কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

জমে উঠেছে বাণিজ্যমেলা

প্রকাশিত : ৪ জানুয়ারী ২০১৫

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ক্রেতা-দর্শনার্থীদের পদচারণায় জমে উঠতে শুরু করেছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা। শনিবার ছুটির দিনেও বিভিন্ন স্টল ও প্যাভিলিয়নগুলোতে ক্রেতাদের উপস্থিতি ছিল লক্ষণীয়। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত মেলা প্রাঙ্গণ ফাঁকা থাকলেও বেলা ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে ক্রেতা দর্শনার্থীদের উপস্থিতি বেড়ে যায়। বিক্রি তেমন না বাড়লেও দর্শনার্থীদের নজর কাড়ছে বিভিন্ন দৃষ্টিনন্দন প্যাভিলিয়ন ও স্টলগুলো। এদিকে মেলার তৃতীয় দিনেও অনেক স্টল পূর্ণতা পায়নি তার নিজস্ব চেহারায়।

শনিবার বাণিজ্যমেলা ঘুরে দেখা যায়, সকালের দিকে দর্শনার্থী কম থাকলেও দিনশেষে ক্রেতার সংখ্যা বাড়তে থাকে। এর মধ্যে শিশু, কিশোর ও মহিলাদের সমাগম ছিল লক্ষণীয়। মেলা প্রাঙ্গণের সড়কগুলোতেও ছিল ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড়। মেলার ভেতরের চত্বরগুলোতে তরুণ-তরুণীদের দেখা গেছে আড্ডা দিতে।

এদিকে মেলার তৃতীয় দিনেও কিছু স্টল ও প্যাভিলিয়ন তৈরির কাজ করতে দেখা গেছে। স্টল সাজাতে নির্মাণকারীরা শনিবারও কাজ করেছেন। মেলায় নারী ক্রেতাদের ভিড় দেখা গেছে, প্লাস্টিক পণ্যের স্টল ও প্যাভিলিয়নগুলোতে। এছাড়া এ্যালুমিনিয়ামের গৃহস্থালি, ইলেকট্রনিক পণ্যসামগ্রী, ইমিটেশনের গয়নাসহ মহিলাদের ব্যবহার্য সামগ্রীর স্টল ও শিশুদের খেলনার দোকানগুলোতে ক্রেতাদের ভিড় ছিল অনেকটা লক্ষণীয়। দেশী-বিদেশী প্রসাধনী সামগ্রী প্রদর্শিত হয়েছে এবারের মেলায়। পাশাপাশি চোখ এড়াতে পারেনি ফার্নিচারের স্টলগুলো। এসব স্টলগুলোতেও ক্রেতা সমাগম ছিল চোখে পড়ার মতো। ঘুরে-ফিরে সাধ্যের মধ্যে পছন্দের পণ্য কিনে ঘরে ফিরেছেন ক্রেতারা।

রাজধানীর মিরপুর থেকে আসা জেসমিন মলি জনকণ্ঠকে বলেন, প্রতিবছর বাণিজ্যমেলা থেকে ঘরের ব্যবহার্য প্লাস্টিক ও এ্যালুমিনিয়ামের জিনিসপত্র কিনে থাকি। বাইরের মার্কেটের তুলনায় মেলায় এসব পণ্যের দাম অনেকটাই কম। এছাড়া এখানে দেশী-বিদেশী প্রসাধনীসামগ্রী পাওয়া যায়। বিক্রেতা রবিউল জানান, গতবারের তুলনায় এবার বিক্রিটা আশানুরূপ হবে বলে তাদের প্রত্যাশা। মেলার শুরুতে ক্রেতাদের উপস্থিতিতে আমরা অনেকটাই সন্তুষ্ট। রাজনৈতিক পরিবেশ স্থিতিশীল থাকলে ব্যাপক সাড়া মিলবে বলে জানান এ বিক্রেতা।

এদিকে, মেলার শুরুতে বেশ জমে উঠেছে আসবাবপত্রের প্যাভিলিয়নগুলো। এবারের মেলায় পারটেক্স, নাভানা, আক্তার, হাতিল, ব্রাদার্স, নাদিয়াসহ দেশের আসবাব শিল্পের ব্র্যান্ডগুলো প্রতিবারের মতো এবারও বাণিজ্যমেলায় অংশ নিয়েছে। ভিন্ন চমক নিয়ে এসেছে এসব প্রতিষ্ঠানগুলো। নজরকাড়ার মতো আসবাবপত্র প্রদর্শিত হয়েছে এবারের মেলায়।

ক্রেতা সমাগম ঘটাতে ৫ থেকে ২০ শতাংশ পর্যন্ত মূল্যছাড় দিয়েছে আসবাবপত্র প্রতিষ্ঠানগুলো। নারী ও তরুণীদের ভিড় দেখা গেছে ইলেকট্রনিক্স দেশীয় ব্রান্ড ওয়াল্টন প্যাভিলিয়নে। ওয়াল্টন প্যাভিলিয়নের ম্যানেজার আকরামুজ্জামান অপু জানান, টেলিভিশন, ফ্রিজ, এয়ারকুলার, মোটরসাইকেল, মোবাইল, হোম ও কিচেন এ্যাপ্লায়েন্স পণ্যের নতুন অন্তত ৩০টি মডেল নিয়ে এসেছে ওয়াল্টন।

এছাড়া এবার প্রিমো সিরিজের এক্স-টু, এক্স-টু মিনি, এক্স-থ্রি, জেডএক্সসহ সর্বাধুনিক প্রযুক্তির প্রায় ৫০টি মডেলের মোবাইল সেট থাকছে বাণিজ্য মেলায়। নতুন মডেলের ওয়াল প্যাডও ক্রেতারা পাবেন আকর্ষণীয় ছাড়ে। এছাড়া জাপানি শার্প ইলেক্ট্রনিক্স প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে নিয়ে এসেছে সর্বাধুনিক প্রযুক্তির কোকোরোআই এলইডি টিভি। শার্প প্যাভিলিয়নের সেলস অফিসার আদনান শরীফ জানান, টিভি থেকে ২০ মিটারের মধ্যে কেউ রুমে ঢুকলে অটো চালু ও রুম থেকে বের হয়ে গেলে অটো বন্ধ হয়ে যাবে।

শনিবার বাণিজ্যমেলায় বঙ্গবন্ধুর জীবনী ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে তথ্যচিত্র প্রদর্শন কেন্দ্র বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়নে দর্শনার্থীদের ভিড় ছিল সব শ্রেণী পেশার মানুষের। এখানে তথ্য চিত্রের পাশাপাশি বড় স্ক্রিনে দেখানো হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সিনেমা। মেলার মধ্যখানে অবস্থিত এই প্যাভিলিয়নটি। এছাড়া বিনোদন কেন্দ্রগুলোতেও শিশু-কিশোরদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো।

প্রকাশিত : ৪ জানুয়ারী ২০১৫

০৪/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: