শুক্রবার ১০ আশ্বিন ১৪২৭, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

মিথিলার শরীরে ভাইরাস!

  • শাওন আসগর

যুক্তিতর্ক শেষ হচ্ছে না। আলিম বলতেই থাকে-আসলে আল্লাহ মানুষকে সতর্ক করবার জন্যই এসব দুর্যোগ মহামারী দেন। দেখো না ক্যাটরীনা আইলা সিডর আবোলা বার্ড ফ্লু সোয়াইন দিয়ে কীভবে সবাইকে শিক্ষা দিয়ে গেল।

আমরা ওর যুক্তির বিরুদ্ধে কিছু বলাবার শক্তি খুঁজে পাই না। চুপ করে শুনি আর চায়ের কাপে ঠোঁট লাগিয়ে গরম স্বাদ গ্রহণ করি। ছুটির দিন বলে সবাই দাবা খেলার আয়োজন করি। যে হারবে সে খাওয়াবে। আসলে সর্বশেষে খাওয়ানো হয় না। কাজের বুয়াকে আগেই বলা থাকে ছুটির দিনে বাসায় খিঁচুরি আর গরুর গোশত্ রান্না হবে। আলিম বলতে থাকে-শোন বেশি বাড় ভাল না। দেখো না লাউয়ের ডগা দ্রুত বাড়ে যেমন দ্রুত মরেও যায় তেমন। যত লম্বা তত খাটো।

তার উদাহরণগুলো শুনে মনের ভেতর কিছু যুক্তি উঁকিবুকি করলেও ইচ্ছে করছে না আরও তর্কে যাই। তবু একটি সুযোগ কাজে লাগাতে চাই। আমি বলি-আলিম, আসলে মনে হয় গেল বছর উত্তর কোরিয়া যেভাবে ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করল, আমেরিকা পাওয়ার দেখাল, ইরান শক্তি দিয়ে অস্ত্রের প্রতিযোগিতা করল, পাকিস্তান আর ভারত যুদ্ধংদেহী হয়ে সারা দুনিয়াকে তাক লাগাল, ওসবের কারণে যে কেমিক্যাল রিয়েকশান তা থেকেও এই করোনার উদ্ভব হতে পারে।

আমার দিকে চোখ ঘুরিয়ে আলিম জবাব দেয় : মানে একই। ওই যে আল্লাহ মানুষের অনৈতিক অহংকার আর নির্যাতনের ওপর বিরক্ত। আল্লাহ বলেছেন বেশি বাড়াবাড়ি করলে আমি যে কোন জাতিকে ধ্বংস করতে পারি এবং এর পূর্বে অনেক জাতিকে শিক্ষা দিয়েছি।

আমাদের কথার মাঝেই আমার মোবাইল বেজে ওঠে। মিথিলার ফোন। গতকাল তার বাংলাদেশে ফেরার কথা ছিল। ইতালিতে গেছে স্কলারশিপ নিয়ে দু’বছরের জন্য। এপ্লাইড ফিজিক্সের ওপর পড়াশোনা। কিন্তু করোনার বাতাস বেশ তোড়জোড় করেই চীন থেকে ইরান মালয়েশিয়া ইতালি আক্রমণ করল। ভারতে ঢুকল। যা থেকে ভারতের আক্রান্ত লোকেরা গো-মূত্র খাওয়া শুরু করেছে। করোনা তার গতি বাড়াতে বাড়াতে এগুচ্ছে আরও প্রায় ১৩০ দেশে।

সবচেয়ে বেশি আঘাত হচ্ছে ইতালিতে। তাই অনেকে ফিরছে। মিথিলাও ফিরছে। সবাইকে বলা হলো গতকালে ফ্লাইটে আসবে কিন্তু এলো আজ। এলেও তাকে বাড়ি রাখা যাবে না। যেতে হবে আশাকোনা হজ্বক্যাম্পে। ওখানে ১৪ দিন হোম সেফে থাকতে হবে।

হা আশকোনা থেকেই ফোন এসেছে। মিথিলা জানালো প্রায় পঞ্চাশ জনের ওপর এসেছে। সবাই আশকোনায় রিপোর্ট করছে। আমরা যেন যাই।

