ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

২০ লক্ষ টাকার ক্ষতি

গফরগাঁওয়ে রাতের আধারে দুষ্কৃতকারীদের বিষ প্রয়োগ করে মাছ নিধন 

নিজস্ব সংবাদদাতা, গফরগাঁও

প্রকাশিত: ১৫:৫১, ২৯ মার্চ ২০২৩; আপডেট: ১৫:৫৬, ২৯ মার্চ ২০২৩

গফরগাঁওয়ে রাতের আধারে দুষ্কৃতকারীদের বিষ প্রয়োগ করে মাছ নিধন 

মাছ নিধন 

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে যশরা ইউনিয়নে একটি মাছের ফিশারিতে বিষ প্রয়োগ করে দুর্বৃত্তরা প্রায় ২০ লক্ষ টাকার মাছ নিধন করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটে বুধবার রাত ১ টার দিকে উপজেলা বিহারী পাড়া গ্রামে মাহমুদুল হাসান জায়েদের ফিশারিতে। 

এ ঘটনায় বুধবার দুপুরে জায়েদ বাদি হয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগের পরপরই গফরগাঁও থানার ওসির নেতৃত্বে একদল পুলিশ বিষ প্রয়োগ করা ফিশারিটি পরিদর্শন করে।এলাকাবাসী, পুলিশ ও ভোক্তভোগী সূত্রে জানা যায়, বুধবার রাত ১ টার দিকে জায়েদ সেহেরি খাওয়ার জন্য ফিশারির কাছেই বাড়িতে যায়। সেহেরি খেয়ে বাড়ি থেকে রাত অনুমান ৪ টার দিকে ফিশারিতে আসে। এ সময় তিনি মাছ পানিতে ভাসতে ও লাফালাফি করতে দেখে চিৎকার শুরু করলে আশপাশ ও এলাকার লোকজন ছুটে আসে। পরে বুধবার সকালে পুকুরে জাল ফেলে দুই পুটলা বিষের বড়ি যার ওজন প্রায় ৮০০ গ্রাম সহ কয়েকটি বোতল পাওয়া যায়। খবর পেয়ে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান, গফরগাঁও থানার ওসি ও এলাকার লোকজন ঘটনাস্থল গিয়ে দুষ্কৃতিকারীদের দেওয়া বিষ প্রয়োগের বোতটি দেখে। 

ফিসারির মালিক মাহমুদুল হাসান জায়েদ জানান, আমার বসত বাড়ীর কাছেই প্রায় ৮ একর জমিতে দীর্ঘদিন যাবৎ ফিশারির ব্যবসা করিয়া আসতেছি। ৮ একর জমি ছাড়াও আমার আরও ২ একর জমিতে ৩টি ফিশারি আছে। এই ৩টি ফিসারিতেই শিং, পাবদা ও দেশি মাছ চাষ করি। আমার ৩টি ফিসারিতে প্রায় ২০ থেকে ২২ লক্ষ টাকার মাছ বিক্রি হত। ২৮ মার্চ রাতে কে বা কারা আমার ৩টি ফিশারিতে বিষ প্রয়োগ করে আমার প্রায় ২২ লক্ষ টাকা ক্ষতি করিয়াছে। এখন আমি অন্যন্যা ফিশারি গুলো নিয়েও হুমকিতে আছি। দূর্বৃত্তরা কখন আমার অন্যান্য ফিশারি গুলিতে বিষ প্রয়োগ করে। আমি এ ঘটনার সঠিক তদন্ত পূর্বক বিচার দাবি করছি।

উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আতাউর রহমান জনকণ্ঠকে বলেন, স্বাধীনতার পর থেকেই এই এলাকাটি বিএনপি অর্ধশিত এলাকা। মাছ নিধনের যে ঘটনাটি ঘটেছে সে আওয়ামীলীগ কর্মী এবং উপজেলা আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের সদস্য। এ ঘটনায় প্রমাণ করে শত্রুতার জেরেই প্রায় ২০ লক্ষ টাকার মাছ বিষ দিয়ে নিধন করা হয়েছে। কয়েকদিন পরেই এই মাছ গুলো হয়তো বাজারে তোলা হতো বিক্রির জন্য।

গফরগাঁও থানার অফিসার ইনর্চাজ ফারুক আ‏হম্মদ বলেন, বুধবার দুপুরে অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে এ নেক্কার জনক ঘটনায় যারা জড়িত তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে।

টিএস

×