ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৬ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

কেন্দুয়ায় পুলিশ-ছাত্রদল সংঘর্ষে ১৩ পুলিশসহ আহত ২৫

প্রকাশিত: ০০:৩৬, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৭

কেন্দুয়ায় পুলিশ-ছাত্রদল সংঘর্ষে ১৩ পুলিশসহ আহত ২৫

নিজস্ব সংবাদদাতা, নেত্রকোনা ॥ নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলায় পুলিশ ও জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষে ১৩ পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছেন। আহত পুলিশ সদস্যদের মধ্যে পাঁচ জন এসআই, একজন এএসআই ও সাত জন কনস্টেবল রয়েছেন। তাদের নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কেন্দুয়া পৌর শহরের আলীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ সংঘর্ষ ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ একটি মাইক্রোবাসসহ ছাত্রদলেল ৮ নেতাকর্মীকে আটক করেছে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার স্থানীয় ছাত্রদলের উদ্যোগে কেন্দুয়া পৌর শহরের আলীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মী সমাবেশের আয়োজন করা হয়। পূর্বানুমতি না নিয়ে সমাবেশ আয়োজন করায় স্থানীয় থানা পুলিশ সেখানে গিয়ে বাঁধা দেয়। এ সময় পুলিশের সঙ্গে ছাত্রদল কর্মীরা বাদানুবাদে জড়িয়ে পরেন। এক পর্যায়ে পুলিশ ছাত্রদল কর্মীদের ধাওয়া করলে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শরিফুল হাসান আরিফসহ কয়েকজন নেতা-কর্মী আহত হন। এতে উত্তেজিত হয়ে ছাত্রদল কর্মীরা সংঘবদ্ধভাবে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। কর্মীদের ছোঁড়া ইট-পাটকেলে ১৩ জন পুলিশ সদস্য আহত হন। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে এবং আহত পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠায়। আহত পুলিশ সদস্যরা হলেনঃ এসআই সঞ্জয় সরকার, আল আমীন, আবদুল কাদের, ছামেদুল হক, আবুল বাশার, এএসআই হেলাল আহমেদ, পুলিশ সদস্য সুমন মিয়া, মিজানুর রহমান, জাকির হোসেন, সোহেল রানা, আবুল খায়ের, রকিবুল ইসলাম ও আবদুল কদ্দুস। কেন্দুয়া থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম জানান, কর্মী সমাবেশ করার জন্য ছাত্রদল স্থানীয় প্রশাসনের কাছ থেকে কোন রকম অনুমতি নেয়নি। অনেক লোকজন একত্রে জড়ো হচ্ছে দেখে পুলিশ গিয়ে বিষয়টি জানতে চেয়েছিল। এতে উত্তেজিত হয়ে ছাত্রদল কর্মীরা পুলিশের ওপর হামলা চালায়। অন্যদিকে উপজেলা বিএনপির সভাপতি রফিকুল ইসলাম হিলালী বলেন, পুলিশের কাছ থেকে মৌখিক অনুমতি নিয়েই ছাত্রদল সমাবেশের আয়োজন করে ছিল। তাতে পুলিশ এসে বাধা দেয় এবং নির্বিচারে নেতা-কর্মীদের ওপর লাঠিচার্জ শুরু করে। এতে অন্তত ১৫-২০ জন নেতাকর্মী আহত হয়।
monarchmart
monarchmart