সোমবার ৩ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ অক্টোবর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

ছয় মাসে ৭০ হাজার কোটি টাকা এসএমই ঋণ বিতরণ

  • নারী উদ্যোক্তারা পেয়েছেন ৩ হাজার কোটি টাকা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই) খাতে চলতি বছরে প্রথম ছয় মাসে (জানুয়ারি-জুন) ৬৯ হাজার ৬৭০ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করেছে দেশে কার্যরত ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো, যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ২৩ দশমিক ৫৯ শতাংশ বেশি। গত বছর আলোচ্য সময়ে সর্বমোট ৫৬ হাজার ৩৭৩ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করা হয় এসএমই খাতে। তবে ব্যবসা বা শিল্প প্রতিষ্ঠায় আগ্রহী নারীদের খুঁজে বের করতে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে নির্দেশ দিলেও বাড়ানো যাচ্ছে না নারী উদ্যোক্তার সংখ্যা। বরং ধীরে ধীরে আরও কমছে। গত ৬ মাসে ১৯ হাজার ৭৬৭টি নারী উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান ব্যাংক থেকে এসএমই ঋণ পেয়েছেন। এই ৬ মাসে নারী উদ্যোক্তাদের ৩ হাজার ৮২ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করেছে দেশের সব বাণিজ্যিক ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদনে দেখা যায়, গত বছরের তুলনায় এসএমই খাতে ঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা সাড়ে ৮ শতাংশ বাড়িয়ে চলতি বছরে ১ লাখ ১৩ হাজার ৫০৩ কোটি টাকা করা হয়। বছরের প্রথম ছয় মাসেই মোট লক্ষ্যমাত্রার ৬১ দশমিক ৩৮ শতাংশ অর্জিত হয়েছে। গত বছর এই সময় প্রায় ৫৪ শতাংশ লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়। বিতরণ করা ঋণের মধ্যে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো ৬৬ হাজার ৬১৭ কোটি টাকা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো ৩ হাজার ৫৩ কোটি টাকা বিতরণ করেছে। প্রথম ছয় মাসে ৩ লাখ ৮ হাজার ৬০১ জন উদ্যোক্তা ঋণ পেয়েছেন। এর মধ্যে ১৯ হাজার ৭৭০টি নারী উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান ঋণ পেয়েছেন ৩ হাজার ৮৩ কোটি টাকা। এছাড়া ৭৭ হাজার ৬০১টি নতুন উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠানকে ১২ হাজার ৬০৭ কোটি টাকা ঋণ দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে নতুন নারী উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠানকে দেয়া হয়েছে ৫৯৫ কোটি টাকা। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০১৫ সালে ১৮ হাজার ২৩৩টি নারী এসএমই উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান ৪ হাজার ২২৭ কোটি টাকা ঋণ পেয়েছিল। ২০১০ সালে ১ হাজার ৮০৫ কোটি টাকা ঋণ পেয়েছিল ১৩ হাজার ২৩৩টি এসএমই নারী উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান।

এ প্রসঙ্গে উইমেন এন্টারপ্রেনিয়ার্স এ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারপার্সন নাসরিন আউয়াল মিন্টু বলেন, বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার অর্ধেকেরও বেশি নারী। সেখানে গেল ৬ মাসে ২০ হাজার নারী উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান ব্যাংক থেকে এসএমই ঋণ পেয়েছে। এর পরিমাণ কম। যদি ২০ লাখ নারী এই ৬ মাসে ঋণ পেতেন, তাহলে সাধুবাদ দেয়া যেত। তিনি বলেন, বাংলাদেশকে সত্যিকার অর্থে উন্নয়ন করতে হলে আরও কয়েকগুণ নারীকে এসএমই ঋণ দিতে হবে।

প্রতিবেদনে দেখা যায়, এ বছর সেবা খাতে ঋণ বিতরণ বৃদ্ধির হার সবচেয়ে বেশি ৪০ দশমিক ২৪ শতাংশ। আগের বছরের ৫ হাজার ৭০২ কোটি টাকা থেকে বেড়ে সেবা খাতে ৭ হাজার ৯৯৭ কোটি টাকা ঋণ দিয়েছে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো। এছাড়া চলতি বছর ব্যবসা খাতে ৪৩ হাজার ৯৪২ কোটি টাকা ও শিল্প খাতে ১৭ হাজার ৭৩০ কোটি টাকা এসএমই ঋণ বিতরণ করা হয়েছে। আগের বছরের তুলনায় ব্যবসা খাতে সাড়ে ২৩ ও শিল্প খাতে ঋণ বিতরণ সাড়ে ১৭ শতাংশ বেড়েছে। আলোচ্য সময়ে ঋণপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা কমেছে। এর কারণ ইসলামী ব্যাংক রুরাল ডেভেলপমেন্ট স্কিমের (আরডিএস) আওতায় অনেক প্রতিষ্ঠানকে ঋণ দেয়। আগে ওই প্রকল্পের ঋণগুলোকে এসএমই ঋণ বলে গণ্য করা হতো। কিন্তু এদের কোন ট্রেড লাইসেন্স নেই। অতিক্ষুদ্র প্রতিষ্ঠান।

শীর্ষ সংবাদ:
ডেঙ্গু : গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৭২ রোগী হাসপাতালে         প্রকাশ হলো ৪৩তম বিসিএস প্রিলির আসন বিন্যাস         সম্প্রতির মধ্যে ভাঙন সৃষ্টি করতে কুমিল্লার ঘটনা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         এফআর টাওয়ারের নকশা জালিয়াতি: চারজনের বিচার শুরু         করোনা : গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ১০         পদোন্নতি পেলেন ডিএমপি কমিশনার ও র‌্যাব মহাপরিচালক         শেখ রাসেলের হত্যাকারীরা নর্দমার কীট ও পশুতুল্য ॥ কৃষিমন্ত্রী         ‘শেখ রাসেল স্বর্ণপদক’ দিলেন প্রধানমন্ত্রী         অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বাংলাদেশ গড়তে চাই ॥ প্রধানমন্ত্রী         বিএনপি হত্যা-ষড়যন্ত্র-সাম্প্রদায়িক রাজনীতির বাহক ॥ কাদের         ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম ॥ অবরোধ তুলে নিলেন ঢাবি শিক্ষার্থীরা         ‘১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ড জাতীয় ও আন্তর্জাতিক চক্রান্তের ফসল’         ইভ্যালি পরিচালনায় বোর্ড গঠন করে দিলেন হাইকোর্ট         ঝিনাইদহে জাকির মন্ডল হত্যা মামলায় ৮ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড         ‘রাসেল মানবিক সত্তা হিসেবে সবার মাঝে বেঁচে আছেন’         ট্রেনে ভ্রমণরত শিশুদের উপহারসামগ্রী বিতরণ রেলমন্ত্রীর         সেই তুফানের জামিন বিষয়ে হাইকোর্টের রুল         সাবওয়া ও মা’রিব প্রদেশে অভিযান চালিয়ে অনেক ভূখণ্ড মুক্ত করল ইয়েমেনি বাহিনী         কেরালায় বন্যায় মৃত্যু বেড়ে ২৭, বহু নিখোঁজ         শেখ রাসেলের সমাধিতে আ’লীগের শ্রদ্ধা