কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

পুড়িয়ে মানুষ হত্যা বন্ধ করুন ॥ প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ, মানববন্ধন

প্রকাশিত : ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মানুষ পুড়িয়ে হত্যা বন্ধ করা ও দেশের চলমান রাজনৈতিক সঙ্কট দ্রুত সমাধানের লক্ষ্যে বিভিন্ন সংগঠন ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছেন। শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এসব সমাবেশ ও মানববন্ধন হয়।

যারা দেশে আতঙ্ক সৃষ্টির মধ্য দিয়ে জঙ্গীবাদ কায়েম করে, দেশ ধ্বংস করে, মানবতাকে বিপর্যস্ত করে ক্ষমতায় যেতে চায় তারা ইসলাম তথা মানবতার বন্ধু নয়। তারা দেশ, জাতি, মানবতা, শান্তি ও সম্প্রীতির চরম শত্রু। যারা রাজনীতির নামে জ্বালাওপোড়াও ও মানুষ হত্যা করে সন্ত্রাসী রাজত্ব কায়েম করতে চায় তাদের সরকার কখন সফল হতে দেবে না। দেশের কিছু কুচক্রী মহল দেশে নৈরাজ্য ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে এদেশকে অস্থিতিশীল করে নিজেদের হীনস্বার্থ চরিতার্থ করতে চায়। তারা দেশকে একটি অকার্যকর রাষ্ট্র হিসেবে পরিণত করতে চায়। বাংলাদেশ ইউনাইটেড ইসলামী পার্টির উদ্যোগে সন্ত্রাসী কায়দায় পেট্রোলবোমা মেরে, জ্বালিয়ে-পুড়িয়ে মানুষ হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও আলেম-ওলামা সমাবেশ এবং বিক্ষোভ মিছিলে এসব কথা বলেন সংগঠনের চেয়ারম্যান মাওলানা মোঃ ইসমাইল হোসাইন। তিনি আরও বলেন, যারা হরতাল-অবরোধের নামে পেট্রোলবোমা মেরে, জ্বালিয়ে-পুড়িয়ে মানুষ হত্যা করে তারা দেশ ও জনগণের বন্ধু হতে পারে না। দলমত নির্বিশেষে সকল নাগরিকের সমঅধিকার নিশ্চিত করেছে ইসলাম। সমাজ-পরিবার- রাষ্ট্রের শান্তি বজায় রাখাই ধর্মীয় শিক্ষা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক বন ও পরিবেশমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, মুক্তিযোদ্ধাবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক প্রমুখ।

সিপিবি-বাসদের বিক্ষোভ সমাবেশ ॥ সহিংসতা বন্ধ, রাজনৈতিক সমাধান ও জামায়াত-শিবির নিষিদ্ধ দাবিতে সিপিবি-বাসদের বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বলেন, খালেদা জিয়ার আন্দোলন করার অধিকার থাকলেও পেট্রোলবোমায় মানুষ হত্যার অধিকার তার বা অন্য কারও থাকতে পারে না। পেট্রোলবোমার নাশকতা কঠোর হাতে দমনের দায়িত্ব সরকারের, কিন্তু তা দমনের জন্য আন্দোলন- সংগ্রাম দমনের অধিকার সরকারের থাকতে পারে না।

সিপিবি নেতা মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থায় ক্রসফায়ার, এনকাউন্টারসহ বিচারবহির্ভূত হত্যাকা- চলতে পারে না। আগুন দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা সংঘাত ও নৈরাজ্যের আগুনকে আরও বেশি প্রজ্বলিত করবে। সরকার প্রায় দেড়মাস ধরে ‘ডা-া মেরে ঠা-া করার’ পথ অনুসরণ করে চলছে । সমাবেশে বাসদ নেতা খালেকুজ্জামান বলেন, দেশে হিংসা নাশকতার প্রধান কারণ হলোÑ জামায়াত-শিবির এবং তাদের লালিত সাম্প্রদায়িক জঙ্গীগোষ্ঠী। এই অপশক্তিকে দ্রুত নির্মূলের প্রতিই প্রধান গুরুত্ব দেয়া উচিত। অবিলম্বে জামায়াত-শিবির নিষিদ্ধ করুন।

বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামানের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সিপিবির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবু জাফর আহমেদ, বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির জাহেদুল হক মিলু, সিপিবির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাজ্জাদ জহির চন্দন প্রমুখ। সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুরানা পল্টনে এসে শেষ হয়।

অন্যদিকে বাংলাদেশ ইসলামী যুবসেনার কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ বলেছেন, এই সঙ্কট সমাধান করতে হলে রাজনৈতিক দল, ওলামা-মাশায়েখ, বুদ্ধিজীবী, পেশাজীবী, সংগঠন ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে জাতীয় আয়োজনে রাষ্ট্রপতিকে উদ্যোগ নিতে হবে। বর্তমান সময়ের এই সঙ্কট জাতীয় সংলাপ ছাড়া সমাধানের কোন পথ নেই। জাতির এই ক্রান্তিলগ্নে রাষ্ট্রপতি দেশের অভিভাবক হিসেবে এই উদ্যোগ নিতে পারেন। নেতৃবৃন্দ রাষ্ট্রপতিকে খুব দ্রুত জাতীয় সংলাপ আয়োজনের উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানান।

প্রকাশিত : ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১৪/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: