মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

মেঘনায় নৌযান চাঁদাবাজি ॥ বাধা দেয়ায় ১০ জনকে পিটিয়ে জখম

প্রকাশিত : ৬ এপ্রিল ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ ॥ সোনারগাঁওয়ে মেঘনা নদীতে নৌযানে চাঁদাবাজি চরমে পৌছেছে। মেঘনা নদীতে বৈদ্যেরবাজার মাছ ঘাট এলাকায় রবিবার সকালে চাঁদাবাজিতে বাধা দেওয়ায় ইজারাদারসহ ১০জনকে পিটিয়ে জখম করেছে সন্ত্রাসীরা। এদের স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এঘটনায় ইজারাদার আবুল হোসেন বাদী হয়ে সোনারগাঁও থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা গেছে, বিআইডব্লিউটিএর কাছ থেকে বৈদ্যেরবজারে মেঘনা নদীর তীরবর্তী এলাকায় বিভিন্ন নৌযান থেকে মালামাল লোড আনলোডের ইজারা পান মেসার্স আরব এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী আবুল হোসেন। এদিকে ওই ইজারাদার প্রতিষ্ঠানের নাম ভাঙিয়ে স্থানীয় কান্দারগাঁও গ্রামের মোহাম্মদ আলীর নেতৃত্বে ২০-২৫জনের একটি দল সিন্ডিকেট করে মাঝনদীতে বিভিন্ন নৌযানে অবৈধভাবে চাঁদা উত্তোলন করে আসছে। এ সিন্ডিকেট প্রতিটি নৌযান থেকে ৫শ’ থেকে ১৫শ’ টাকা পর্যন্ত চাঁদা আদায় করে থাকে। এ চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে গত এক সপ্তাহে বেশ কয়েকজন নৌ শ্রমিককে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। বিষয়টি ইজারাদার প্রতিষ্ঠানের লোকজন জানতে পেরে ওই সন্ত্রাসী বাহিনীকে চাঁদা উত্তোলনে বাধা দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রবিবার সকালে সন্ত্রাসী মোহাম্মদ আলীর নেতৃত্বে লিয়ন, আমজাদ, বকুল আরিফ,রাসেলসহ ১২-১৫জনের একটি দল দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বৈদ্যেরবাজার মাছঘাট এলাকায় এসে ইজারাদার আবুল হোসেনের ওপর হামলা চালায় ও তাকে মারধর করে। এসময় আশপাশের লোকজন আবুল হোসেনকে রক্ষা করতে এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা তাদের ওপরও চড়াও হয়। এতে মোক্তার হোসেন, জুয়েল, পারভেজ, নূরে আলম, ও জাহিদুল ইসলামসহ ১০জনকে পিটিয়ে জখম করে ওই সন্ত্রাসীরা। আহতদের স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। সোনারগাঁও থানার ওসি কামরুল ইসলাম জানান, হামলার ঘটনা জানতে পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

প্রকাশিত : ৬ এপ্রিল ২০১৫

০৬/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: