কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সারাদেশের ৩৭৭ উপজেলায় ভোট ॥ সংরক্ষিত মহিলা আসনে প্রতিনিধি নির্বাচন আজ

প্রকাশিত : ১৫ জুন ২০১৫
  • উপজেলা পরিষদ গঠনের পর এই প্রথম নির্বাচন
  • ৪৮৩ উপজেলায় আসন সংখ্যা ১৫৭৭
  • ভোটার সংখ্যা ১৪ হাজার ১২ জন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত নারী প্রতিনিধি পদে ভোট গ্রহণ করা হবে আজ সোমবার। সারাদেশে ৩৭৭টি উপজেলায় সংরক্ষিত মহিলা আসনের প্রতিনিধি নির্বাচনের জন্য সকাল ৮টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হবে। শেষ হবে বিকেল চারটায়। ইতোমধ্যে ভোট গ্রহণের সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন। পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্যরা এ নির্বাচনে ভোট প্রদান করে উপজেলায় সংরক্ষিত নারী প্রতিনিধি নির্বাচন করবেন। আইন অনুযায়ী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দি¦তাও করছেন পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্যরা। গত ১৩ মে ৪৭৮ উপজেলায় সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে ইসি। তফসিল ঘোষণার পরও সীমানা ত্রুটির কারণে ৭টি উপজেলাতে নির্বাচন স্থগিত হয়। ইতোমধ্যে এ নির্বাচনে ৯৩টি উপজেলায় ৩৫২ জন সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছে। ফলে ওইসব উপজেলায় নির্বাচনের কোন প্রয়োজন হবে না। বাকি ৩৭৭টি উপজেলায় আজ ভোট গ্রহণ করা হবে।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, ভোটগ্রহণের সকল প্রস্তুতি শেষ করেছে ইসি। প্রয়োজনীয় মালামাল জেলাগুলোতে পাঠানো হয়েছে। এখন শুধু দায়িত্বশীল রিটার্নিং অফিসাররা সুন্দরভাবে নির্বাচন পরিচালনা করবেন। নির্বাচন কমিশন থেকেও এ নির্বাচন মনিটরিং করা হবে। এ জন্য একটি মনিটরিং টিম গঠন করা হয়েছে। কোথাও কোন সমস্যা দেখা দিলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেবে ইসি।

উপজেলা পরিষদে নারী সদস্য পদের নির্বাচনে ভোটার হচ্ছেন সংশ্লিষ্ট উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ ও পৌরসভার সংরক্ষিত নারী সদস্যরা। সদস্যপদে প্রার্থীও ইউনিয়ন ও পৌরসভার সংরক্ষিত নারী সদস্যরা। আইন অনুযায়ী, প্রতিটি উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ এবং পৌরসভার মোট সংখ্যার এক-তৃতীয়াংশের সমানসংখ্যক পদ মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত থাকে। কোন উপজেলায় ১৫টি ইউনিয়ন থাকলে পরিষদে মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত পদের সংখ্যা হবে পাঁচটি। ১২টি থাকলে চারটি।

তফসিল অনুযায়ী, উপজেলায় সংরক্ষিত মহিলা আসনের নির্বাচনে রিটার্নিং অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার করা হয়েছে যথাক্রমে জেলা নির্বাচন অফিসার এবং উপজেলা নির্বাচন অফিসারকে। এ নির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমার শেষদিন ছিল ২১ মে। যাচাই-বাছাই করা হয় ২৩ মে এবং ৩০ মে ছিল প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন।

কমিশন জানিয়েছে উপজেলা পরিষদ গঠিত হওয়ার পর এই প্রথম সংরক্ষিত নারী আসনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এর আগে সংশ্লিষ্ট উপজেলায় সংরক্ষিত নারী আসনের সংখ্যা ঠিক করে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। গত বছর ডিসেম্বরে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেও মনোনয়ন ফরম সংক্রান্ত আইনি জটিলতায় থমকে যায় এ নির্বাচন প্রক্রিয়া।

কমিশন জানিয়েছে উপজেলায় সংরক্ষিত নারী সদস্যদের নির্বাচনের পর নির্বাচিতদের জন্য পৃথক এলাকা বণ্টনও করা হবে। প্রতিটি উপজেলায় সংরক্ষিত নারী আসনের সীমানা নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া কোন উপজেলায় কত জন সংরক্ষিত নারী সদস্য থাকবেন সে সংখ্যা নির্ধারণ করেই ভোট গ্রহণ করা হচ্ছে। কমিশন জানিয়েছে দেশের ৪৮৩ উপজেলায় মোট সংরক্ষিত নারী আসন সংখ্যা ১ হাজার ৫৭৭টি। এতে ভোটার ১৪ হাজার ১২ জন। এর মধ্যে ৪৭৮টি উপজেলায় নির্বাচনের উদ্যোগ নেয় ইসি। ৯৩ উপজেলায় প্রার্থীরা বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ার কারণে আজ ভোট গ্রহণ করা হবে ৩৭৭টি উপজেলায়। এছাড়া ৭টি উপজেলায় তফসিল ঘোষণা করেও নির্বাচন স্থগিত রাখা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাচন বিধিমালায় সংরক্ষিত মহিলা আসন নির্বাচনের বাধ্যবাধকতা থাকলেও আইনি জটিলতার কারণে ২০০৯ সালে অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত মহিলা পদে নির্বাচন করতে পারেনি ইসি। গত বছর অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে উপজেলাতে নারী পদের ভোটগ্রহণের জন্য ডিসেম্বরে উদ্যোগ নিলেও আইনি জটিলতায় আটকে যায়।

উপজেলা পরিষদ আইন, ১৯৯৮-এর ৬ ধারার (১) উপধারা ও (৪) উপধারায় উপজেলা পরিষদ গঠিত হবে, একজন চেয়ারম্যান, দু’জন ভাইস চেয়ারম্যান, যাহার মধ্যে একজন নারী ভাইস চেয়ারম্যান এবং উপজেলা এলাকাভুক্ত প্রত্যেক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বা সাময়িক চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালনকারী ব্যক্তি। উপজেলার এলাকাভুক্ত প্রত্যেক পৌরসভা, (যদি থাকে) এর মেয়র বা সাময়িকভাবে মেয়রের দায়িত্ব পালনকারী ব্যক্তি এবং উপধারা (৪) অনুযায়ী সংরক্ষিত আসনের নারী সদস্যগণ। বিধান অনুযায়ী পরোক্ষ ভোটের মাধ্যমে এ জনপ্রতিনিধি নির্বাচন করা হবে।

প্রকাশিত : ১৫ জুন ২০১৫

১৫/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: