মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

কুড়িগ্রামে বাফার গুদামের ২ হাজার টন সার খোলা মাঠে

প্রকাশিত : ১৮ এপ্রিল ২০১৫
  • ধারণক্ষমতা কম

স্টাফ রিপোর্টার, কুড়িগ্রাম ॥ কুড়িগ্রামে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের গুদাম সঙ্কটের কারণে ২ হাজার টন ইউরিয়া সার নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে। বাফা কর্তৃপক্ষ খোলা আকাশের নিচে মাটিতে রাখা এসব সার ত্রিপল দিয়ে ঢেকে রাখলেও গুণগত মান নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

কুড়িগ্রামে ২ হাজার টন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন একটি বাফার গোডাউন থাকলেও তাও অনেক পুরাতন। চলতি মৌসুমে সারের চাহিদা থাকায় কুড়িগ্রামে সার মজুদ রয়েছে ৬ হাজার টন। এই বিপুল পরিমাণ মজুদ সার নিয়ে বিপাকে পড়েছেন বাফা কর্তৃপক্ষ।

কুড়িগ্রামের সার ব্যবসায়ী দুলাল হোসেন বলেন, এসব ইউরিয়া সার গুদামের বাইরে দীর্ঘ সময় রাখার ফলে জমাট বেঁধে শক্ত হয়ে যায়। ফলে এসব জমাট বাঁধা সার কৃষকরা সহজে নিতে চান না। ২ হাজার মেট্রিক টন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন এ গোডাউনে ঠাসাঠাসি করে ৪ হাজার টন মজুদ করা হলেও বাকি সার খোলা আকাশের নিচে মাটিতে ত্রিপল দিয়ে ঢেকে রাখা হয়েছে। বাংলাদেশ সার ডিলার এ্যাসোসিয়েশন, কুড়িগ্রাম জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক, গোলাম মোস্তফা জানান, বর্ষা মৌসুম শুরু হয়েছে এ অবস্থায় এ বিপুল পরিমাণ সার জমাট বাঁধবে আর তা কৃষকরা নিতে চাইবে না। এ সব জমাট বাঁধা সার নিয়ে আমাদের বিপাকে পড়তে হবে। এতে করে ইউরিয়া সারের গুণগত মান নিয়েও প্রশ্ন দেখা দেয়। দীর্ঘদিন ধরেই এ অবস্থা চলে আসছে। আমরা অতিসত্বর বাফার একটি নতুন গুদাম নির্মাণের দাবি জানাচ্ছি।

গোডাউন কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে কোন বক্তব্য দিতে রাজি না হলেও কুড়িগ্রাম কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক মোঃ শওকত আলী সরকার জানান, দীর্ঘদিন খোলা আকাশের নিচে থাকার ফলে এসব সারের গুণগত মান নষ্ট হয়ে যাবে। যার প্রভাব পড়বে কৃষি খাতে।

প্রকাশিত : ১৮ এপ্রিল ২০১৫

১৮/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: