ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯

৭২ বছর বয়সে মারা গেছেন ৭০ বিশ্বকাপ জয়ী ব্রাজিলের অধিনায়ক

আলবার্তোর জন্য পেলের শোক

প্রকাশিত: ০৬:২২, ২৭ অক্টোবর ২০১৬

আলবার্তোর জন্য পেলের শোক

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ হেরে গেলেন কার্লোস আলবার্তো টোরেস। হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে ৭২ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন ব্রাজিলের অন্যতম সেরা ফুটবলার। মঙ্গলবার রিও ডি জেনেরিওতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ১৯৭০ বিশ্বকাপের অধিনায়ক কার্লোস আলবার্তো। অধিনায়ক ও সতীর্থ কার্লোস আলবার্তোর প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি পেলে। ১৯৭০ সালে আলবার্তোর অধিনায়কত্বেই মেক্সিকো বিশ্বকাপের শিরোপা জিতেছিল ব্রাজিল। সেটি ছিল সেলেসাওদের তৃতীয় বিশ্বকাপ শিরোপা। ওই বিশ্বকাপেই পেলে নিজেকে বিশ্বের সামনে অতিমানবীয় এক ফুটবলার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন। আর সেই দলেরই অধিনায়ক হিসেবে ফাইনালে ইতালিকে ৪-১ গোলে বিধ্বস্ত করা ছিল কার্লোস আলবার্তোর অন্যতম সেরা সাফল্য। সেই সময়ে বিশ্বের অন্যতম সেরা রাইট ব্যাক হিসেবে আলবার্তোকে বিবেচনা করা হতো। আলবার্তোর হাত ধরেই মূলত জুলেরিমে ট্রফিটা পেলেদের হাতে উঠেছিল। জাতীয় দল ছাড়াও পেলে ও কার্লোস আলবার্তো একসাথে নিজের ঘরের ক্লাব সান্তোসে দীর্ঘদিন খেলেছেন। উত্তর আমেরিকান সকার লীগে নিউইয়র্ক কসমসেও দু’জন ছিলেন সতীর্থ। ব্যক্তিগত জীবনেও তারা ছিলেন একে অন্যের দারুণ বন্ধু। তাই বন্ধু-সতীর্থথের মৃত্যুতে বাকরুদ্ধ পেলে। এক বিবৃবিতে তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রিয় ‘ক্যাপিটা’, আমার বন্ধু ও ভাই কার্লোস আলবার্তোর মৃত্যুতে আমি সত্যিই দারুণ ব্যথিত। সান্তোস, জাতীয় দল ও কসমসে একসাথে খেলার স্মৃতিগুলো এখন আমার মনে পড়ছে। তিনটি দলের হয়েই আমরা চ্যাম্পিয়ন ছিলাম। দুর্ভাগ্যবশতঃ এখন আমাদের এই শোক মেনে নিতে হবে, জীবন এভাবেই চলবে। তার পরিবারের প্রতি আমার সমবেদনা রইল।’ কার্লোস আলবার্তোর মৃত্যুত্যে সান্তোসের সাথে যৌথভাবে তিনদিনের শোক ঘোষণা করেছে ব্রাজিলিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (সিবিএফ)। সিবিএফের পক্ষ থেকে শোক জানিয়ে বিবৃতিও দেয়া হয়েছে। সিবিএফের পতাকা অর্ধনমিত করা হয়েছে। সিবিএফের অধীনে সব প্রতিযোগিতায় ম্যাচ শুরুর আগে এক মিনিট নীরবতা পালন করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে এবং তিনদিনের জন্য শোক ঘোষণা করা হয়েছে। এ প্রসঙ্গে সিবিএফ এক বিবৃতিতে জানায়, ‘সিবিএফের প্রেসিডেন্ট মার্কো পোলো ডেল নিরো তিনদিনের জন্য অফিসিয়ালি শোক ঘোষণা করেছেন। সংগঠনের সদর দফতরের পতাকা অবশ্যই অর্ধনমিত থাকবে। আমাদের ফুটবলের উন্নয়নে কার্লোস আলবার্তো টোরেসের ত্যাগ-তিতিক্ষা অপরিসীম। ধন্যবাদ ক্যাপিটা। আপনার গল্প সবসময়ই আমাদের সাথে থাকবে।’ নিউইয়র্ক কসমসের পক্ষ থেকেও শোক জানিয়ে বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কার্লোস আলবার্তো শুধু কিংবদন্তি খেলোয়াড়ই ছিলেন না, চমৎকার একজন মানুষও ছিলেন। তার মতো একজন খেলোয়াড় এই ক্লাবে খেলায় আমরা সত্যিকার অর্থেই কৃতার্থ। তিনি সবসময়ই কসমস পরিবারের একজন অংশ হয়েই থাকবেন। ব্রাজিলের রাষ্ট্রপতি মাইকেল টিমারও শোক জানিয়ে টুইটারে বার্তা দিয়েছেন। আলবার্তোর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন জার্মান কিংবদন্তি ফ্রাঞ্জ বেকেনবাওয়ারও। টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘তার মৃত্যুতে আমি গভীরভাবে শোকাহত। আমার কাছে তিনি ছিলেন একজন ভাইয়ের মতো। আমার সেরা একজন বন্ধুও ছিলেন তিনি।’ হাঁটুর ইনজুরির বিপক্ষে লড়াই করতে করতে ১৯৭৮ সালে আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় বলে দেন আলবার্তো। তার আগে ব্রাজিলের হয়ে ৫৩টি ম্যাচ খেলে যান তিনি। কোচ হিসেবেও আলবার্তোর ভূমিকা ছিল প্রশংসনীয়। তার সাবেক ক্লাব ফ্ল্যামেঙ্গোর হয়ে কোচ হিসেবে অভিষেক ঘটে তার। ১৯৮৩ সালে ব্রাজিলিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপও জিতেন তিনি। এরপর করিন্থিয়ান্স ও ফ্লুমিনেন্সের ডাগআউটেও দেখা গেছে তাকে। ২০০৪ সালে আজারবাইজানের প্রধান কোচ হওয়ার আগে নাইজিরিয়া এবং ওমানের কোচ হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছিলেন আলবার্তো।