॥ দুই ॥

আশকোনা হাজী ক্যাম্পে গিয়ে দেখি বিচ্ছিরি অবস্থা। অনেক চেষ্টা তদবীর করে গার্ডদের বখশিশ দিয়ে দেখা করি মিথিলার সঙ্গে। মিথিলার চেহারা খারাপ হয়ে গেছে ক্লান্তিতে। যদিও তার দেহে করোনার ভাইরাস পাওয়া যায়নি তবু তাকে এখানে ১৪ দিন থাকতে হবে। সবাইকেই। বাইরের খাবার এলাউ করছে না। অনেক রিকোয়েস্ট করে ওর ব্যবহার্য কাপড় চোপড়গুলো ওয়াশ করাবার জন্য বাসায় নিয়ে আসি। মিথিলার সঙ্গে কোন গভীর আবেগের কথা হলো না। ও খুব শক্ত মনের মানুষ। বুঝতে পারে কখন কি বলতে হবে। শুধু জানতে চাইল বাবার কথা।

বাবা মানে আমার বাবা। আমার বাবাই ওকে বড়ো করেছে মানুষ করছে। ওরা বাবা মারা যাওয়ার পর ওর সব দায়িত্ব আমাদের ওপর। তাই আমার বাবার জন্য ওর টান বেশি। বাবাই সব এরেঞ্জমেন্ট করে ইতালিতে পাঠিয়েছেন। বাবার শখ ছিল আমাকে উচ্চ শিক্ষিত করবেন। কিন্তু পড়শোনায় আমার মন বসে না। আমি রাজনীতি ভালবাসি দেশের মানুষের জন্য কাজ করতে ভালবাসি। আমার আদর্শ হয়ে ওঠেছে শেখ মুজিব ভাষানী সোহরোয়ার্দী ফজলুল হক। অবশ্য বর্তমানে আমি অনেক নেতাদের ঘৃণাও করি। তবু রাজনীতি ছাড়তে পারিনি। জানি জীবন আমার সংকীর্ণ হবে জেলে যেতে হবে কারাগারে একা থাকতে হবে নির্যাতন সইতে হবে। তবু রাজনীতিই করব। ছাত্ররা রাজনীতি করবে না তো কারা করবে কৃষক লেবার শ্রমিক লুটেরা ব্যবসায়ীরা? ওরা রাজনীতি করে বলেই দেশের মূল সমস্যা কাটে না। ওদের দৃষ্টি সারাবিশ্বের আধুনিক রাজনীতির সঙ্গে সমানতালে চলে না। কারণ ওরা কেবল নিজেদের আখের গোছাতেই ব্যস্ত থাকে।

মিথিলা আমার কাজিন। ওর কেউ নেই। আমাদের এখানে থেকেই মানুষ হয়েছে বড়ো হয়েছে। জীবনের ক্ষণে ক্ষণে দুঃখ তাকে নিষ্ঠুর বানিয়ে দিয়েছে। জীবন তাকে বড়ো হওয়ার প্রেরণাও দিয়েছে। ও কোন দিনই ঝামেলা পছন্দ করেনি। বেশ কাঠখোট্টা টাইমের মেয়ে। আমাদের বিয়ে হবে এটি পারিবারিকভাবেই আমরা জানি। ও ইতালি থেকে ফিরলে বাবা এই কাজটি সারবেন। মিথিলা এসব জানে অনেক বছর আগে থেকেই তাই মনে মনে আমাকে গ্রহণ করেই এগুচ্ছে। হয়তো আমার বাবার প্রতি তার জীবনের কৃতজ্ঞতা বোধ থেকেই মেনে নিয়েছে।

আমরা একে অন্যকে ভাল জানি ভালবাসি। আমাদের বিশ্বাস পাহাড়ের সমতুল্য। কোনদিন অন্যদিকে অন্য কাউকে নিয়ে ভাবিনি। ইতালি যওয়ার পর মিথিলাকে আরও আপন করেই পেয়েছি ওর আলাপ ব্যবহার। নিজেদের বোঝা-পড়ার অধ্যায়কে আরও সুন্দর ও গ্রহণযোগ্য করেছি। ও যখন বাবার কথা জানতে চায় তখন আমার চোখে পানি আসে। বলি-বাবার শরীর ভাল না মিথি। বয়সের অনেক ঝামেলা। তোমার জন্য চিন্তাও করেন। প্রায় বলেন তোমার কথা। তুমি এসেছ শুনে অনেক খুশি কিন্তু এই যে ১৪ দিন এখানে পড়ে থাকবে তাতে চিন্তায় পড়ে গেছেন। বারবার আমাকে বলছেন-মিথিকে নিয়ে আয় ব্যবস্থা করে বের কর ওখান থেকে। আমি কী বলব। তুমি তো জানোই এখানকার অবস্থা। তবু আমি ব্যাকডোরে তোমাকে নেয়ার চেষ্টা করব। টেনশন কর না।

