বৃহস্পতিবার ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৬ আগস্ট ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আজও টিকে আছে তালপাতার পাঠশালা

দেশে এখন বিলুপ্তপ্রায় তালপাতার পাঠশালা। এক সময় প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা গ্রহণের উত্তম ক্ষেত্রই ছিল এই তালপাতার পাঠশালা। শিশু-শিক্ষার্থীরা প্রাইমারী স্কুলে যাওয়ার আগে বর্ণমালা, শতকিয়া, নামতা, ফলা ও বানানরীতিসহ প্রাক-প্রাথমিক নানা শিক্ষা পেত এই পাঠশালা থেকে। শুধু গরিব হতদরিদ্রের ছেলেমেয়েরাই নয়; সচ্ছল পরিবারের ছেলেমেয়েরাও যেত তালপাতার পাঠশালায়। সবাই একসঙ্গে এক তালে সুর মিলিয়ে পড়ত আর রান্নার হাঁড়ির নিচের কালি ও বাঁশ-কঞ্চির বানানো কলম দিয়ে তালপাতায় লিখে শিক্ষার্থীরা শিক্ষা নিত এই পাঠশালা থেকে। তালপাতায় লিখলে হাতের লেখা সুন্দর হয়, শিক্ষার্থীরা মনোযোগী থাকে, আগ্রহভরে শিক্ষা নেয় এবং খরচও অল্পÑ এমন ধারণায় উদ্বুদ্ধ গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় বড় ডুমুরিয়া গ্রামের বাসিন্দারা আজও ধরে রেখেছেন এমন একটি তালপাতার পাঠশালা।

দীর্ঘ ২৫ বছর আগে ধীরেন্দ্রনাথ মৃধা নামে এক শিক্ষানুরাগী স্থানীয় একটি ক্লাবঘরে শুরু করেছিলেন এই পাঠশালাটি। তার মৃত্যুর পর স্থানীয় শিক্ষক মীরা কীর্ত্তণীয়া ধরে রাখেন প্রায় ১৫ বছর। গত ৬ বছর ধরে স্থানীয় রাধা-গোবিন্দ-হরি-দুর্গা সার্বজনীন মন্দির প্রাঙ্গণে এই পাঠশালায় শিক্ষা দিচ্ছেন তার নাত-বৌ কাকলী কীর্ত্তণীয়া। বর্তমানে তার পাঠশালায় শিক্ষারত আছে অর্ধশতাধিক কোমলমতি শিশু। তারা মন্দির প্রাঙ্গণে খোলা জায়গায় মাটিতে বসে শিক্ষা গ্রহণ করছে। তালপাতায় শিক্ষকের এঁকে দেয়া বর্ণমালার উপর দিয়ে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে তারা লেখা শেখে। হাতে-মুখে কালি মেখে আনন্দ-উল্লাসের মধ্য দিয়ে শিক্ষা নেয়। পাঠশালাটি শুরু হয় সকাল ১০টায় - চলে দুপুর ২টা পর্যন্ত। একই সঙ্গে শিশুদের পড়ার সুরে সকাল থেকেই মুখরিত হয়ে ওঠে পাঠশালাসহ আশপাশ। পাঠশালাটির শিক্ষার্থীরা একসময় লেখাপড়ার খরচ হিসেবে দিত বার্ষিক এক মণ ধান। এখন তারা দেয় মাসিক ১শ’ টাকা। এ নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় পাঠশালার শিক্ষক কাকলী কীর্ত্তণীয়াকে। এলাকাবাসীর প্রত্যাশা, যুগের সাক্ষী এ তালপাতার পাঠশালাটি আমাদের ঐতিহ্য বহন করবে।

