ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

যুদ্ধাপরাধী বিচার

সাখাওয়াতসহ ৯ জনের পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু

প্রকাশিত: ০৫:৫৬, ১৪ জুলাই ২০১৬

সাখাওয়াতসহ ৯ জনের পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে যশোর-৬ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মাওলানা সাখাওয়াত হোসেনসহ ৯ জনের পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু করেছেন আসামিপক্ষের আইনজীবী। প্রসিকিউশনের আনা পাঁচ অভিযোগের তিনটির বিষয়ে যুক্তি উপস্থাপন শেষ করা হয়েছে। বুধবার ট্রাইব্যুনালের নির্দেশে রাষ্ট্রীয় খরচে নিযুক্ত আইনজীবী আব্দুস শুকুর খান তার আসামির পক্ষে যুক্তি খ-ন শেষ করেছেন। তবে সাখাওয়াত হোসেনের আইনজীবী আব্দুস সাত্তার পালোয়ান তিনটি অভিযোগে যুক্তি পেশ করেছেন। এর আগে মঙ্গলবার আসামিদের বিরুদ্ধে যুক্তি উপস্থাপন শেষ করেছে রাষ্ট্রপক্ষ। অন্যদিকে মৌলভীবাজারের বড়লেখার আব্দুল মান্নান ওরফে মনাই মিয়াসহ তিন জনের বিরুদ্ধে তদন্তের অগ্রগতি প্রতিবেদন জমা দেয়ার জন্য আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর ঠিক করেছেন ট্রাইব্যুনাল। চেয়ারম্যান বিচারপতি আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ বুধবার এ আদেশ প্রদান করেছেন। যশোর-৬ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মাওলানা সাখাওয়াত হোসেনসহ ৯ জনের পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু করেছেন আসামিপক্ষের আইনজীবী। মামলায় সাখাওয়াত ছাড়া অন্য আসামিরা হলেন, মোঃ বিল্লাল হোসেন (৭৫), মোঃ ইব্রাহিম হোসেন (৬০), শেখ মোহাম্মদ মুজিবর রহমান (৬১), মোঃ আঃ আজিজ সরদার (৬৫), আঃ আজিজ সরদার (৬৬), কাজী ওহিদুল ইসলাম (৬১), মোঃ লুৎফর মোড়ল (৬৯), আব্দুল খালেক মোড়ল (৬৮)। এদের মধ্যে সাখাওয়াত হোসেনসহ ৩ জনকে গ্রেফতারের পর কারাগারে রয়েছেন। বাকিরা পালাতক। রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষ করার পর আসামিপক্ষ তাদের প্রাথমিক যুক্তি উপস্থাপন শুরু করেছেন। একই সঙ্গে আজ বৃহস্পতিবার মামলায় সর্বশেষ যুক্তি উপস্থাপনের জন্য দিন ঠিক করেছে ট্রাইব্যুনাল। মঙ্গলবার ট্রাইব্যুনালে আসামিদের বিরুদ্ধে যুক্তি উপস্থাপন করেন প্রসিকিউটর জেয়াদ আল মালুম, সঙ্গে ছিলেন রেজিয়া সুলতানা। অপরদিকে আব্দুস সাত্তার পালোয়ান এবং অন্যদের পক্ষে ছিলেন রাষ্ট্র নিযুক্ত আইনজীবী আব্দুস শুকুর খান। এর আগে গত ৯ ফেব্রুয়ারি থেকে এই মামলায় প্রসিকিউশনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়। রাষ্ট্রপক্ষে প্রসিকিউশনের আনা ১৭ জন সাক্ষী তদের জবানবন্দী পেশ করেন। অপরদিকে আসামিপক্ষে কোনও সাফাই সাক্ষী ছিল না।
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২