॥ তিন ॥

সাত দিন হয়ে গেল। মিথিলা আশকোনাক্যাম্পে। আমি প্রতিদিন যাই। মাঝে মাঝে মানুষের ব্যস্ততা আর অনিয়মের হইচই, কারও কথা ভালভাবে বুঝিনি। প্রথম ক’দিন আকাশ ভেঙ্গে চৌচির করে উড়ন্ত বিমানের শব্দ পেতাম। কানে আসতো ট্রেনের শব্দও। তবে গেল দু’দিন ধরে বিমানের শব্দ স্তব্ধ হয়ে গেছে যেন। বাহিরে কোন বিমান যাচ্ছে না। বাইরে থেকেও আসছে না। সব আন্তর্জাতিক যোগাযোগ বন্ধ। দেশের অবস্থা বেশ নাজুক। সবার ভেতর আতঙ্ক আর হতাশা। ভারত ভিসা বন্ধ করেছে। আমেরিকা ইরান চীন সৌদি আরবে মসজিদ জামায়াত বন্ধ। জামায়াতে নামাজ বন্ধ অনেক দেশেই। জমায়েত সমাবেশ নিষিদ্ধ করেছে বাংলাদেশ। সভা মিটিং মার্কেটে কম উপস্থিতির পরামর্শ দিয়েছে। স্কুল কলেজ মাদ্রাসা সবই বন্ধ।

কেউ কেউ বলছে সরকার সবটুকুু তথ্য জানাচ্ছে না। বাংলাদেশেও করোনার প্রকোপ অনেক বেড়েছে। মানুষ ফেসবুক ইউটিউভ থেকে হাল নাগাদ অনেক তথ্য পেয়ে যাচ্ছে। কোন গোপনই গোপন থাকছে না।

॥ চার ॥

মিথিলা বাসায় আসে। কিন্তু বাসায় এসেই বাবার শরীরের খারাপ অবস্থায় সে মুষড়ে পড়ে। বয়সজনিত কারণে বাবাও ভেঙ্গে পড়েছেন। বাবার শরীর খারাপ থেকে আরও খারাপ হতে থাকে। মিথিলাই বাবাকে হাসপাতালে নেয়ার ব্যবস্থা করে। তার কিডনি লিভারের সমস্যা। ডায়াবেটিস এর মাত্রা বেড়েছে খুব।

শেষ পর্যন্ত বাবাকে সেন্ট্রাল হাসপাতালে ভর্তি করা হলো। বাবার সঙ্গে আমি আর মিথিলি সময় কাটাই। আর কেউ নেই। বড় ভাই গেল প্রায় আট বছর ধরে ছেলে মেয়ে নিয়ে লন্ডনে। কে থাকবে আর? মিথিলা রাতেও থাকে। একেতো ১৪ দিন হাজী ক্যাম্পে তার ওপর এখন এই অবস্থা, অনেক সমস্যা হচ্ছে। ওর শরীরের মূল গড়ন বদলে যাচ্ছে পরিশ্রমের কারণে। বাবার ওষুধ খাওয়ানো থেকে পোশাক আশাক বদলে গা গোসলেও ওর হাত। ছোট বেলা থেকেই মিথিলা নিজের পিতার আদর পায়নি আর মাকেও হারিয়েছে দশ বছর বয়সে। তখন থেকেই আমার বাবাই ওরা বাবা-মা। আমাকে একদম সময় ব্যয় করতে দেয় না। বলে -তুমি টেনশন করও না। বাবাকে আমিই সুস্থ করে বাড়ি নিয়ে যাব।

