রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

শৃঙ্খলা ভঙ্গ

প্রকাশিত : ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
শৃঙ্খলা ভঙ্গ
  • দেশে ফেরত পাঠানো হচ্ছে আল আমিন হোসেনকে

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে বিশ্বকাপ না খেলেই ফিরে আসতে হচ্ছে পেসার আল আমিন হোসেনকে। এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপে বাংলাদেশের দুই ম্যাচ হয়েছে। একটি ম্যাচেও খেলার সুযোগ পাননি আল আমিন। এর মধ্যে আবার ব্রিসবেনে রাত ১০টার আগে হোটেল রুমে না আসার শৃঙ্খলা ভঙ্গ জুড়ে গেছে। তাই দ্রুতই আল আমিনকে দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করা হচ্ছে। আল আমিনের পরিবর্তে আরেক পেসার শফিউল ইসলামের বিশ্বকাপ খেলতে যাওয়ার সম্ভাবনার কথাই শোনা যাচ্ছে।

এরইমধ্যে আল আমিনকে দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য আইসিসির কাছে জানানোও হয়েছে। রাত ১০টার মধ্যে টিম হোটেলে ফিরতে হবে, বিশেষ ক্ষেত্রে টিম ম্যানেজমেন্টের অনুমতিক্রমে ১০টার পরও বাইরে থাকা যাবে। কিন্তু আল-আমিন ম্যানেজমেন্টের কোন অনুমতি নেননি, আবার রাত ১০টার মধ্যে হোটেলেও ফিরেননি। অথচ বিষয়টি জানতই না বাংলাদেশ বিশ্বকাপ দলের টিম ম্যানেজমেন্ট। আকসুর (আইসিসির দুর্নীতিবিরোধী ও নিরাপত্তা বিষয়ক ইউনিট) কাছ থেকে বিষয়টি জানতে পেরেছে ম্যানেজমেন্ট। এরপর যখন কেন বাইরে থাকতে হয়েছে? আল আমিনকে এ প্রশ্ন করা হয়েছে, কোন সদুত্তর মিলেনি। তাই আল আমিনকে দেশে ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

বিশ্বকাপ ক্রিকেটে বাংলাদেশ যখন আগামী ম্যাচগুলোতে ভাল কিছু করার প্রত্যাশায়, তখন রবিবার অপ্রত্যাশিত এক খবর নাড়া দিয়েছে দেশের ক্রিকেটাঙ্গনকে। বিশ্বকাপ মিশনে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছেন বাংলাদেশের পেসার আল-আমিন হোসেন। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গত ১৯ ফেব্রুয়ারি ব্রিসবেনের স্থানীয় সময় রাত ১০টার পরও বিনা অনুমতিতে টিম হোটেলের বাইরে ছিলেন আল-আমিন। যে কারণে শাস্তি হিসেবে তাকে দেশে ফেরত পাঠানো হচ্ছে।

বাংলাদেশ দলের ম্যানেজার খালেদ মাহমুদের বরাত দিয়ে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ক্রিকইনফো। সুজন ক্রিকইনফোকে বলেছেন, ‘সাধারণত একজন ক্রিকেটারকে রাত ১০টার পরে টিম হোটেলের বাইরে থাকতে হলে ম্যানেজমেন্টের অনুমতি নিতে হয়।

কিন্তু আমরা জানতাম না যে সে এই সময়েও হোটেলের বাইরে রয়েছে। পরবর্তী সময়ে আকসুর কাছ থেকে বিষয়টি জানতে পারি আমরা। যত দ্রুত সম্ভব তাকে দেশে ফেরত পাঠানো হবে।’

আল-আমিন কেন হোটেলের বাইরে ছিলেন এর কারণ এখনও জানা যায়নি। তবে সুজন ক্রিকইনফোকে নিশ্চিত করেছেন যে, বিষয়টির সঙ্গে দুর্নীতি জাতীয় কোন বিষয়ের সম্পর্ক নেই। নিছকই এটি দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের শাস্তি। আল-আমিনের পরিবর্তে পেসার শফিউল ইসলামকে অস্ট্রেলিয়ায় পাঠানো হবে বলে শোনা যাচ্ছে।

প্রকাশিত : ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৩/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: