২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

মুক্তিযুদ্ধে ব্যবহৃত গাড়ি


১. মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক জেনারেল এমএজি ওসমানী যুদ্ধের সময় এই জিপ গাড়িটি ব্যবহার করতেন। তিনি তাঁর এই গাড়িটি নিয়ে যুদ্ধের সময় পরিদর্শন করতেন বিভিন্ন যুদ্ধ এলাকা । গাড়িটির নাম ‘কাইজার উইলিজ জিপ ওয়াগনার।’ নীল রঙের এই বিশাল গাড়িতে অনায়াসে ৫-৬ জন বসতে পারে। বর্তমানে গাড়িটি বাংলাদেশ সামরিক জাদুঘরে সংরক্ষিত।

২. এই গাড়িটির নাম স্টাফ কার মার্সিডিজ বেঞ্জ (৪ সিলিন্ডার ২০০০ সিসি)। গাড়ির নম্বর ০০০০০৫। দেখতে চমৎকার এই গাড়িটি তৎকালীন পশ্চিম জার্মানির তৈরি। এই গাড়িটি পাকিস্তান সেনাবাহিনীর ১৪ ডিভিশনের জিওসি ব্যবহার করতেন। স্বাধীনতা যুদ্ধের পর তৎকালীন পাকিস্তান সেনাবাহিনীর কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় গাড়িটি। পরে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর তৎকালীন সেনাপ্রধান লে. জেনারেল জিয়াউর রহমান ব্যবহার করতেন এই গাড়িটি। গাড়িটি রয়েছে বাংলাদেশ সামরিক জাদুঘরে।

৩. এই জিপ গাড়িটি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি। এই গাড়িতে বহন করা হতো মর্টার ও মেশিনগান। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি এই গাড়িটি মুক্তিযুদ্ধের যুদ্ধ ক্ষেত্রে মর্টার ও মেশিনগান বহন করার কাজে ব্যবহৃত হতো। ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধের পর রিকয়েললেস রাইফেল (আরআর) জিপটি পাকিস্তান সেনাবাহিনীর কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। ১৯৮৫ সাল পর্যন্ত এই গাড়িটি বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কর্তৃৃক ব্যবহৃত হতো। রিকয়েললেস রাইফেল (আরআর) ব্যবহৃত হতো ট্যাঙ্কবিধ্বংসী অস্ত্র হিসেবে। এর গোলা একটি ট্যাঙ্কের লৌহপাতের ভেতর ১৬.২০ ইঞ্চি পর্যন্ত প্রবেশ করতে সক্ষম। বর্তমানে গাড়িটি বাংলাদেশ সামরিক জাদুঘরে সংরক্ষিত রয়েছে।

৪. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি এই (ডায়মন্ড টি মডেল ৯৮১) গাড়িটি দ্রব্যসামগ্রী ও সৈনিক বোঝাই একটি ট্রেইলার টানতে সক্ষম। গাড়িটি ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধের পর পাকিস্তান সেনাবাহিনীর নিকট থেকে উদ্ধার করা হয়। গাড়িটির নম্বর ১৮৬৯৯০। বর্তমানে গাড়িটি বাংলাদেশ সামরিক জাদুঘরে সংরক্ষিত।

৫. এই গাড়িটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি (ট্রাক কারগো ৬/৬ ভ্যান মডেল এম ১০৯)। যুদ্ধক্ষেত্রে যানবাহন, অস্ত্র, বেতারসামগ্রী ইত্যাদি মেরামত করার যন্ত্রপাতি এই গাড়িটির ভেতরে সংযুক্ত থাকত। গাড়িটি ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধের পর পাকিস্তান সেনাবাহিনীর নিকট থেকে উদ্ধার করা হয়। ১৯৮৫ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে এটি ব্যবহৃত হয়। গাড়িটির নম্বর ০৭২০১২। বর্তমানে গাড়িটি বাংলাদেশ সামরিক জাদুঘরে সংরক্ষিত আছে।

৬. দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধোত্তরকালে যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক তৈরি জিপটি যুদ্ধক্ষেত্র থেকে আহত সৈনিকদের আনার জন্য ব্যবহৃত হতো (জিপ এ্যাম্বুলেন্স ৪ী৪ মডেল সি জে-৪)। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের পর এই গাড়িটি পাকিস্তান বাহিনীর নিকট হতে উদ্ধার করা হয়। ১৯৮৪ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বিভিন্ন ইউনিট কর্তৃক ব্যবহৃত হতো। বর্তমানে গাড়িটি বাংলাদেশ সামরিক জাদুঘরে সংরক্ষিত আছে।