কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

আফগানদের বিপক্ষেও প্রস্তুত স্টার্ক

প্রকাশিত : ২ মার্চ ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে শ্বাসরুদ্ধকর লড়াইয়ের পর ১ উইকেটে হার মানে অস্ট্রেলিয়া। তবে শনিবার অকল্যান্ডের ইডেন পার্কে হারার আগে লো স্কোরিংয়ের সেই ম্যাচকে রোমাঞ্চিত করার নায়ক ছিলেন মিচেল স্টার্ক। মাত্র ২৮ রানের বিনিময়েই ৬ উইকেট নিয়ে নিউজিল্যান্ডের হৃদয়ে কাঁপন ধরিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তারপরও দলকে হারের লজ্জা থেকে বাঁচাতে পারেননি। তবে বুধবার আবারও মাঠে নামছে একাদশতম বিশ্বকাপের সহআয়োজক অস্ট্রেলিয়া। এবার তাদের প্রতিপক্ষ নবীন দল আফগানিস্তান। আর এই আফগানদের বিপক্ষেও জ্বলে উঠতে চান ২৫ বছর বয়সী মিচেল স্টার্ক। এ বিষয়ে অস্ট্রেলিয়ার পেসার মিচেল স্টার্ক বলেন, ‘পরের ম্যাচের আগে নিজেদের অনুশীলন করে ঝালিয়ে নেয়ার জন্য দুই দিন সময় পেয়েছি আমরা। তাই বুধবারের ম্যাচে আমাদের দৃষ্টি শুধুই জয়ে।’ এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘আমি ক্রিকেট খেলতে পারলে সবসময়ই খুশি। আমি কখনই বিশ্রাম চাই না। এই মুহূর্তে আমাদের দলে কোন ইনজুরি নেই। সবাই পুরোপুরি ফিট। সামনে আমাদের দুটি দীর্ঘ ফ্লাইট রয়েছে।’ বিশ্বকাপের নবীন দল আফগানিস্তানের বিপক্ষে বুধবারের ম্যাচটি হবে পার্থে। এরপর তাদের প্রতিপক্ষ শক্তিশালী শ্রীলঙ্কা। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া মুখোমুখি হবে স্কটল্যান্ডের। ১৪ মার্চ হোবার্টের সেই ম্যাচেও জয়ের বিকল্প ভাবছে না অসিরা। সহআয়োজক নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে মিচেল স্টার্ক একা জ্বলে উঠলেও মিচেল জনসন ছিলেন একেবারেই নিষ্প্রভ। মাত্র ৬ ওভার বলে করে নিউজিল্যান্ডকে ৬৮ রান উপহার দেন তিনি। তবে স্টার্কের বিশ্বাস যথাসময়েই জ্বলে উঠবেন জনসন। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আজ থেকে দুই বছর আগেও দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন জনসন। সে নিশ্চিতভাবেই আমাদের সেরা বোলার। তার কাছ থেকে অনেক কিছুই শিখার আছে আমাদের।’ অকল্যান্ডে অস্ট্রেলিয়া নিউজিল্যান্ডের ম্যাচে শুধু মিচেল স্টার্ক একাই আলো ছড়াননি। সেখানে দুই দলের পেসারাই দাপট দেখিয়েছেন। বিশেষ করে মিচেল স্টার্ক ও ট্রেন্ট বোল্ট ছিলেন অপ্রতিরোধ্য। পুরো ম্যাচে উইকেট পড়ে ১৯টি। তার মধ্যে ১১টাই শিকার করেছেন দুই তারকা স্টার্ক আর বোল্ট। প্রতিপক্ষের খেলোয়াড় হলেও মিচেল স্টার্কের পারফর্মেন্সে মুগ্ধ নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম। সেইসঙ্গে বোল্টের প্রশংসাও করেছেন তিনি। এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপের সব ম্যাচেই জয় পাওয়া কিউই দলপতি বলেন, ‘ম্যাচে দুই দলই দেখিয়েছে তাদের দলে কি রকম মানসম্পন্ন বোলার আছে। অসাধারণ এক পরিববেশ ছিল। ম্যাচে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে। বোল্ট আমাদের হয়ে এবং স্টার্ক অস্ট্রেলিয়ার হয়ে দুর্দান্ত পারফর্মেন্স করেছে। আমরা দারুণ গতির বোলিং ও সুইং দেখলাম। সবাই তিন শ’র বেশি স্কোর দেখতে চেয়েছিল। কিন্তু ১৫০ রানই উত্তেজনা ছড়িয়েছে। এটা অস্বীকার করার কোন উপায় নেই যে সবাই দারুণ উপভোগ করেছে ম্যাচটি।’

প্রকাশিত : ২ মার্চ ২০১৫

০২/০৩/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: