মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

রাজশাহীতে ঝড়ে উপড়ে গেছে কোটি টাকার গাছ

প্রকাশিত : ১২ এপ্রিল ২০১৫
  • প্রতিটি স’ মিলে কাটা গাছের স্তূপ

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ রাজশাহীর ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া দুই দফায় কালবৈশাখীর তা-বে অন্তত কোটি টাকার সরকারী গাছের ক্ষতি হয়েছে। এসব গাছ এখন হরিলুট চলছে। রাজশাহী জেলার বিভিন্ন সড়ক, মহাসড়কে রোপিত এসব গাছের রক্ষণাবেক্ষণ করে সামাজিক বন বিভাগ, বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগ। তবে ঝড়ে পড়া এসব গাছ সংরক্ষণে তাদের তেমন কার্যক্রম নেই।

সংশ্লিষ্ট দফতরের হিসাব মতে, দুই দফার ঝড়ে প্রায় ৫০ লক্ষাধিক টাকার গাছ উপড়ে পড়ে। তবে সংশ্লিষ্ট বিভাগের তদারকির অভাবে এসব গাছ হরিলুট করে নিচ্ছে স্থানীয় প্রভাবশালীরা। বিভিন্ন সড়কের পাশে উপড়ে পড়া গাছ ও ডালপালা এখন প্রকাশ্যে ও রাতের আঁধারে কেটে নিয়ে যাচ্ছে স্থানীয় প্রভাবশালীরা। এসব উপড়ে পড়া গাছের কিঞ্চিত অংশও উদ্ধার করতে পারেনি বন বিভাগ, বিএমডিএ কিংবা সওজ।

খোঁজ নিয়ে গত শনিবার প্রথম দফায় ঝড়ের পর থেকে স্থানীয় প্রভাবশালীরা সরকারী এসব গাছ কেটে নিয়ে যায়। এর মধ্যে গোদাগাড়ী উপজেলার দেওপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের সচিবের বিরুদ্ধে ঝড়ে ভাঙ্গার অজুহাতে জুগিডাংকলোনি সংলগ্ন সরকারী রাস্তার ধারের দুইটি শিশু গাছ বিক্রি করে ফেলেছেন। এলাকাবাসী জানায়, গত শুক্রবার উপজেলার রাজাবাড়ীহাট স’ মিলের মালিক ওবাইদুল ইসলাম গাছ দুইটি কাটতে গেলে বিষয়টি তারা জানতে পারে। এলাকাবাসী সরকারী গাছ কাটতে বাধা দিলে ওবাইদুল ইসলাম বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ থেকে গাছ লিজ নেয়া হয়েছে। এলাকাবাসী দেওপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আকতারুজ্জামানকে খবর দেয়। খবর পেয়ে চেয়ারম্যান ঘটনাস্থলে এসে গাছ কাটা বন্ধ করেন। এভাবে অনেক এলাকায় সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যান, মেম্বার, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের ছত্রছায়ায় নিজ নিজ এলাকার যুবকরাও এসব গাছ হরিলুট করে নিচ্ছে। জেলার বিভিন্ন স’ মিলে এখন ঝড়ে পড়া গাছ লক্ষ্য করা গেছে। সংশ্লিষ্ট দফতর দেখে ক্ষতিগ্রস্ত গাছের পরিমাণ অর্ধকোটি টাকা বলে দাবি করা হলেও স্থানীয়রা জানায় জেলায় অন্তত কোটি টাকার গাছ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

রাজশাহী বিভাগীয় বন কর্মকর্তা অজিত কুমার রুদ্ধ জানান, দুইদিনের ঝড়ে তাদের তত্ত্বাবধানে থাকা ১১ হাজার বিভিন্ন প্রজাতির গাছের ক্ষতি হয়েছে। তার হিসেব মতে, এসব গাছের আনুমানিক মূল্য ১৬ লাখ টাকা। এসব গাছ টেন্ডারের মাধ্যমে বিক্রি করা হবে বলে তিনি জানালেও তার আগে এসব গাছের বেশিরভাগই হরিলুট হয়ে গেছে। এসব গাছ সংরক্ষণে বন বিভাগের কোন পদক্ষেপ নেই বলে জানা গেছে।

রাজশাহী বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী পরিচালক প্রকৌশলী আব্দুর রশিদ জানান, তাদের অন্তত ১০ হাজার বিভিন্ন প্রজাতির গাছ দুই দফা ঝড়ে উপড়ে ও ডালপালা ভেঙ্গে ক্ষতি হয়েছে। এসব গাছ সংরক্ষণ করা হয়েছে। পরে টেন্ডারের মাধ্যমে বিক্রি করা হবে। তবে কি পরিমাণ গাছ সংরক্ষণ করা হয়েছে তার হিসাব দিতে পারেনি সংশ্লিষ্ট বিভাগ।

এদিকে সড়ক ও জনপথ বিভাগের তত্ত্বাবধানে থাকা কোন গাছের ক্ষতি হয়নি বলে দাবি করেন রাজশাহী জোনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আব্দুস সালাম। তিনি বলেন, তাদের কোন গাছ ভেঙ্গে পড়েননি। তবে একাধিক সূত্র জানায়, দুই দফার ঝড়ে রাজশাহী জেলায় অন্তত কোটি টাকার গাছ নষ্ট হয়েছে। সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তাদের যোগসাজশে একাধিক চক্র এসব গাছ হরিলুট করছে। এতে সরকার রাজস্ব হারালেও পকেট ভর্তি হচ্ছে একশ্রেণীর কর্মকর্তা ও স্থানীয় প্রভাবশালীদের।

প্রকাশিত : ১২ এপ্রিল ২০১৫

১২/০৪/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: