মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

টাঙ্গাইলে শিশু ধর্ষণের বিচারের নামে প্রহসন

প্রকাশিত : ২৩ মে ২০১৫

নিজস্ব সংবাদদাতা, টাঙ্গাইল, ২২ মে ॥ মাত্র বিশ হাজার টাকা জরিমানা, কানে ধরে উঠবস আর কয়েক ঘা জুতা পিটিয়ে শিশু ধর্ষণের বিচার করলেন স্থানীয় মাতব্বররা। জরিমানার টাকাও রাখা হলো বাকি। অদ্ভুত এ বিচার হয়েছে মধুপুর উপজেলার পৌর শহরের চাড়ালজানী এলাকায়।

জানা যায়, মধুপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নাইট গার্ড নারায়ণ চন্দ্র গৌড়র (৫০) বিরুদ্ধে দ্বিতীয় শ্রেণীর এক শিশু ধর্ষণের ঘটনায় ওই বিচার নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মধুপুর পৌর শহরের চাড়ালজানীতে ধর্ষিত শিশুর মামার বাসায় এ বিচার বসে। বিচারে উপস্থিত থাকা একাধিক ব্যক্তি ওই বিচারকে প্রহসনের নামে ধর্ষককে রক্ষার কৌশল বলে অভিহিত করেছেন। এলাকাবাসী জানান, গত ১৭ মে মধুপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নাইট গার্ড নারায়ণ চন্দ্র গৌড় ওই এক শিশুকে চিপসের লোভ দেখিয়ে স্কুল ক্যাম্পাসে নিয়ে ধর্ষণ করেন। এ নিয়ে স্থানীয় উদ্যোগে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শিশুর মামার বাড়িতে বিচার বসে। বিচারে ২০ ঘা জুতার বাড়ি, কান ধরে উঠবস ও ২০ হাজার টাকা জরিমানার ঘোষণা হয়। বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের পিয়ন মধুকে ১০ ঘা জুতা পেটা করার পর থামিয়ে দেয়া হয়। দুইবার কান ধরে উঠবস করতেই থামিয়ে দেয়া হয় ধর্ষককে। আর জরিমানার বিশ হাজার টাকা রাখা হয় বাকি। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ধর্ষিত শিশুর মামা প্রথমে জরিমানার টাকা বাকি রাখার কথা স্বীকার করলেও পরক্ষণে রহস্যজনক কারণে প্রাপ্তি স্বীকার করেছেন। অন্যদিকে ওই বিচারে অংশ নেয়া স্থানীয় জনপ্রতিনিধি জরিমানার কথা অস্বীকার করেছেন। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি পরিমল কান্তি গোস্বামী সাংবাদিকদের জানান, নারায়ণ চন্দ্র গৌড়কে ডিউটি বন্ধ করে দিয়েছি এবং তদন্ত কমিটি গঠন করেছি।

প্রকাশিত : ২৩ মে ২০১৫

২৩/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: