৭ এপ্রিল ২০২০, ২৪ চৈত্র ১৪২৬, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

দক্ষিণ কোরিয়া ইতালি ইরানে পরিস্থিতির অবনতি

প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০
  • ইরানের স্বাস্থ্য উপমন্ত্রী এমপির করোনাভাইরাস

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে সারাবিশ্বে এ পর্যন্ত ২ হাজার ৭০২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। ভাইরাসে আক্রান্ত সংখ্যা হয়েছে ৮০ হাজার ১৫০ জন। গত ডিসেম্বরের শেষে মধ্য চীনের উহান থেকে ছড়াতে শুরু করা এ রোগ প্রায় ৩৭ দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। আক্রান্ত ও মৃত্যুর ঘটনার অধিকাংশই চীনের মূল ভূখণ্ডে।

এদিকে ইরান, দক্ষিণ কোরিয়া ও ইতালিতে পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে। ইরানের উপ-স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও একজন এমপির করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। খবর সিএনএন, বিবিসি ও আলজাজিরার।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানায়, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবকে তারা এখনই ‘মহামারী’ তকমা দিচ্ছে না। কিন্তু পরিস্থিতি যাতে সেদিকে না যায়, সেজন্য সব দেশকেই প্রস্তুতির মধ্যে থাকতে হবে। ভাইরাসের সংক্রমণে ফ্লুর মতো উপসর্গ নিয়ে যে রোগ হচ্ছে, তাকে বলা হচ্ছে কভিড-১৯।

চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশনের তথ্য অনুযায়ী, সোমবার দেশটির মূল ভূখণ্ডে ৫০৮ জনের শরীরে নতুন করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। আগের দিন এই সংখ্যা ছিল ৪০৯ জন। সব মিলিয়ে দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৭৭ হাজার ৬৫৮ জন। আর বিশ্বে এ সংখ্যা ৮০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। সোমবার চীনে মোট ৭১ জনের মৃত্যু হয়েছে নতুন এ করোনাভাইরাসে। এর মধ্যে ৬৮ জনই মারা গেছেন হুবেই প্রদেশে, যে অঞ্চলকে এ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কেন্দ্রভূমি বলা হচ্ছে। চীনের মূল ভূখণ্ডে নতুন করোনাভাইরাসে মৃত্যুর মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৬৬৩ জনে। মূল ভূখণ্ডের বাইরে আরও দশজনের মৃত্যু হয়েছে সোমবার, সব মিলিয়ে চীনের বাইরে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৯ জন। তাদের মধ্যে ইরানে ১৬ জন, দক্ষিণ কোরিয়া ও ইতালিতে সাতজন করে, জাপানে চারজন, হংকংয়ে দুজন এবং ফিলিপিন্স, ফ্রান্স ও তাইওয়ানে একজন করে আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে। এক সপ্তাহ আগেও নতুন করোনাভাইরাসের প্রকোপ চীনের মধ্যেই ছিল বেশি। কিন্তু কয়েকদিনে দক্ষিণ কোরিয়া, ইতালি ও ইরানের পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি ঘটেছে। সোমবার ইরাক, আফগানিস্তান, কুয়েত, ওমান ও বাহরাইনেও রোগীর খোঁজ পাওয়া গেছে।

মধ্যপ্রাচ্যে বিমান চলাচলে বিপর্যয়

বিমান চলাচলে আরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো। চীন থেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস মহামারীর বিস্তার ও সংক্রমণ ঠেকাতে এমন পদক্ষেপ নিচ্ছে তারা। বৈশ্বিক বিমান চলাচলের হাব হিসেবে পরিচিত সংযুক্ত আরব আমিরাত তেহরান ছাড়া ইরানের সঙ্গে সকল ধরনের ফ্লাইট বাতিল ঘোষণা করেছে। এর মধ্যে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই এবং শারজাহ বিমানবন্দরে চলাচলকারী সকল ফ্লাইট পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত বাতিল করেছে বাহরাইন। এছাড়া ওমান জর্দান, কুয়েত, ইরাক ও সৌদি আরব ইরানের সঙ্গে সব ফ্লাইট বাতিল করেছে। করোনাভাইরাস আতঙ্ক আর এর বিস্তার ঠেকাতে গোটা বিশ্বের বিমান পরিবহন সংস্থাগুলো তাদের ফ্লাইটের সংখ্যা কমিয়ে দিয়েছে।

ইরানের মন্ত্রী-এমপির করোনাভাইরাস

ইরানের উপ-স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও একজন এমপির নোভেল করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। মধ্যপ্রাচ্যের দেশটিতে এই রোগে এরই মধ্যে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। ইরানের উপ-স্বাস্থ্যমন্ত্রী ইরাজ হারিরচি এক ভিডিও বার্তায় নিজেকে বিচ্ছিন্ন রাখা ও ওষুধ সেবন শুরু করার কথা জানিয়েছেন বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে বার বার তাকে কপাল মুছতে দেখা যায়। ওই সংবাদ সম্মেলনে কভিড-১৯ নাম পাওয়া এই রোগের প্রকোপ নিয়ে সরকার সঠিক তথ্য দিচ্ছে না বলে অভিযোগ নাকচ করেন তিনি।

অস্ট্রিয়া-ক্রোয়েশিয়ায় করোনাভাইরাস রোগী শনাক্ত

আরও দুই দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। যার মাধ্যমে ৩৮টি দেশে বিস্তার লাভ করল কভিড-১৯ রোগটি। সবশেষ যুক্ত হওয়া দেশ দুটি হলো- অস্ট্রিয়া ও ক্রোয়েশিয়া। এ বিষয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম জানায়, অস্ট্রিয়ায় দুজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার পর তাদের শরীরে ভাইরাসটি পজেটিভ পাওয়া যায়। তবে তাদের জাতীয়তা জানানো হয়নি। অন্যদিকে একজন করোনা আক্রান্ত রোগীর তথ্য নিশ্চিত করেছেন ক্রোয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী আন্দ্রেজ প্লেনোভিচ। আক্রান্ত ব্যক্তি সম্প্রতি ইতালি সফর করেছেন বলেও জানান তিনি।

প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০

২৬/০২/২০২০ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: