ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১

খুলনায় শর্তসাপেক্ষে এক সপ্তাহের জন্য চিকিৎসকদের কর্মবিরতি স্থগিত

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস

প্রকাশিত: ১৪:৫৫, ৪ মার্চ ২০২৩

খুলনায় শর্তসাপেক্ষে এক সপ্তাহের জন্য চিকিৎসকদের কর্মবিরতি স্থগিত

খুলনা: সিটি মেয়রের সঙ্গে বিএমএ নেতৃবৃন্দ

দুই শর্তসাপেক্ষে এক সপ্তাহের জন্য কর্মবিরতি স্থগিত করেছে খুলনার চিকিৎসকরা। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে চিকিৎসকের ওপর হামলাকারী সাতক্ষীরা জেলা পুলিশে কর্মরত এএসআই নাঈমুজ্জামান শেখকে গ্রেপ্তারের শর্ত দিয়ে তারা এই কর্মসূচি স্থগিত করেন। একই সাথে তারই স্ত্রী নুসরাত আরা ময়নার দায়ের করা ডাঃ নিশাত আব্দুল্লার বিরুদ্ধে যৌন শ্লীলতাহানীর মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়েছে। 

শনিবার (৪ মার্চ) বেলা পৌঁনে ১২টায় বিএমএ ভবনে সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেনের সঙ্গে বিএমএ নেতৃবৃন্দের বৈঠক শেষে এ ঘোষণা দেওয়া হয়। এর আগে সকাল সোয়া ১০টা থেকে পৌঁনে ১২টা পর্যন্ত দীর্ঘ দেড় ঘন্টা পর্যন্ত এ বৈঠক হয়। 

বৈঠক শেষে খুলনা জেলা বিএমএর সভাপতি ডাঃ শেখ বাহারুল আলম জানান, সিটি মেয়র এবং আওয়ামী লীগ নেতাদের আশ্বাসে তারা কর্মসূচি এক সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছেন। এখন থেকে চিকিৎসকরা কাজে যোগদান করবেন। তবে এক সপ্তাহের মধ্যে তাদের শর্ত  পূরণ না হয়ে তারা নতুন ভাবে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন।

খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেন, তারা সাত দিনের জন্য কর্মবিরতি স্থগিত করেছে। আমরা প্রত্যাশা করছি এখন থেকেই তারা কর্মে যোগদান করবেন। সন্ধ্যায় সাধারণ সভায় আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা দিবেন। সুন্দর পরিবেশ সৃষ্টির জন্য যার যে দায়িত্ব সেই দায়িত্ব পালন করতে হবে।
একই কথা বলেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন। এছাড়া তিনি বলেন, তাদের কর্মস্থলে যোগ দেয়ার মধ্যদিয়ে সংঙ্কট নিরসন হবে।

এর আগে গত শুক্রবার দুপুর সাড়ে ৩টায় বিএমএ ভবনে স্বাস্থ্য বিভাগের অতিরিক্ত মহাপরিচালক ডাঃ রাশিদা সুলতানার নেতৃত্বে চার সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল স্থানীয় বিএমএ নেতৃবৃন্দ ও চিকিৎসকদের সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকে তারা চিকিৎসকের ওপর হামলাসহ খুলনার স্বাস্থ্যবিষয়ক ব্যাপারে খোঁজখবর নেন। এরপর সন্ধ্যায় স্বাস্থ্য বিভাগের প্রতিনিধিদলের সদস্যরা সার্কিট হাউজে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন।

উল্লেখ্য, ভুল চিকিৎসার অভিযোগ এনে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি রাতে নগরীর শেখপাড়া এলাকার হক নার্সিং হোমের অপারেশন থিয়েটারে ঢুকে সাতক্ষীরায় কর্মরত পুলিশের সহকারী পরিদর্শক (এএসআই) নাইমুজ্জামান শেখ ও তার সঙ্গীরা খুলনা আবু নাসের বিশেয়ায়িত হাসপাতালের প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান ডাঃ. শেখ নিশাত আব্দুল্লাহকে মারধর করে। এছাড়া অপারেশন করার কক্ষ ভাঙচুর করা হয় বলে অভিযোগ করেন চিকিৎসকরা। 

ওই ঘটনার প্রতিবাদে এবং এএসআই নাঈমকে গ্রেফতার ও বিচারের সোপর্দ করার দাবিতে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি ঘোষণা করে খুলনা বিএমএ। চিকিৎসকদের টানা প্রায় চারদিনের কর্মবিরতির কারণে প্রায় ভেঙ্গে পড়ে খুলনার চিকিৎসা ব্যবস্থা। এছাড়া খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালসহ সকল সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা না পেয়ে চরম ভোগান্তির শিকার হয় রোগী ও তাদের স্বজন।  

উক্ত ঘটনায় ডাঃ শেখ নিশাত আব্দুল্লাহ ও এএসআই নাঈমের স্ত্রী নুসরাত আরা ময়না নগরীর সোনাডাঙ্গা থানায় পাল্টাপাল্টি দুটি মামলা করেছেন। 

গত বুধবার ওই মামলায় এএসআই নাঈমকে সাতক্ষীরা সদর থানা থেকে জেলা পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে। অপরদিকে একই দিন সংবাদ সম্মেলনে ডাঃ শেখ নিশাত আব্দুল্লাহকে দ্রুত গ্রেপ্তার করা দাবি জানান।

তাসমিম

×