ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ১২ আগস্ট ২০২২, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

অপহরণের দুই মাসেও উদ্ধার হয়নি স্কুল ছাত্রী

প্রকাশিত: ০৩:৪৬, ২০ মার্চ ২০১৭

অপহরণের দুই মাসেও উদ্ধার হয়নি স্কুল ছাত্রী

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাইবান্ধা, ১৯ মার্চ ॥ গাইবান্ধা সদর উপজেলার পুরাতন বাদিয়াখালি উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী মাহামুদা আক্তার অপহরণের প্রায় দুই মাসেও উদ্ধার হয়নি। উপরন্তু ওই ছাত্রীর অভিভাবক ও মামলার বাদীকে জীবননাশের হুমকি দিচ্ছে আসামির লোকজন। এমতাবস্থায় তারা চরম নিরাপত্তাহীনতায় বসবাস করছেন। জানা গেছে, গাইবান্ধা সদর উপজেলার বাদিয়াখালি ইউনিয়নের রিফাইতপুর মধ্যপাড়া গ্রামের মজিদুল ইসলামের মেয়ে মাহামুদা আক্তার (১৩) পুরাতন বাদিয়াখালি উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীতে লেখাপড়া করে। স্কুলে যাতায়াতের পথে তাকে উত্যক্ত করত প্রতিবেশী রিফাইতপুর গ্রামের আব্দুর রহমানের বখাটে ছেলে মমিনুল ইসলাম। একপর্যায়ে বখাটে মমিনুল ও তার সহযোগীরা গত ২৯ জানুয়ারি বেলা ১১টায় স্কুলের গেট সংলগ্ন এলাকা থেকে মাহামুদা আক্তারকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে ঘটনা জানতে পেরে মাহামুদার অভিভাবকরা মেয়েকে ফেরত চাইলে বখাটে মমিনুলের পিতা আব্দুর রহমান ও পরিবারের লোকজন অপহৃত মাহামুদাকে ফেরত দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও নানাভাবে টালবাহানা করতে থাকে। পরে বাধ্য হয়ে মাহামুদার পিতা গাইবান্ধা সদর থানায় অভিযোগ করেন। এর প্রেক্ষিতে মমিনুলের দুই চাচা শহিদুল ও দুলাকে পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে বাদিয়াখালির ৬নং ওয়ার্ডের সদস্য শফি এর মধ্যস্থতায় অপহৃতা মাহামুদাকে ফেরত দেয়ার পুনরায় প্রতিশ্রুতি দিলে পুলিশ তাদের ছেড়ে দেয়। কিন্তু তারপরও মেয়েকে ফেরত না পেয়ে মজিদুল ইসলাম গত ২৬ ফেব্রুয়ারি মামলা করেন।
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২