কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

আমরা হেরে যাচ্ছি না ॥ ওবামা

প্রকাশিত : ২৩ মে ২০১৫

যুক্তরাষ্ট্র ও এর মিত্ররা মধ্যপ্রাচ্যে ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে লড়াইয়ে হেরে যাচ্ছে এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। তবে তিনি বলেন, ইরাকীদের হৃত ভূখ- পুনরুদ্ধারে আরও সহায়তা করা উচিত। তিনি বৃহস্পতিবার অনলাইনে প্রকাশিত এক সাক্ষাতকারে এসব মন্তব্য করেন। সিরিয়ায় আইএস জঙ্গীরা প্রাচীন পুরাকীর্তি সমৃদ্ধ পালমিরা শহর দখল করার পর আসাদপন্থী একদল যোদ্ধাকে হত্যা করেছে। তাদের মধ্যে কয়েকজনের শিরñেদ করা হয়। শহর থেকে প্রাপ্ত খবর ও ছবি থেকে এটা জানা যায়। খবর নিউইয়র্ক টাইমস ও টেলিগ্রাফের।

ওবামা ওই অঞ্চলে অধিকসংখ্যক আমেরিকান সৈন্য পাঠাতে তার অস্বীকৃতি পুনর্ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন যে, আইএসের সঙ্গে সংযুক্ত সুন্নি যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হলে ইরাকী সুন্নি যোদ্ধাদের জন্য আরও সাহায্য ও প্রশিক্ষণ প্রয়োজন। কিন্তু তিনি যেভাবে যুদ্ধ পরিচালনা করে এসেছেন, তা নিয়ে কোন দুঃখ প্রকাশ করেননি। তিনি বলেন, ইরাকীদের যুদ্ধ প্রয়াস জোরদার করা তাদেরই বিষয়।

ওবামা আটলান্টিক পত্রিকার সাংবাদিক জেফরি গোল্ডবার্গকে দেয়া ওই সাক্ষাতকারে বলেন, আমরা হেরে যাচ্ছি বলে আমি মনে করি না। আইএস জঙ্গীদের হাতে ইরাকী শহর রামাদির পতনের পর দিন কয়েক পর এ সাক্ষাতকার নেয়া হয়। ওবামা বলেন, রামাদিতে নিঃসন্দেহে এক কৌশলগত বিপর্যয় ঘটেছিল, যদিও রামাদি দীর্ঘদিন ধরেই অরক্ষিত ছিল, কারণ আমরা প্রশিক্ষণ বা শক্তি যুগিয়েছিলাম এমন ইরাকী নিরাপত্তা বাহিনী সেখানে ছিল না। প্রেসিডেন্ট আইএস মধ্য সিরিয়ার দ্বিতীয় শহর পালমিরা দখলের একদিন আগে ওইসব মন্তব্য করেন। আইএসের এ সাফল্যে ওবামার কৌশল ব্যর্থ হয়েছে বলে ওই অঞ্চল ও ওয়াশিংটনে উদ্বেগ বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রেসিডেন্ট ও তার টিম কয়েক মাস ধরে যুক্তি দেখিয়ে এসেছেন যে, তারা আইএসের অগ্রগতি পাল্টে দিয়েছেন। কিন্তু এখন ওই দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে নতুন করে ভাবা উচিত বলে সমালোচক ও স্বতন্ত্র বিশেষজ্ঞরা মত ব্যক্ত করছেন।

যুক্তরাষ্ট্র যানবাহন বোমা মোকাবেলায় ইরাকী বাহিনীকে সহায়তা করতে ১০০০ ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী রকেট পাঠাচ্ছে। রামাদি দখল করতে আইএস ওই ধরনের বোমা ব্যবহার করেছিল। কিন্তু হোয়াইট হাউস ওই অঞ্চলে মার্কিন যুদ্ধ প্রচেষ্টায় বড় ধরনের পরিবর্তন আনতে চায় না বলে স্পষ্ট করে দিয়েছে। ওবামা বিমান হামলা ও সময়ে সময়ে বিশেষ বাহিনীর মিশন চালানোর অনুমতি দিয়েছেন, কিন্তু তিনি বলেন, তিনি স্থল যুদ্ধ চালানোর বিষয়ে ইরাকের প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল আবাদির সরকার এবং মধ্যপন্থী সিরীয় বিদ্রোহীদের ওপর নির্ভর করছেন।

কোন কোন রিপাবলিকান একে অপর্যাপ্ত বলে অভিহিত করেন। সিনেটের সশস্ত্র বাহিনী কমিটির চেয়ারম্যান জন ম্যাককেইন সিনেটে বলেন, আমাদের নৈতিবার্তা কোথায়? আমাদের শালীনতা কোথায়? যেখানে হাজার হাজার মানুষকে হত্যা ও বাস্তুচ্যুত করা হচ্ছে এবং তাদের জীবন ধ্বংস করা হচ্ছে সেখানে কোথায় আমাদের উদ্বেগ?

সাক্ষাতকারে ওবামা রামাদির পতনের জন্য আনবার প্রদেশে ইরাকী সরকারের নিজস্ব বাহিনী, প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ও কমান্ড এ্যান্ড কন্ট্রোল ব্যবস্থা গড়ে তোলার ব্যর্থতাকে দায়ী করেন।

সুন্নি অধ্যুষিত ওই প্রদেশটি দীর্ঘদিন ধরেই বাগদাদের শিয়া নেতৃত্বাধীন সরকারের বিরোধীদের ঘাঁটি ছিল। তিনি বলেন, আনবারের সুন্নি বাহিনী মূলত এক বছর ধরে বাইরের সাহায্য ছাড়াই সেখানে অবস্থান করছিল।

ওবামা বলেন, আমরা নিঃসন্দেহে সুন্নি এলাকাগুলোতে কেবল প্রশিক্ষণই নয়, সহায়তাও বৃদ্ধি করতে যাচ্ছি। সুন্নি উপজাতিগুলো বর্তমানে যতখানি তৎপর, তাদের সেই তুলনায় আরও সক্রিয় করা আমাদের জন্য ভাল হবে। কাজেই এটি উদ্বেগের বিষয়।

তবে ওবামা ধৈর্য ধারনের পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, আমরা যাকে বহু বছরের লড়াই বলে সব সময়েই অভিহিত করে এসেছি, তার আট মাস পার করছি। আমার বিশ্বাস, প্রধানমন্ত্রী আবাদি এসব সমস্যার অনেকই বুঝতে পারেন, কিন্তু সেগুলোর অবশ্যই নিরসন করতে হবে।

প্রকাশিত : ২৩ মে ২০১৫

২৩/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

বিদেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: