মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বঙ্গবন্ধুভক্ত সাত্তার তাঁর শিল্পকর্ম দিতে চান প্রধানমন্ত্রীকে

প্রকাশিত : ৮ জুন ২০১৫
  • ডিসির কাছে আবেদন

নিজস্ব সংবাদদাতা, কলাপাড়া, ৭ জুন ॥ বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা এবং ভালবাসার টানে কুয়াকাটার দরিদ্র আব্দুস সাত্তার ফকির প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দেয়ার জন্য সুপারি কাঠ দিয়ে দৃষ্টিনন্দন একটি পালতোলা নৌকা ও একটি ইজি চেয়ার বানিয়েছেন। এখন এ শিল্পকর্মটি সচক্ষে দেখতে সাত্তারের ঝুপড়িঘরে ভিড় করছে কুয়াকাটায় আসা পর্যটক-দর্শনার্থী। স্থানীয় লোকজনও দেখছেন নয়নভরে। শিল্পকর্মটি সাত্তার ফকির নিজে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পৌঁছে দিতে পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বরাবর একটি লিখিত আবেদন করেছেন। তিন ফুট তিন ইঞ্চি লম্বা নৌকাটির প্রস্থ ১০ ইঞ্চি। পালতোলা দৃষ্টিনন্দন নৌকাটি বানানো হয়েছে সম্পূর্ণ সুপারি কাঠ দিয়ে। নৌকার পালে সামুদ্রিক শামুক ও ঝিনুক ব্যবহার করা হয়েছে। পালের অগ্রভাগে বঙ্গবন্ধুর একটি প্রতিকৃতি দেয়া হয়েছে। নৌকাটিতে লাল-সবুজের পতাকা ওড়ানো হয়েছে। নৌকাটি রাখা হয়েছে আড়াই ফুট উঁচু শাপলা ফুলের তৈরি স্ট্যান্ডের ওপর। পেছনে একটি বৈঠা লাগানো হয়েছে। যে কেউ দেখলে নজর কাড়বে নৌকাটির ওপর। আব্দুস সাত্তার জানান, দেশ স্বাধীনের পরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের দক্ষিণাঞ্চল সফরের অংশ হিসেবে পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া থানা শহরের হাই স্কুল মাঠে বক্তব্য রাখেন। তখন বঙ্গবন্ধুকে সচক্ষে দেখেন। তখন থেকে তিনি বঙ্গবন্ধু এবং স্বাধীনতার প্রতীক নৌকার প্রতি প্রবলভাবে আকৃষ্ট হয়ে পড়েন। তখন সাত্তারের বয়স মাত্র ৭ বছর। তার দাবি, ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরে তার পরিবারের প্রতি আরও গভীর শ্রদ্ধা জন্মে। বর্তমানে আব্দুস সাত্তারের বয়স ৫৬ বছর। বয়সের চেয়ে অভাব আর জীবন-যুদ্ধের লড়াইয়ে দাড়ি-চুল পেকে সাত্তার পরিণত হয়েছেন বয়োবৃদ্ধে। প্রায় ছয় মাস কঠোর পরিশ্রম করে সাত্তার এ শিল্পকর্মটি করেছেন। তার আবেদন এ শিল্পকর্মটির পাশাপাশি সুপারি কাঠের তৈরি একটি ইজি চেয়ারও তিনি প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দিতে চান। বস্তিবাসীর মতো কুয়াকাটা সৈকতের শূন্য পয়েন্টের পূর্বদিকে নারিকেল বাগানের এক পাশের ঝুপড়িতে সাত্তারের বসবাস। স্ত্রী-সন্তান নিয়ে চারজনের সংসার। ভূমিহীন এ মানুষটি এক চিলতে খাস জমির জন্য কলাপাড়ায় কর্মরত ভূমি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বহু চেয়ার তৈরি করে দিয়েছেন। কিন্তু কেউ তাকে একটু মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দেয়নি। সাত্তারের দাবি কোন কিছু পাওয়ার বিনিময়ে তিনি এটি করেননি। তার জীবনের একটি স্বপ্ন এ নৌকাটি প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দেয়ার।

রিক্সা তৈরি থেকে শুরু করে মোটর মেকানিক্যাল কাজ, ফুলের বাগানসহ বিভিন্ন পেশায় কোনমতে জীবিকা চলছে এ মানুষটির। এখন সুপারি কাঠ দিয়ে করছেন চেয়ার, টেবিল বানানো শিল্পকর্ম।

প্রকাশিত : ৮ জুন ২০১৫

০৮/০৬/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: