ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯

শেয়ারবাজারে লেনদেন বেড়েছে

প্রকাশিত: ০৯:২৭, ২৫ জুলাই ২০১৯

শেয়ারবাজারে লেনদেন বেড়েছে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ মঙ্গলবার প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণে বড় উত্থান হলেও বুধবার সামান্য পতনে শেষ হয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লেনদেন। একই সঙ্গে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর কমেছে। তবে টাকার পরিমাণে বেড়েছে লেনদেন। অনেকেই হাতে থাকা শেয়ার তিনদিনের ব্যবধানে কিছুটা লাভে বিক্রি করেছেন। তবে ক্রেতার সংখ্যাও আগের তুলনায় বেশি ছিল। কিন্তু শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত মিউচুয়াল ফান্ডগুলোর চাহিদা বেশি ছিল। কিন্তু এগুলো সূচকে কোন ভূমিকা না রাখায় সূচকের ইতিবাচক প্রবণতা ঘটেনি। বিশ্লেষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বুধবারেও বেশ কিছু মিউচুয়াল ফান্ডের দর সর্বোচ্চ হারে বেড়েছে। লভ্যাংশ হিসেবে ফান্ডগুলোর রি-ইউনিট বাতিল করার পর থেকেই বেশ কিছু মিউচুয়াল ফান্ডের দর সর্বোচ্চ হারে বাড়ছে। মূলত মিউচুয়াল ফান্ডগুলোতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের শেয়ার বেশি এবং আন্ডাররাইটার কাছে বেশি শেয়ার। সেই তুলনায় গত কয়েক বছরে লোকসানের কারণে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা মিউচুয়াল ফান্ড বিক্রি করে দিয়েছেন। অল্পদামে ফান্ডগুলো কিনে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা এখন আস্তে আস্তে বাড়াচ্ছেন। আরও বাড়বে এমন আশাবাদে নতুন করে বিনিয়োগকারীরা এখনও এসব ফান্ড কিনছেন। কিন্তু লভ্যাংশ হিসেব করলে দীর্ঘমেয়াদে বিনিয়োগকারীদের লোকসানের সম্ভাবনা রয়েছে। বাজার পর্যালোচনায় জানা গেছে, ডিএসইতে ৩৮০ কোটি ৫৯ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। আগের দিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৩১৭ কোটি টাকার। এ হিসাবে ডিএসইতে টাকার পরিমাণে লেনদেন ৬৩ কোটি টাকা বেশি হয়েছে। এদিন ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ০.৪৬ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৭৭ পয়েন্টে। ডিএসইতে অপর দুই সূচকের মধ্যে শরিয়া সূচক ৪ পয়েন্ট কমেছে। তবে ডিএসই-৩০ সূচক ২ পয়েন্ট বেড়েছে। ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৫৩টি কোম্পানির মধ্যে ১৪৩টি বা ৪১ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। অন্যদিকে দাম কমেছে ১৭৮টি বা ৫০ শতাংশ কোম্পানির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩২টি বা ৯ শতাংশ কোম্পানির। টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে স্কয়ার ফার্মার শেয়ার। এদিন কোম্পানির ১৪ কোটি ৫৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে থাকা বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশনের ১৪ কোটি ৫৬ লাখ টাকার এবং ১২ কোটি ১২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইউনাইটেড পাওয়ার। ডিএসইতে লেনদেনে এরপর রয়েছে - ফরচুন সুজ, বিকন ফার্মা, ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স, রূপালী ইন্স্যুরেন্স, এশিয়ান টাইগার সন্ধানী লাইফ গ্রোথ ফান্ড, গ্রামীণফোন এবং সী পার্ল। অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ৭ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ৫২০ পয়েন্টে। এদিন এসইতে হাত বদল হওয়া ২৭৫টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ১২৬টির, কমেছে ১৩৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৫টির দর। সিএসইতে ১৬ কোটি ৬৮ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।