মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সবাইকে ছাড়িয়ে যাওয়ার ম্যাচ তামিমের

প্রকাশিত : ১০ জুন ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ জবাব দেয়া হয়ে গেছে। তীব্র সমালোচনার মুখে ছিলেন ধারাবাহিকতার অভাবে। গত এপ্রিল-মে মাসে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ঘরোয়া সিরিজ দুর্দান্ত খেলেছেন। দারুণ খেলে ওয়ানডেতে বাংলাদেশের পক্ষে সর্বাধিক রানের মালিক হয়ে গেছেন। টেস্ট ক্রিকেটেও সর্বাধিক রান করার মোক্ষম সুযোগ ছিল প্রথম টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি (২০৬) হাঁকানো তামিমের। পাকদের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টে দুই ইনিংস মিলিয়ে ৫৩ রান করলেই হতো। কিন্তু পারেননি তামিম, করতে পেরেছিলেন মাত্র ৪৬ রান। ফলে সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশার সুমনের শীর্ষস্থানটা অটুট আছে। এবার সবাইকে ছাড়িয়ে যেতে অপেক্ষার প্রহর শেষের পথে। ফতুল্লায় আজ থেকে ভারতের বিরুদ্ধে শুরু হতে যাওয়া একমাত্র টেস্টে মাত্র ৭ রান করলেই অনন্য উচ্চতায় পৌঁছবেন তিনি। ইতোমধ্যেই দ্বিতীয় বাংলাদেশী হিসেবে টেস্ট ক্রিকেটে ৩ হাজার রানের মাইলফলক ছুঁয়ে ফেলেছেন। প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ওই কীর্তি দেখিয়েছেন হাবিবুল। এবার শীর্ষে ওঠার অপেক্ষা বাঁহাতি ওপেনার তামিমের। ৩৯ টেস্টে ৩০২০ রান করা তামিমের চেয়ে এগিয়ে সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল ৩০২৬ রান নিয়ে।

ভারতের বিরুদ্ধে মাত্র ২ টেস্ট খেলেছেন তামিম। ওই দুই টেস্টেই ব্যাট হাতে দারুণ নৈপুণ্য দেখিয়েছেন তিনি। ২০১০ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশ সফরে দুটি টেস্ট খেলেছিল ভারতীয় দল। ওই দুটি টেস্টেই খেলে তামিম করেছিলেন ৪ ইনিংসে ৫৮.৫০ গড়ে ২৩৪। ইনিংসগুলো ছিল- ৩১, ৫২, ০ ও ১৫১ রানের। সেটাই ছিল ভারত-বাংলাদেশের সর্বশেষবার টেস্ট ক্রিকেটে মুখোমুখি হওয়া। সে বছরটাই দারুণ কেটেছিল তামিমের। ইংল্যান্ড সফরেও দুর্দান্ত নৈপুণ্য দেখিয়েছিলেন। সে কারণে ২০১১ সালে মর্যাদার উইজডেন বর্ষসেরা পুরষ্কারটা জুটে ছিল। কিন্তু মাঝে রান খরার কারণে সমালোচনায় পড়া তামিম পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সিরিজে উপযুক্ত জবাব দিয়েছেন ব্যাট হাতে। প্রথম টেস্টেই ক্যারিয়ারসেরা ২০৬ রানের ইনিংস খেলেছেন। আর এখন পর্যন্ত টেস্ট ক্রিকেটে কোন বাংলাদেশী ক্রিকেটারের সেটাই সর্বাধিক ব্যক্তিগত ইনিংস। একাধারে ওয়ানডে, টি২০ ও টেস্ট তিন ফরমেটের ক্রিকেটেই তার বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংস রয়েছে। ওয়ানডেতে ১৫৪, টি২০ ক্রিকেটে অপরাজিত ৮৮ এবং টেস্টে ২০৬! এছাড়াও টেস্টে সর্বাধিক ৭টি এবং ওয়ানডেতে সর্বাধিক ৬টি করে সেঞ্চুরি রয়েছে তার। তার আগে বাংলাদেশের কোন ওপেনার এত বেশি রান করতে পারেননি।

ওয়ানডেতে তামিম বাংলাদেশের পক্ষে সর্বাধিক রানের মালিক। তার রান ৪৪৩৭। তামিমই একমাত্র বাংলাদেশী ক্রিকেটার যিনি ওয়ানডেতে টানা ৪ হাফসেঞ্চুরি করেছেন ২০১২ এশিয়া কাপে। এই তামিমই ২০১০ সালে ইংল্যান্ড সফরে টেস্ট সিরিজে টানা পাঁচ অর্ধশতাধিক রানের ইনিংস (৮৫, ৫২, ৫৫, ১০৩, ১০৮) উপহার দিয়েছিলেন, যা বাংলাদেশের পক্ষে সর্বাধিক। এবার অন্য সিরিজ। শক্তিশালী ভারতের বিরুদ্ধে ধারাবাহিকতার প্রমাণ দেয়ার পাশাপাশি অনন্য উচ্চতায় পৌঁছানোর ম্যাচ আজ থেকে। ৩৯ টেস্টে তার রান ৩০২০, মাত্র ৬ রান পিছিয়ে হাবিবুলের চেয়ে (৩০২৬)। দুই ইনিংস মিলিয়ে ৭ রান করতে পারলেই কীর্তির দিক দিয়ে তামিমের সবচেয়ে কাছাকাছি থাকবেন শচীন টেন্ডুলকর ও রিকি পন্টিং। দুজনই নিজ নিজ দলের টেস্ট ওয়ানডের সর্বোচ্চ রানের মালিক, টেস্ট ও ওয়ানডের সর্বোচ্চ সেঞ্চুরির মালিকও। তবে এ দুই ফরমেটে এ দু’জন নিজ দলের হয়ে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংস খেলতে পারেননি। এবার ফতুল্লা টেস্টে তাদেরও ছাড়িয়ে যাওয়ার ম্যাচ তামিমের।

প্রকাশিত : ১০ জুন ২০১৫

১০/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: