রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

হাওড় অঞ্চলের ৭ জেলায় বিনামূল্যে রাইস প্লান্টার ও রিপার দেয়া হচ্ছে ॥ কৃষিমন্

প্রকাশিত : ২ জুলাই ২০১৫

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ হাওড় অঞ্চলের সাতটি জেলায় বোরো চাষে ঝুঁকি কমিয়ে আনার লক্ষ্যে কৃষকদের মধ্যে বিনামূল্যে রাইস প্লান্টার (চারা লাগানোর যন্ত্র) ও রিপার (ধান কাটার মেশিন) সরবরাহ করছে সরকার। বুধবার সচিবালয়ে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ১০ কোটি ৬০ লাখ টাকা ব্যয়ে হাওড় অঞ্চলের সাতটি জেলায় বোরো ফসল নির্বিঘেœ ঘরে তুলতে যান্ত্রিকীকরণের মাধ্যমে চাষের সময় কমিয়ে আনা ও ফসল কর্তন দ্রুত করে কৃষকের ঝুঁকি কমিয়ে আনার লক্ষ্যে কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে রাইস প্লান্টার ও রিপার যন্ত্র সরবরাহ করা হবে।

এ জন্য প্রণোদনা কর্মসূচীতে ব্যয় ধরা হয়েছে ১০ কোটি ৬০ লাখ টাকা। রিপারের সংখ্যা হচ্ছেÑ ২৭৫টি। প্রতি ইউনিয়নে একটি করে রিপার মেশিন দেয়া হবে। রাইস প্লান্টারের সংখ্যা ১০০টি। প্রতি তিন ইউনিয়নে একটি করে রাইস প্লান্টার মেশিন দেয়া হবে।

এ কর্মসূচীর আওতায় প্রায় এক হাজার কৃষক, ৪২০ মেকানিক্স/চালক ৫০০ এসএসএও এবং ৬০ কৃষি কর্মকর্তাকে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। যেসব জেলা এর আওতায় আসবে সেগুলো হচ্ছেÑ সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা, কিশোরগঞ্জ, সিলেট, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ এবং ব্রাক্ষণবাড়িয়া। এসব জেলার ৬৫৭ উপজেলার ২৭৪ ইউনিয়নে মোট ৩৭৩টি হাওড় আছে।

মতিয়া চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশের মোট চাল উৎপাদনের ৫৫% হয় বোরো মৌসুমে। বোরো চাষ সেচ নির্ভর। তাই উৎপাদন ব্যয় বেশি হয় এবং ফলন বেশি। দেশের উৎপাদিত ধানের গড় ফলন ৩.০২ মেট্রিকটন.। সেখানে বোরোর গড় ফলন ৩.৮৯ মেট্রিকটন। দেশের প্রায় সব জেলাতে কমবেশি বোরো চাষ হলেও উত্তর পূর্বাঞ্চলে হাওড় এলাকায় বোরো চাষের জন্য সবচেয়ে উপযোগী। এসব এলাকায় বোরো আবাদও বেশি হয়। তাছাড়া হাওড় এলাকার নিম্নাঞ্চলে কেবলমাত্র একটি ফসল চাষ হয়, তা হলো বোরো।

প্রকাশিত : ২ জুলাই ২০১৫

০২/০৭/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: