মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বুড়ো ভোগসের অভিষেক সেঞ্চুরি!

প্রকাশিত : ৬ জুন ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সেঞ্চুরিতে ডমিনিকা মাতালেন ‘বুড়ো’ ভোগস! আভিজাত্যের সাদা পোশাকে বয়সীরা ভাল করবেন, এটাই স্বাভাবিক। ৩৬-এ পা রাখা কারও নামের পাশে যদি ‘অভিষেক’ যোগ হয়, তবে নড়েচড়ে বসতে বাধ্য! কা-টা এমনই মজার! ৩৫ বছর ২৪২ দিন বয়সে ‘অভিষেক সেঞ্চুরি’ হাঁকিয়ে নতুন রেকর্ড গড়েছেন এ্যাডাম ভোগস। কঠিন পরিস্থিতিতে খেলেছেন অপরাজিত ১৩০ রানের দৃষ্টিনন্দন ইনিংস। এর সৌজন্যে প্রথম ইনিংসে ৩১৮ রান করে দুই দিনেই ডমিনিকা টেস্টে চালকের আসনে অতিথি অস্ট্রেলিয়া।

এক ভোগসের রেকর্ডময় অংশটুকু বাদ দিলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ-অস্ট্রেলিয়া দুই ম্যাচ সিরিজে প্রথম টেস্টের প্রথম দু’দিন ছিল বোলারদের। অসি পেস তোপে ১৪৮ রানে অলআউট উইন্ডিজ। জবাবে একপর্যায়ে ১২৬ রান তুলতেই শীর্ষ ৬ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে সফরকারী অসিরাও চোখে সরষে ফুল দেখছিল। এরপরই দৃশ্যপটে ভোগস। টেলএন্ডারদের নিয়ে দলকে একাই নিয়ে গেলেন চালকের আসনে! ৩১৮ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়া অসিরা উল্টো ১৭০ রানে এগিয়ে। জবাবে দ্বিতীয় ইনিংসে ২৫ রানে ২ উইকেট হারিয়ে কার্যত তৃতীয় দিনের শুরুতেই হারের গন্ধ পাচ্ছিল ক্যারিবীয়রা। ৮ উইকেট হাতে থাকা উইন্ডিজ পিছিয়ে ১৪৫ রানে।

বোলারদের একচ্ছত্র আধিপাত্যের মাঝে দু’দলের প্রথম ইনিংসের গল্পটা কেবলই ভোগসের। দেবেন্দ্র বিশুরু ঘূর্ণি ছোবলে (৬/৮০) একের পর এক সাজঘরে অস্ট্রেলিয়া ব্যাটসম্যান। ব্যক্তিগত ৮ রান করা অভিজ্ঞ ব্র্যাড হ্যাডিনকে যখন পরিষ্কার বোল্ড করেন, ৪৪ ওভারে ১২৬ রানে ৬ উউকেট নেই ওয়ানডের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের। পাঁচ নম্বরের মতো গুরুত্বপূর্ণ পজিশনে ভোগস ছিলেন অবিচল। টপঅর্ডারে অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক (১৮), স্টিভেন স্মিথ (২৫) আর শেন ওয়াটসনের (১১) মতো বড় তারকারা যেখানে ব্যর্থ, সেখানে তাঁকে দারুণ সঙ্গ দিয়েছেন টেলএন্ডাররা। শেষ ব্যাটসম্যান জস হ্যাজলউডকে (৩৯) নিয়ে গড়েন ইনিংসের সর্বোচ্চ ৯৭ রানের জুটি! তার আগে মিচেল জনসন (২০) ও নাথান লেয়নেরস (২২) সঙ্গে যথাক্রমে ৫২ ও ৪৩।

শেষ মুহূর্তে ক্রিস রজার্স ইনজুরির জন্য ছিটকে গেলে ডমিনিকা টেস্ট দিয়ে সাদা পোশাকে অভিষেক হয় ৩৫-উর্ধ ভোগসের, ২০০৭ সাল থেকে যিনি দলের হয়ে খেলেছেন ৩১ ওয়ানডে ও ৭ টি২০। অভিষেকটাকে রঙিন করে তোলেন ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার ভাগ্য বিড়ম্বিত এই ব্যাটসম্যান। ডানহাতি ব্যাটিংয়ে একাই শাসন করেন ক্যারিবীয় বোলারদের।

২৪৭ বলে ১৩ চার ও ১ ছক্কায় খেলেন অপরাজিত ১৩০ রানের মনোমুগ্ধকর ইনিংস। টেস্টে অভিষেকে সেঞ্চুরি হাঁকানো ১০১ নম্বর ব্যাটসম্যান ভোগস। সর্বশেষ ২০১৪ সালের ১৭ ডিসেম্বর দক্ষিণ আফ্রিকার ভ্যান জল এই তালিকায় নাম লিখিয়েছিলেন। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে সর্বশেষ অভিষেকে তিন অঙ্কের দেখা পেয়েছিলেন শন মার্শ, ২০১১ সালের সেপ্টেম্বরে শ্রীলঙ্কা সফরে। তবে একটা জায়গায় সবাইকে ছাড়িয়ে গেছেন ভোগস। সবচেয়ে বেশি বয়সে অভিষেকে সেঞ্চুরির নতুন রেকর্ড গড়লেন তিনি। ৩৫ বছর ১১৮ দিন বয়সে এতদিন রেকর্ডটি ধরে রেখেছিলেন সাবেক জিম্বাবুইয়ান তারকা ডেভিড হটন। হারারেতে ১৯৯২ সালের অক্টোবরে ভারতের বিপক্ষে অভিষেক টেস্টে ১২১ রান করেছিলেন তিনি। ২৩ বছর পর সেখানে নিজের নামটি খোদাই করে নিলেন এ্যাডাম ভোগস।

প্রকাশিত : ৬ জুন ২০১৫

০৬/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: