মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

জাতীয় ফুটবল দল ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ!

প্রকাশিত : ১৮ জুন ২০১৫
  • দুই বিদেশী কোচের সঙ্গে আজ বৈঠক সালাউদ্দিনের
  • ক্রুইফকে রাখার পক্ষে বাফুফে সভাপতি
  • পারফর্মেন্স পর্যালোচনা করে চুক্তি নবায়নের সম্ভাবনা
  • আসছেন স্প্যানিশ কোচ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ‘কোচকে কেন বিদায় করব? দল তো ভালই খেলছে। প্রতি পজিশনেই খেলোয়াড়রা ভাল খেলছে। শুধু সমস্যা এক জায়গায়। সেটপিসে গোল খাওয়া এবং সেটা বেশিরভাগ সময়ই খেলার শেষদিকে। এখানে আমাদের ফরোয়ার্ডরাই এ জন্য দায়ী। দল এক গোলে এগিয়ে থাকলেও তারা কোচের নির্দেশ না মেনে পেছনে নেমে রক্ষণ সামলায় এবং নিজেদের সীমানায় প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়কে ফাউল করে দলের বিপদ ডেকে আনে। লক্ষ্য করলে দেখবেন রক্ষণভাগের খেলোয়াড়রা নয়, বরং আক্রমণভাগের খেলোয়াড়রাই ফাউল করে বিপক্ষ দলগুলোকে সেটপিস থেকে গোল করার সুযোগ করে দিচ্ছে। তাজিকদের বিপক্ষেও তাই হয়েছে। ফরোয়ার্ড এমিলিই ফাউল করেছিল। আর সেই সেটপিসকে কাজে লাগিয়েই তাজিকরা শেষ সময়ে গিয়ে গোল করে আমাদের জয়বঞ্চিত করে।’ কথাগুলো কাজী মোঃ সালাউদ্দিনের, স্বাধীন বাংলাদেশ ফুটবলের সেরা এই ফুটবলার একসময় নিজেও ক্লাব পর্যায়ের পাশাপাশি জাতীয় দলেরও কোচের দায়িত্ব পালন করেছেন। তাও আবার তিন দফায়! আজ বৃহস্পতিবার বাফুফে ভবনে দুপুরে বাংলাদেশ জাতীয় দলের ডাচ্ কোচ লোডভিক ডি ক্রুইফ এবং জার্মান গোলরক্ষক কোচ ক্রিস্টিয়ান শোয়েচলারের সঙ্গে এক বৈঠকে মিলিত হবেন সালাউদ্দিন এবং জাতীয় দল ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যরা। উদ্দেশ্য, ক্রুইফ-শোয়েচলারের সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ বৃদ্ধি করা যায় কি না এবং জাতীয় ফুটবল দলের সমস্যা নিয়ে করণীয় কি, সেটা নিয়ে আলোচনা/পরামর্শ করা।

ক্রুইফ-শোয়েচলারের সঙ্গে বাফুফের চুক্তি ছিল ফিফা বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের বাছাইপর্বের প্রথম দুটি ম্যাচ এবং দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ পর্যন্ত। মঙ্গলবার তাজিকিস্তানের সঙ্গে ম্যাচ শেষে ক্রুইফ-শোয়েচলারের সঙ্গে বাফুফের চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। ফলে স্বভাবতই প্রশ্ন চলে আসেÑ এই দুই কোচকে রাখা হবে কি না?

বাফুফে সভাপতির চোখে জাতীয় ফুটবল দলের উন্নতির পাশাপাশি কিছু ভুলত্রুটিও ধরা পড়েছে, ‘দলের সার্বিক পারফর্মেন্সে আমি অখুশি নই। তবে মনে হয়েছে সুযোগ সন্ধানী গোলদাতার বড়ই অভাব। তাছাড়া খেলায় এক গোলে এগিয়ে থাকলে কোচের নির্দেশ না মেনে খেলোয়াড়দের সবার অতিমাত্রায় রক্ষণাত্মক খেলা। সবাই মনে হচ্ছে মাঠে নেমে কোচের এসব নির্দেশ ভুলে যায়। ফলে শেষেদিকে এসে খেলা গুলিয়ে ফেলে। এটা একটা বাতিকে হয়ে গেছে। সেটপিস ক্যান্সার হয়ে গেছে! গত সাফ ফুটবলের সেমিতেও আমরা ভারতের বিরুদ্ধে শেষ সময়ে গোল খেয়েছি। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের ফাইনালসহ সম্প্রতি একাধিক ম্যাচেও একই অবস্থা। কালকের (বৃহস্পতিবার) মিটিংয়ে আমি কোচের কাছে জানতে চাইব, কিভাবে এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যায়।’

