সোমবার ৬ আশ্বিন ১৪২৭, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

গাইবান্ধার উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোর বেহাল অবস্থা

গাইবান্ধার উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোর বেহাল অবস্থা
  • গ্রামের দরিদ্র মানুষ চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত;###; জনবল ও অবকাঠামো সংকট

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাইবান্ধা ॥ নানা সমস্যা সংকটে গাইবান্ধা জেলার ইউনিয়ন পর্যায়ের সরকারি উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোর এখন বেহাল অবস্থা। ফলে গ্রামের দরিদ্র মানুষ চিকিৎসা সহায়তা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোতে কোন অবকাঠামো জনবল এবং চিকিৎসক না থাকায় মানুষ চিকিৎসা ক্ষেত্রে উপকৃত হচ্ছে না। কোন কোন ইউনিয়ন পরিষদ ভবন উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের জন্য কক্ষ বরাদ্দ রয়েছে। আবার কোথাও কোথাও এ সমস্ত উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের নিজস্ব অবকাঠামোও রয়েছে। কিন্তু চিকিৎসক বা জনবল না থাকায় স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত হচ্ছে না।

এতে বিশেষ করে জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের এলাকার মানুষ সমস্যায় পড়েছে। কেননা এসব এলাকার দরিদ্র মানুষ মূলত: সরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্রের বিনামূল্যে চিকিৎসা ও ওষুধপত্রের উপর নির্ভরশীল থাকে। কেননা যোগাযোগের অব্যবস্থার কারণে চরাঞ্চল থেকে উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে এসে দরিদ্র মানুষের পক্ষে দ্রুত চিকিৎসা গ্রহণ করা সম্ভব হয় না। উলে¬খ্য, জেলার ফুলছড়ি, সাঘাটা, সুন্দরগঞ্জ ও সদর উপজেলার ২২টি ইউনিয়নের ১৬৫টি চরাঞ্চলের নদীবেষ্টিত চরাঞ্চলভূক্ত ইউনিয়নের গ্রামগুলোর জন্য বর্তমানে কোন উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র নেই। এর আগে শুধুমাত্র সদর উপজেলার মোল¬ারচরে একটি উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র থাকলেও তা নদী ভাঙ্গনে বিলীন হয়ে গেছে। এরপর আর ওই ইউনিয়নে আর নতুন করে কোন স্বাস্থ্য ক্লিনিক নির্মাণ করা হয়নি। তবে ফুলছড়ির এরেন্ডাবাড়ি ইউনিয়নে উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র না থাকলেও একটি পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্র রয়েছে। সেখানে মা ও শিশু স্বাস্থ্যসেবা দেয়া হয়ে থাকে বলে জানা গেছে।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, জেলার ৭টি উপজেলার ৮২টি ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে রয়েছে ৮৪টি উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র। এসব উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের মধ্যে অবকাঠামো, জনবল রয়েছে ৩৫টিতে। বাকি ৪৮টিতে উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের কোন অবকাঠামো না থাকায় এসব উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা কার্যক্রম সঠিকভাবে চলছে না। সবচেয়ে বড় সংকট হচ্ছে চিকিৎসক নেই। এসব উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মেডিকেল অফিসারের পদ রয়েছে ৩৬টি। আর নবসৃষ্টি সহকারী সার্জনের পদ রয়েছে ৪৮টি। কিন্তু চিকিৎসক রয়েছে ১২টি কেন্দ্রে, বাকি ৭২টি উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসকের পদ রয়েছে। তবে এর মধ্যে ৮টি কেন্দ্রে মেডিকেল অফিসার রয়েছে, আর নবসৃষ্টি সহকারী সার্জন রয়েছে মাত্র ৪টি কেন্দ্রে। আর বাকি সবগুলো কেন্দ্রেই চিকিৎসক পদ শূন্য।

শীর্ষ সংবাদ:
করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে প্রধানমন্ত্রীর দুই অনুশাসন         ডাকসু ভিপি নুরের বিরুদ্ধে ঢাবি ছাত্রীর ধর্ষণ মামলা         বিজিবির ১৯১ জনের মুক্তিযোদ্ধা গেজেট বাতিল স্থগিত         দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখেই প্রস্তুতি নিচ্ছে জাতীয় পার্টি         সফটওয়্যার আপগ্রেড হলেই প্রাথমিক শিক্ষকদের উচ্চধাপে বেতন         তিতাসের ৮ কর্মকর্তা-কর্মচারী জামিনে মুক্ত         ঢাকা উত্তরের ৯টি ওয়ার্ড ডেঙ্গুর ঝুঁকিতে         ভ্যাকসিনের ট্রায়াল শুরুর বিষয়ে ২ দিনের মধ্যে চিঠি দেবে চীন         চাকরির নামে প্রতারণা, তিন প্রতিষ্ঠান থেকে গ্রেফতার ১৪         স্বাস্থ্যের গাড়িচালক আব্দুল মালেক ১৪ দিনের রিমান্ডে         শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে যা জানালেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব         করোনা ভাইরাসে আরও ৪০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত সাড়ে তিন লাখ ছাড়াল         বাংলাদেশ ও ভারতের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বহুমাত্রিক ॥ কাদের         ১৮ বছর পর মুক্তিযোদ্ধা হত্যা মামলায় দুই আসামীর ফাঁসি         ঢাকায় নির্মাণ হচ্ছে ১১১ তলা ‘বঙ্গবন্ধু ট্রাই টাওয়ার’         মানবপাচার ॥ নৃত্যশিল্পী ইভান ৭ দিনের রিমান্ডে         দুদকের মামলায় খালিদীর জামিন আপিলে বহাল         করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ের শঙ্কা বাংলাদেশে         ভিয়েতনাম-কাতার ফেরত ৮৩ শ্রমিককে মুক্তি দেওয়া নিয়ে রুল জারি