কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

অধ্যাপক মমতাজউদদীন আহমদ ও আসাদুজ্জামান নূরকে সম্মাননা

প্রকাশিত : ১২ এপ্রিল ২০১৫
  • সংস্কৃতি সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ২০১৫ সালের সৈয়দ বদরুদ্দীন হোসাইন স্মারক সম্মাননা পেলেন নাট্যকার, নির্দেশক ও অভিনেতা অধ্যাপক মমতাজ উদ্দীন আহমদ এবং সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। শিল্পকলা একাডেমিতে পদাতিক নাট্যসংসদ আয়োজিত ‘সৈয়দ বদরুদ্দীন হোসাইন স্মৃতি নাট্যোৎসেবের শেষদিন শনিবার সন্ধ্যায় সংগঠনটির পক্ষ থেকে এ স্মারক সম্মাননা প্রদান করা হয়। নাট্যাঙ্গনে বিভিন্ন অবদান রাখার জন্য এই দুই ব্যক্তিকে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি ছিলেন নাট্যজন রামেন্দু মজুমদার ও মামুনুর রশীদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি তাসনীন হোসাইন তানু। সংগঠনের সম্মানিত সদস্য কাজী রফিকের স্বাগত বক্তব্যের মধ্য দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠান। এরপর শুরু হয় সম্মাননা প্রদান পর্ব। অধ্যাপক মমতাজ উদ্দীন আহমদ অসুস্থ থাকায় তাঁর পক্ষে সম্মাননা স্মারক গ্রহণ করেন তাঁরই ছাত্র অধ্যাপক জিয়াউল হাসান কিসলু। পরে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয় সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরকে। দুই ব্যক্তিত্বের হাতে এ সম্মাননা স্মারক তুলে দেন আইটিআই বিশ্ব সভাপতি রামেন্দু মজুমদার। আলোচনানুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, আজ খুবই আনন্দের একদিন। কেননা এই দিনে জন্মগ্রহণ করেছিলেন ভাষা সৈনিক, শিক্ষাবিদ, কলামিস্ট ও পদাতিক নাট্যসংসদের আজীবন সভাপতি সৈয়দ বদরুদ্দীন হোসাইন। তাঁর ৯২তম জন্মদিন উপলক্ষে ষষ্ঠবারের মতো পদতিকের পক্ষ থেকে আয়োজন করা হয়েছে নাট্যোৎসব। এবং যে গুণী ব্যক্তিদের আজ সম্মানিত করা হলো তাদের এ সম্মাননা আরও আগে হওয়া উচিত ছিল। মমতাজ উদ্দীন আহমদ যেমন একজন গুণী ব্যক্তি, আসাদুজ্জামান নূরও একজন গুণী ব্যাক্তি। নাট্যান্দোলনে উভয়ের ভূমিকা ছিল অগ্রগামী।

আর্ট লাউঞ্জে মাহবুবুর রহমানের শিল্পকর্ম প্রদর্শনী ॥ পঁচিশটি বছর ধরে শিল্প সাধনায় সম্পৃক্ত এক শিল্পী মাহাবুবুর রহমান। স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যে উজ্জ্বল তাঁর শিল্পকর্ম। শনিবার থেকে গুলশানের বেঙ্গল আর্ট লাউঞ্জে শুরু হলো তাঁর শিল্পকর্ম প্রদর্শনী। সন্ধ্যায় ডাস্ট টু ডাস্ট শীর্ষক এ প্রদর্শনী যৌথভাবে উদ্বোধন করেন সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক ও চিত্রশিল্পী শহীদ কবির।

ডাস্ট টু ডাস্ট প্রদর্শনীটিকে বলা যেতে পারে শিল্পী মাহবুবুর রহমানের বহুরূপী প্রচেষ্টার এক প্রয়াস। চারকোল ড্রয়িং থেকে শুরু করে শব্দ ও আলোর ব্যবহারে গড়েছেন নানা শিল্পজাত বস্তু ও স্থাপনাশিল্প। তিন সপ্তাহব্যাপী এ প্রদর্শনী চলবে আগামী ২ মে পর্যন্ত। প্রতিদিন বেলা ১২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত উন্মুক্ত থাকবে।

কমল কলি হোসেনের কাব্যগ্রন্থের প্রকাশনা ॥ প্রবাসী কবি কমল কলি হোসেন রচিত ‘জীবনের কবিতা’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন হয় জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে শনিবার বিকেলে। বইটির প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান পালক পাবলিশার্স আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কবির সহপাঠী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক ড. মাহমুদুর রহমান, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব মোঃ আবদুল মান্নান ও সঙ্গীতশিল্পী ডাঃ অরূপ রতন চৌধুরী। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মুক্তিযোদ্ধা মোঃ জয়নাল আবেদীন।

পাঁচ শিশুতোষ গ্রন্থের প্রকাশনা ॥ চতুর্থবারের মতো চন্দ্রবতী একাডেমি প্রকাশ করেছে ছোটদের আনন্দবার্ষিকী। এবি ব্যাংকের সহায়তায় এবার প্রকাশিত হয়েছে পাঁচ খ-ে। শনিবার বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদ মিলনায়তনে এ প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান। ইমিরেটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন, এবি ব্যাংকের চেয়ারম্যান এম ওয়াহিদুল হক, প্রেসিডেন্ট ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক শামীম আহমেদ চৌধুরী। সংকলন পরিষদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও চন্দ্রবতী একাডেমির উপদেষ্টা মাহফুজুর রহমান।

সভাপতির বক্তব্যে আনিসুজ্জামান বলেন, শিশুরা যেসব পাঠ্যবই হাতে পায় এতে করে তারা বইয়ের দুর্বল ছাপা ও বিন্যাসের জন্য সুন্দরভাবে গ্রহণ করতে পারে না। কিন্তু চন্দ্রবতী একাডেমির এই বইগুলো লেখা, অলঙ্করণ ও বাঁধাই মিলে মনরম হওয়ায় শিশুরা সানন্দে সেটিকে গ্রহণ করবে বলে আমার বিশ্বাস। বক্তব্যের একপর্যায়ে তিনি শিশুসাহিত্যে বিশেষ অবদান রাখার জন্য এবারের চন্দ্রবতী পুরস্কারপ্রাপ্ত লেখকদের নাম ঘোষণা করেন। তাঁরা হলেন হায়াৎ মামুদ, হালিমা খাতুন ও আলী ইমাম। আগামী অক্টোবর মাসে আনুষ্ঠানিকভাবে এ পুরস্কার প্রদান করা হবে বলে জানান তিনি।

‘বাংলাদেশের পথনাটক’ সংকলনের প্রকাশনা ॥ বাংলাদেশ পথনাটক পরিষদের উদ্যোগে প্রকাশিত হলো ‘বাংলাদেশের পথনাটক’ শীর্ষক একটি সংকলন। মিজানুর রহমান সম্পাদিত সংকলনটিতে বাংলাদেশের প্রবীণ-নবীন নাট্যকারদের ২৮টি পথনাটক মুদ্রিত হয়েছে। শনিবার মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে এ সংকলনের প্রকাশনা উৎসবের অনুষ্ঠিত হয়। সংকলনের মোড়ক উন্মোচন করেন ইন্টারন্যাশনাল থিয়েটার আর্ট ইনস্টিটিউটের (আইটিআই) সাম্মানিত সভাপতি রামেন্দু মজুমদার, নাট্যকার-অভিনেতা-নির্দেশক মামুনুর রশীদ, প্রবন্ধকার মফিদুল হক, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ, গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশানের চেয়ারম্যান ও শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী।

আইজিসিসির পঞ্চম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্যাপন ॥ শনিবার উদ্্যাপিত হলো ইন্দিরা গান্ধী সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের (আইজিসিসি) পঞ্চম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। উদ্্যাপনের অংশ হিসেবে সন্ধ্যায় অফিসার্স ক্লাব প্রাঙ্গণে পরিবেশিত হয় সৃষ্টি কালচারাল সেন্টার ও নৃত্যাঞ্চলের নৃত্যনাট্য ‘বাঁদী-বান্দার রূপকথা’। নৃত্যনাট্যটির নির্দেশনা দিয়েছেন ভারতের সুকল্যাণ ভট্টাচর্য।

প্রকাশিত : ১২ এপ্রিল ২০১৫

১২/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: