মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বিমানের সব লোকসানী রুট এবার সত্যিই বন্ধ হচ্ছে!

প্রকাশিত : ৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

আজাদ সুলায়মান ॥ উদ্যোগটা আগেও একাধিকবার ছিল। সম্ভব হয়নি। এবার সত্যি সত্যিই বন্ধ করা হচ্ছে বিমানের সব লোকসানী রুট। গুটিকয়েক লাভজনক রুট ছাড়া বাকি সব বন্ধ করার পরিকল্পনা করছে বিমান। ইতোমধ্যেই শনিবারের বোর্ডসভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে, বিমানের দীর্ঘদিনের প্রেস্টিজিয়াস রুট রোম ফ্লাইট বন্ধ করার। এ রুটকে লোকসানী উল্লেখ করে নতুন এমডি কাইল হেউড যে যুক্তি দেখিয়েছেন, বিমান পরিচালনা পর্ষদ সেটাই গ্রহণ করে। এখন বন্ধ করার অফিসিয়াল প্রক্রিয়া চলছে। পহেলা এপ্রিল থেকে এ রুট বন্ধ করা হবে বলে জানিয়েছেন বিমান চেয়ারম্যান এয়ার মার্শাল জামাল।

বিমানের নতুন এমডি ব্রিটিশ বংশোদ্ভূত আফ্রিকান নাগরিক কাইল হেউডের এ সিদ্ধান্তে কর্মচারী কর্মকর্তাদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। াইল বলছেন, বিমান একটি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান। এটা দাতব্য প্রতিষ্ঠান নয় যে, লোকসান আর ভর্তুকি দিয়ে হলেও সব রুট চালু রাখতে হবে। এয়ারমার্শাল জামাল উদ্দিন বলেছেন, এমডির এ যুক্তি ও সিদ্ধান্তের সঙ্গে গোটা পর্ষদ একমত। লোকসানী রুট বন্ধ করে যদি লাভজনক রুটে ফ্লাইটের ফ্রিকোয়েন্সি বাড়ানো যায়, সেটাই বিমানের জন্য মঙ্গল।

জানা যায়, রোম বন্ধ করার সিদ্ধান্তে কর্মচারী কর্মকর্তাদের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। তারা বলছে, এটা কোন সমাধান নয়। মাথাব্যথা হলে ওষুধ না দিয়ে মাথা কেটে ফেলার মতো নয় সিদ্বান্ত এটা। রোমে বসবাসরত প্রচুর প্রবাসী বাংলাদেশীর বিষয়টি বিবেচনায় রেখে হলেও এ রুট চালু রাখাটা ছিল শ্রেয়।

বিমানের অর্থ শাখা থেকে জানা যায়, বর্তমানে সপ্তাহে দুটো ফ্লাইট চলে ঢাকা-রোম রুটে। প্রতিটি ফ্লাইটে বর্তমানে লোকসান গুনতে হচ্ছে ৮৮ লাখ টাকা। এভাবে যদি লোকসান দেয়া হয় তাহলে বছর শেষে সেটা অনেক বড় অঙ্কে পরিণত হয়।

জানা যায়, সত্তর দশকের শেষ ভাগে ঢাকা-রোম রুট চালু হলেও সেটা মাঝে প্রায় সাত বছর বন্ধ ছিল। বিগত ২০১৩ সালে বিমানের প্রথম ব্রিটিশ এমডি কেভিনের আমলে সেটা ফের চালু করা হয়। কেভিনের যুক্তি ছিল, লোকসান দিয়ে হলেও এটা চালু রাখতে হবে। লোকসান কিভাবে কমিয়ে লাভজনক করা যায় সেটাই হবে বিমানের জন্য করণীয়। অন্য দিকে কেভিনের আরেক স্বজাতি সদ্য যোগ দেয়া ব্রিটিশ এমডি কাইল সরাসরি মতামত দিয়েছেন-বিমান একটি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান। এ সরাসরি মতামত দিয়েছেন-বিমান একটি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান। এটা দাতব্য চিকিৎসালয় নয়, যে মানুষকে বিনা স্বার্থে শুধু উপকারই করবে। ব্যবসা করতে হলে লোকসানী রুট সব বন্ধ করে দেয়াই শ্রেয়।

এ সম্পর্কে জানতে চাইলে বিমান চেয়ারম্যান এয়ারমার্শাল জামালউদ্দিন জনকণ্ঠকে বলেন, বর্তমান এমডি কাইল হেউডকে স্বাধীনভাবে কাজ করার যথেষ্ট সুযোগ দেয়া হয়েছে। তিনি এখন বিমানের জন্য যেটা ভাল মনে করেন, সেটাই করবেন। তিনি সার্বিক বিচার বিশ্লেষণ করেই এ প্রস্তাব দেন। সেটা বিমান পর্ষদ অনুমোদন দেয়। তবে আমি মনে করি রোম ফ্লাইট বন্ধ করে ঢাকা-জেদ্দা রুটে ফ্রিকোয়েন্সি বাড়ানো হবে। এ রুট লাভজনক।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে এয়ার মার্শাল জামাল উদ্দিন বলেন, রোম ফ্লাইট কখনই লাভজনক ছিল না। শীঘ্রই লাভজনক করার কোন সম্ভাবনাও নেই। সেটা নতুন এমডি কেইল নিশ্চিত হবার পরই এটা ব›ন্ধ করার প্রস্তাব দেন।

প্রকাশিত : ৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

০৯/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: