১২ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সেলিব্রিটি কুমির!


যদি বলা হয় ব্যস্ত রাস্তা দিয়ে আপনমনে পথ চলছে একটি মস্ত কুমির। কিন্তু এটি কাউকে ক্ষতি করছে না। বিশেষ করে শিশুদের সঙ্গে কুমিরটির রয়েছে গভীর সখ্যতা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এটিকে নিয়ে চলছে মাতামাতি। কুমিরটির মালিকের ফেসবুক পাতায় এটির ছবি প্রকাশ করতেই হু হু করে বাড়ছে লাইক। এটির ছবি শেয়ার করছে অনেকেই। স্থানীয়দের কাছে এই কুমিরটি এখন রীতিমতো তারকা বনে গেছে।

প্রথমে যে কেউ এ খবর শুনলে বিশ্বাস করবে না। তবে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় এমনই এক কুমিরের সন্ধান মিলেছে। এটি সুন্দর পোশাক পরে রাস্তা দিয়ে চলাচল করে। কখনও বাইকের সিটেও বসে এটি। আবার কখনও এ কুমিরকে গাড়ির স্ট্রিয়ারিং হুইল ঘোরাতে দেখা যায়। ছয় ফুট দীর্ঘ ও ১২৫ পাউন্ডের এ কুমিরটির নাম র‌্যাম্বো। মেরি থ্রোন নামে এক মার্কিন নারী লালন-পালন করে পোষ মানিয়েছে র‌্যাম্বোকে। কুমিরটির বয়স যখন ৪ বছর তখন ফ্লোরিডা ফিস এ্যান্ড ওয়াইল্ড লাইফ থেকে এটিকে নিয়ে যান মেরি। নাম দেন র‌্যাম্বো। বর্তমানে এটির বয়স ১৫ বছর। মেরি থ্রোন বলেন, আমি র‌্যাম্বোকে নিয়ে স্কুলে যাই।

পাশাপাশি বিভিন্ন দাতব্য প্রতিষ্ঠানে গিয়ে কুমির সম্পর্কে মানুষের মধ্যে সচেতনতা তৈরির চেষ্টা করি। আমি র‌্যাম্বোকে শিখিয়েছি, কাউকে কামড়ানো, আঁচরকাটা এবং মুখ হা করে ভয় দেখানো যাবে না। র‌্যাম্বো আমার কথামতো পাবলিক প্লেসে এসব করে না। বিশেষ করে শিশুদের সঙ্গে র‌্যাম্বোর ভাব হয়ে যায়। যখন শিশুরা র‌্যাম্বোর কাছে আসে তখন এটি মুখ বন্ধ করে শান্ত হয়ে থাকে। শিশুরা এটির মুখের মধ্যে আঙ্গুল ঢোকাতে চাইলেও মুখ খোলে না এই কুমির।

তিনি আরও বলেন, আমি র‌্যাম্বোকে ছাড়তে চাই না। আমি এটিক ভালবাসি। র‌্যাম্বো রোদ একদম সহ্য করতে পারে না। তাই বাইরে গেলে আমি এটিকে রোদ থেকে রক্ষার চেষ্টা করি। র‌্যাম্বোকে নিয়ে বাইরে গেলে এটিকে দেখতে অনেকেই ভিড় করে। কেই আবার ছুঁয়ে দেখতে চায়। ডেইলি মেইল ও অরল্যান্ডো সেন্টিনেল অবলম্বনে।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: