির, মুজাহিদুর রহমান, মুহতাসিম ফুয়াদ, মনিরুজ্জামান মনির, আকাশ হোসেন, হোসেন মোহাম্মদ তোহা, মাজেদুল ইসলাম, শামীম বিল্লাহ, মোয়াজ আবু হুরায়রা, এএসএম নাজমুস সাদাত, মোর্শেদুজ্জামান জিসান ও এহতেশামুল রাব্বি তানিম।

এজাহারবহির্ভূত ৬ আসামি হলেন—ইশতিয়াক আহম্মেদ মুন্না, অমিত সাহা, মিজানুর রহমান ওরফে মিজান, শামসুল আরেফিন রাফাত, এসএম মাহমুদ সেতু ও মোস্তবা রাফিদ।

পলাতক তিন আসামি হলেন—মোর্শেদুজ্জামান জিসান, এহতেশামুল রাব্বি তানিম ও মোস্তবা রাফিদ। এদের মধ্যে প্রথম দুই জন এজাহারভুক্ত আসামি।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর রাতে আবরারকে তার কক্ষ থেকে ডেকে নিয়ে যান বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। তারা ২০১১ নম্বর কক্ষে নিয়ে গিয়ে আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করে। পরে রাত তিনটার দিকে শেরে বাংলা হলের সিঁড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ওই বছরের ৭ অক্টোবর রাজধানীর চকবাজার থানায় আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। পুলিশ পরে ২২ জনকে গ্রেফতার করে। এর মধ্যে আট জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এদের সবাই বুয়েট ছাত্রলীগের নেতাকর্মী।

আবরার বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি শেরে বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষে থাকতেন।

শীর্ষ সংবাদ:
সচল ২৫৪৯ শিল্প ॥ প্রণোদনা প্যাকেজে ঋণ         ঢাকা থেকে পায়রায় যাবে রেল         স্বাস্থ্যবিধি না মানায় করোনা পরিস্থিতির অবনতি ঘটছে ॥ স্বাস্থ্যমন্ত্রী         মাই ম্যান দিয়ে কমিটি করা যাবে না ॥ কাদের         আজ জাতীয় আয়কর দিবস         আগুনের সঙ্গে নিত্য বসবাস বস্তিবাসীদের         মৌলবাদের উত্থানের সঙ্গে জঙ্গী গোষ্ঠীও মাথা চাড়া দিচ্ছে         হাইকোর্টের রায়ের সার্টিফায়েড কপি প্রস্তুত         আলী যাকেরকে নিবেদিত গ্রুপ থিয়েটারের বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠান         মিয়ানমারের মানচিত্র থেকে মুছে ফেলা হয়েছে রোহিঙ্গাপল্লী         আগামী ১৬ জানুয়ারি দ্বিতীয় ধাপে ৫৭ পৌরসভায় ভোট         নিবন্ধনের অনুমতি পেল আরও ৫১ অনলাইন নিউজ পোর্টাল         দেশ রক্ষার জন্য নদী রক্ষা অপরিহার্য : তথ্যমন্ত্রী         নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সব প্রকল্প বাস্তবায়নের তাগিদ শিল্পমন্ত্রীর         আমরা বেপরোয়া হয়ে চলাফেরা করছি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী         ঋণ বিতরণে স্প্রেড নির্দেশনা মানেনি ১৪ ব্যাংক         করদাতাদের সময়মতো আয়কর প্রদানের আহ্বান রাষ্ট্রপতির         কৃষিতে প্রণোদনা বাস্তবায়ন ৪৭ শতাংশ         গ্রাম আদালত কার্যকর করলে কমবে মামলার জট : স্থানীয় সরকার মন্ত্রী         বাংলাদেশকে উন্নতির শিখরে নিয়ে যেতে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই : শিক্ষামন্ত্রী