শনিবার ২২ ফাল্গুন ১৪২৭, ০৬ মার্চ ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

মশা অসহ্য ও যন্ত্রণার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে ॥ তাজুল ইসলাম

মশা অসহ্য ও যন্ত্রণার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে ॥ তাজুল ইসলাম

অনলাইন রিপোর্টার ॥ রাজধানীতে মশা অসহ্য ও যন্ত্রণার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

আজ রবিবার দুপুরে সচিবালয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের সম্মেলন কক্ষে ঢাকা শহরের জলাবদ্ধতা নিরসনকল্পে ঢাকা উত্তর সিটি ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক গৃহীত কর্মপরিকল্পনা পর্যালোচনা সভার শুরুতে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মো. তাজুল ইসলাম বলেন, ইতোমধ্যে আপনারা মশা নিয়ে কিছু কিছু কথাবার্তা বলছেন। আমি যদিও এটা মনে করি অতীতের যেকোনো বছরের তুলনায় এখন কিউলেক্স মশার পরিমাণ কম। তাও (মশা) মানুষের কাছে অসহ্য ও যন্ত্রণার কারণ হিসেবে দাঁড়িয়েছে- এই কথাটা অস্বীকার করার কোনো সুযোগ নেই।

তিনি বলেন, এডিস মশা বাসা-বাড়িতে থাকে। বাড়ির মালিকরাসহ সবাই একত্রে এই মশা মারতে যোগ দিয়েছে, গত সেপ্টেম্বর থেকে কর্মপরিকল্পনা নিয়ে কাজ করেছিলাম বলে আমরা সেখানে একটা সন্তোষজনক একটা জায়গায় পৌঁছাতে পেরেছি। কিউলেক্স মশা হয় ঝোপ-জঙ্গল, আর্বজনা এবং ময়লা পানিতে। এজন্য কচুরিপানাসহ ময়লা-আবর্জনা পরিষ্কার করার জন্য ৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে মেশিন কেনা হচ্ছে।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, ঢাকা সিটিকে শুধু বসবাসের জন্য নয়, এনজয়েবল ঢাকা সিটি করতে চাই। সেজন্য যেসব প্রতিবন্ধকতা রয়েছে তা দূর করতে হবে। ড্রেনেজ ব্যবস্থা উন্নত করতে হবে জলাশয়গুলো পরিষ্কার করতে হবে। অবৈধ দখলমুক্ত করতে হবে। সেজন্য আমরা বেশ কিছু কর্মপরিকল্পনা হাতে নিয়েছি।

ঢাকার খালগুলো দুই সিটি কর্পোরেশনের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা স্টর্ম ওয়াটার ও খালগুলো নিয়ে আজকে বসেছি। শুধুমাত্র বৃষ্টির পানি যাওয়ার জন্য, খালগুলোকে পরিষ্কার করার জন্য সিটি কর্পোরেশনের কাছে এটা হস্তান্তর করা হয়নি। তারাও এজন্য এটা নেয়নি। উদ্দেশ্যটা হলো, যেসব খালের জায়গা অবৈধভাবে দখল হয়েছে তা দখলমুক্ত করা। দখলমুক্ত করে খালগুলোকে সংস্কার করা।

মো. তাজুল ইসলাম আরও বলেন, আমাদের ৩৯টি খাল আছে। এই ৩৯টি খাল দুই মেয়রের অধীনস্ত এলাকায় রয়েছে। খালগুলো সংস্কারে কর্মপরিকল্পনা করতে আজকে সভা ডাকা হয়েছে। দুই মেয়র বেশ কিছু পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন। তা বাস্তবায়নে দুই মেয়র খুবই আন্তরিক। আমরা মন্ত্রণালয় থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করব। প্রতিটি সংস্থা যার যার কাজ করবে। আমরা সমন্বয় করে কাজ করব।

সভায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাকসিম এ খান, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মো. সাঈদ নূর আলমসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত আছেন।

শীর্ষ সংবাদ:
কারাগারে কোন নির্যাতন হয়নি ॥ কার্টুনিস্ট কিশোর প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিদের করোনা পরীক্ষার নির্দেশ         সাবেক ভারপ্রাপ্ত সচিব আব্দুল লতিফের ইন্তেকাল         ঢাকায় ৩৫ জুয়াড়ি আটক         মাধবপুরে বঙ্গবন্ধু ঢাকা ম্যারাথন ২০২১ উদ্বোধন করলেন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী         দিনাজপুরে আইনজীবীদের সংঘর্ষের ঘটনায় হাসপাতালে ভর্তি এমপি জুই         সোমালিয়ায় আত্মঘাতী গাড়িবোমা হামলা, নিহত ২০         কমিউনিস্টদের ‘মেরে ফেলতে’ বললেন দুতার্তে         বার্নিকাটের গাড়িতে হামলার ঘটনায় ৯ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র         রামগড় স্থলবন্দর চালু শীঘ্রই, পর্যটন ও বাণিজ্যে অপার সম্ভাবনা         বিএনপির সরকার পতনের ঘোষণার একযুগ পার হয়ে গেছে ॥ কাদের         মোবাইল ব্যাংকিংয়ে ১০ কোটি গ্রাহকের মাইলফলক         ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন অপব্যবহার রোধে ব্যবস্থা নেয়া হবে ॥ আইনমন্ত্রী         প্রধানমন্ত্রী দেশকে মর্যাদার আসনে উন্নীত করেছেন ॥ কৃষিমন্ত্রী         বিষমুক্ত সবজি বিপ্লবের হাতছানি         করোনা সংক্রমণ রোধে কুয়েতে এক মাসের কার্ফু         নিত্যপণ্যের বাজারে মুরগির দাম অনেক বেড়েছে         তিন এয়ারলাইন্সের দায়িত্বহীনতার শিকার ৪শ’ যাত্রী         শহীদ ভারতীয় সেনাদের স্মরণে স্তম্ভ হবে ॥ মোজাম্মেল হক         মুজিববর্ষের সেরা করদাতার পুরস্কার পেলেন কাউছ মিয়া