আমি রাজনীতি নিয়ে পড়ে থাকি। ছোট ছোট মিটিং করে ছাত্রদের সমস্যা নিয়ে কথা বলি। আজকাল মোবাইল ফোনেও কাজ করা যায়। আর করোনার ভয়াবহতার কারণে সবাইকে সতর্ক হতে বলি। পাড়া মহল্লায় সবার জন্য মানবিকভাবে নিজেদের কাজে লাগাতে উৎসাহ দিই। প্রয়োজনে টাকা, মাস্ক, স্যানিটারিজ, খাবার দিয়ে সাহায্য করি। বাবাও এ সময় সবার বিপদে থাকতে বলেছেন। বিভিন্ন জেলায় সংগঠনের ছেলেমেয়েদের জানিয়ে রাখি কোথাও সমস্যা হলেই যেন সবাই এগিয়ে যায়। এটি শুধুমাত্র রাষ্ট্রের কাজ নয়। সম্মিলিতভাবেই করতে হবে। সবাইকে বুঝাই এটি আওয়ামী লীগ বিএনপি জাতিয় পার্টির নয়। সকল দলের সকল মানুষের কাজ।

॥ পাঁচ ॥

বাবা সুস্থ হয়ে ফিরে আসেন চারদিন পরই। কিন্তু মিথিলা অসুস্থ হয়ে পড়ে। ওর গলা ব্যথা কাশি বাড়ে। জ্বর জ্বর লাগে। ভয় পেয়ে যাই সবাই। এমন হওয়ার কথা নয়। তবে কী বাবার সঙ্গে হাসপাতালে থেকে কোন অসুখ বাঁধাল!

আমাদের মনের ভেতর বেদনার হিম কষ্ট জড়াজড়ি করে গলাপর্যন্ত আটকে থাকে। ঘরের প্রতিটি পোশাক পরিচ্ছদ কক্ষে শুধুই নীরব হাহাকার। দেরি করি না। ডাক্তারের কাছে গিয়ে জানতে পারি ওর শরীরে ভাইরাস বাসা বেঁধেছে। বাবার চোখের পানি গড়িয়ে বুকে নামে। আমারও। মিথিলার জন্য অস্থির হয়ে পড়ি ...

শীর্ষ সংবাদ:
অবৈধপথে ক্ষমতা দখলে ষড়যন্ত্রের গলি খুঁজছে বিএনপি ॥ কাদের         ইয়েমেনে পরাজিত সৌদি রাজা সালমান প্রলাপ বকছেন: ইরান         মার্কিন বিমানবাহী রণতরী পর্যবেক্ষণের ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করল আইআরজিসি         একসঙ্গে দুটি বিরল রোগে আক্রান্ত নবজাতক         করোনায় আরও ২১ জনের মৃত্য ॥ নতুন আক্রান্ত ১৩৮৩         জলবায়ু পরিবর্তন ॥ পৃথিবী রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর ৫ প্রস্তাব         সার্কভুক্ত দেশগুলোকে নিবিড় সহযোগিতার আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর         লন্ডনে থানার ভেতর পুলিশ কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যা         বাংলাদেশ-ভারত সহযোগিতা নিছক দেনাপাওনার ঊর্ধ্বে ॥ রীভা গাঙ্গুলি         নিয়মতান্ত্রিকভাবেই ক্ষমতা হস্তান্তর করা হবে ॥ প্রতিশ্রুতি রিপাবলিকানদের         মহামারিতে বিশৃঙ্খলায় বিশ্ব ॥ নিরাপত্তা পরিষদে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময়         হাতিয়ায় মাছধরা ট্রলার ডুবি, ২ জেলের মৃতদেহ         করোনা ভাইরাস ॥ যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্ত ৭০ লাখ ছাড়ালো         ভারত ছাড়ল হার্লে ডেভিডসন         সিংহের লেজ নিয়ে নাড়াচাড়া করবেন না ॥ ট্রাম্পকে ইরান         ১৩ ঘণ্টা পর নারায়ণগঞ্জের ট্রেন চালু         অর্থনীতি দ্রুত পুনরুদ্ধারই চ্যালেঞ্জ ॥ করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় লকডাউন নয়         সরকারের সর্বাত্মক প্রচেষ্টায় সঙ্কট কাটল সৌদি প্রবাসীদের         একক নিয়ন্ত্রণের কোন কমিটি অনুমোদন নয়         দ্বিচারিতা আর ষড়যন্ত্রই বিএনপির রাজনৈতিক দর্শন ॥ কাদের