পাঠশালার একমাত্র শিক্ষক কাকলী কীর্ত্তণীয়া জনকণ্ঠকে জানান, স্থানীয় মুরব্বিদের সহযোগিতায় তিনি পাঠশালাটি চালিয়ে যাচ্ছেন। বড়ডুমুরিয়া, ছোট ডুমুরিয়া, ভৈরব নগর, ভেন্নাবাড়ি, শালুখা ও তাড়াইলসহ আশপাশ এলাকার হতদরিদ্র পরিবারের ছেলেমেয়েরা এ পাঠশালায় পড়াশোনা করছে। ‘আদি বাল্য শিক্ষা’ নামে যে বইটি রয়েছে, তা থেকেই বয়সভেদে তিনি শিশুদের বর্ণমালা, শতকিয়া, নামতা, ফলা ও বানানরীতি শিক্ষা দিয়ে থাকেন। শিশুরাও যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাচ্ছে। পড়ালেখার পাশাপাশি তারা গান, কবিতা, ধর্মীয় ও নৈতিক শিক্ষাও চর্চা করছে। পাঠশালার পাঠ চুকিয়ে তারা ভর্তি হচ্ছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। কিন্তু পাঠশালার কোন নিজস্ব স্থান না থাকায় মন্দিরের খোলা জায়গায় পড়াতে হয়। মন্দিরে কোন অনুষ্ঠান থাকলে পাঠশালা বন্ধ রাখতে হয়। নেই বাইরের সাহায্য-সহযোগিতা। নেই শিক্ষার্থীদের স্কুল-ব্যাগ, টিফিন বা বিনোদন ব্যবস্থা। বিনা বেতনসহ শিশুদের এসব চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হলে শিক্ষার্থীরা পড়াশোনায় আরও মনোযোগী হতো এবং পাঠশালাটিও তার সুন্দর পরিবেশ ফিরে পেত।

প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী এ তালপাতার পাঠশালাটি সরকারী সহযোগিতাসহ তার নিজস্ব ঠিকানা পাবে- এমন প্রত্যাশা জানিয়ে গোপালগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আবদুল্লাহ আল বাকী জনকণ্ঠকে বলেছেন, এখনও তালপাতার পাঠশালা গোপালগঞ্জে চলমান আছে শুনে ভাল লাগল। আমি নিজে সেখানে গিয়ে বাস্তব অবস্থা দেখব এবং যথাযোগ্য কর্তৃপক্ষকে অবহিত করব। পাঠশালাটি যদি ধরে রাখা যায়, বাংলার ঐতিহ্যে কিছুটা হলেও প্রভাব ফেলবে এবং আমাদের ঐতিহ্যের অংশ হিসেবে আমরা এর উত্তরোত্তর সমৃদ্ধির জন্য অবশ্যই সহযোগিতা করব।

-নীতিশ চন্দ্র বিশ্বাস, গোপালগঞ্জ থেকে

শীর্ষ সংবাদ:
সিনহার মৃত্যুর ঘটনায় দুই বাহিনীর সম্পর্কে চিড় ধরবে না         শেখ কামাল বেঁচে থাকলে দেশকে অনেক কিছু দিতে পারত         শহীদ শেখ কামাল ছিলেন দূরদর্শী, নির্লোভ নির্মোহ ॥ কাদের         সোশ্যাল মিডিয়ায় অস্থিরতা ছড়ালে ব্যবস্থা ॥ তথ্যমন্ত্রী         শেখ কামালের জীবন থেকে শিক্ষা নিন- তরুণ সমাজকে মেয়র তাপস         করোনা ভ্যাকসিনের আশায় বিশ্ববাসী         ভার্চুয়াল না নিয়মিত, কোন্ পদ্ধতিতে বিচার চলবে সিদ্ধান্ত আজ         বৈরুত বিস্ফোরণে ৪ বাংলাদেশী নিহত         ক্যাবল সংযোগ উচ্ছেদ কার্যক্রম শুরু         বাংলাদেশকে ৩২৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দেবে জাপান         হাওড়ে ভ্রমণে গিয়ে এক পরিবারের ৮ জনসহ ১৭ প্রাণহানি         অস্ত্র মামলায় রিমান্ড শেষে সাহেদ জেল হাজতে         লবণ দেয়া কাঁচা চামড়া সরকার নির্ধারিত দামে বেচাকেনা হবে         ৯ আগস্ট থেকে কলেজে ভর্তির আবেদন         টেকনাফের ওসি প্রদীপকে প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         বাংলাদেশকে ৩২৯ মিলিয়ন ডলার সহায়তার ঘোষণা জাপানের         সিনহা হত্যায় দোষীদের বিচার হবে : সেনা প্রধান         ৪৪টি অনলাইন পোর্টালের বিষয়ে অনাপত্তি পেয়েছি ॥ তথ্যমন্ত্রী         আমাদের বেশী বেশী করে গাছ লাগাতে হবে : রেলপথ মন্ত্রী         দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৩৩ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৬৫৪        
//--BID Records