আরেকটা বিষয়ও চোখে পড়েছে সালাউদ্দিনের, ‘ভাল প্রতিপক্ষের সঙ্গে আমরা ভাল খেলি। অথচ খারাপ প্রতিপক্ষের সঙ্গে আমরা খারাপ খেলি। এটা বিস্ময়কর। কিরগিজস্তান এবং তাজিকিস্তানের ম্যাচ দুটিই তার প্রমাণ। কিরগিজস্তান আমাদের চেয়ে র‌্যাঙ্কিংয়ে ১১ ধাপ পিছিয়ে, তাদের সঙ্গে হারলাম। অথচ তাজিকিস্তান আমাদের চেয়ে ২৭ ধাপ এগিয়ে, তাদের সঙ্গে ভাল খেললাম।’

কেন বাংলাদেশ সেটপিসে গোল খায়? সালাউদ্দিনের ব্যাখ্যা, ‘আমাদের দেশী রেফারিরা লীগে বা টুর্নামেন্টে গোল সীমানায় যে ফাউলগুলো ধরেন না, সেই ফাউলগুলোই ধরেন বিদেশী রেফারিরা। ফলে বড় ক্লাবের খেলোয়াড়রা এতে অভ্যস্ত হয়ে পড়েন। তারাই যখন জাতীয় দলের হয়ে খেলতে যান, তখন অভ্যাসবশত সেই ফাউলগুলোই আবার করেন এবং দলের বিপদ ডেকে আনেন।’ সবমিলিয়ে একটি গোছানো, পরিচ্ছন্ন এবং পরিপূর্ণ জাতীয় ফুটবল দল প্রত্যাশা করছেন সালাউদ্দিন।

বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ বলেছেন, ‘এশিয়ান কাপের বাছাইপর্বে বাংলাদেশের পরবর্তী ম্যাচ আগামী ৩ সেপ্টেম্বর, অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে, তাদের মাঠে। অস্ট্রেলিয়া এশিয়ান কাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন। তাদের বিরুদ্ধে খেলার আগে তাদের সমমানের দলগুলোর সঙ্গে একাধিক প্রস্তুতি ম্যাচ খেলা যায় কি না, এ জন্য কবে নাগাদ জাতীয় দলের ক্যাম্প শুরু করা যায়Ñ সে বিষয়ে কোচের কাছ থেকে পরামর্শ চাওয়া হবে।’ সেই সঙ্গে সোহাগ আরও জানান, ক্রুইফ-শোয়েচলারের কোন বেতন বকেয়া নেই এবং তাদের সব ধরনের সুযোগ-সুবিধাই এতদিন দেয়া হয়েছে।

বাফুফের একটি সূত্র থেকে জানা গেছে, ক্রুইফের সঙ্গে বনিবনা না হলে জাতীয় দলে নতুন কোচ নিয়োগ দেয়া হবে। তিনি স্প্যানিশ কোচ গঞ্জালো সানচেজ মরিনহো। মঙ্গলবার তাজিকিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশের ম্যাচের সময় জাতীয় দল ব্যবস্থাপনা কমিটির গুরুত্বপূর্ণ সদস্য তাবিথ আউয়ালের সঙ্গে ভিআইপি গ্যালারিতে দেখা গেছে গঞ্জালোকে। কিরগিজস্তানের বিপক্ষে ম্যাচেও এই স্প্যানিশ ছিলেন ভিআইপিতে। বাফুফের আমন্ত্রণেই না কি বাংলাদেশে এসেছেন। ঢাকায় অবস্থান করছেন দুই সপ্তাহ ধরে। তার স্ত্রী ঢাকায় জাতিসংঘের বাংলাদেশ শাখায় কর্মরত। গঞ্জালো স্পেনের বার্সেলোনা ‘বি’ দলের হয়ে খেলেছেন পাঁচ বছর। মূল দলে খেলার সুযোগ পেয়েছেন মাত্র দুটি ম্যাচে। এই রাইট ব্যাক লা লিগার দল আলমেরিয়াতে খেলেছেন দুই বছর। মামুনুলদের কোচ না হলেও বাফুফে একাডেমির কোচ হিসেবেও তাকে নিয়োগ দেয়ার ইঙ্গিত মিলেছে।

প্রকাশিত : ১৮ জুন ২০১৫

১৮/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: